ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৫ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

কুবিতে চূড়ান্ত পরীক্ষা ও ফল নিয়ে বিপাকে শিক্ষার্থীরা
কুবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:২১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 80

করোনার প্রভাবে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ন্যায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ও বন্ধ রয়েছে ১৭ইমার্চ থেকে। প্রায় ছয় মাস ধরে বন্ধ থাকায় চূড়ান্ত পরীক্ষা না হওয়া ও চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিতনা হওয়ায় বিপাকে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

সবচেয়ে বেশী বিপাকে পড়তে হচ্ছে স্নাতক শেষবর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীদের। চূড়ান্ত পরীক্ষা দিতে না পারায় ও চূড়ান্ত ফল প্রকাশ না হওয়ায়
বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চাকুরীর পরীক্ষায় আবেদন করতে পারছে না তারা।

অন্যদিকে দীর্ঘসময় বিশ^বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বড় সেশনজটের আশঙ্কা করছেন শিক্ষার্থীরা।

সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুমতি দিয়েছে ঢাবি প্রশাসন। এছাড়া শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার সুবিধার্থে জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি খুলে দেওয়া হচ্ছে। এরেই প্রেক্ষিতে কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয়েও স্বাস্থ্যবিধি মেনে আটকে থাকা পরীক্ষাগুলো নেওয়ার দাবি করছেন তারা। তবে অনলাইনে ক্লাস কার্যক্রম চলমান থাকলেও শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষা ও অপ্রকাশিত ফলফল নিয়ে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ^বিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মার্চ মাসের ১০ তারিখ পর্যন্ত অন্তত ৩০টি সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছিল পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়। কিন্তু করোনার ফলে বিশ^বিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরীক্ষাগুলো আয়োজন করা সম্ভব হয়নি।

করোনা সংকটে সাধারণ ছুটি ঘোষণার আগে পাঁচটি স্নাতক এবং চারটি স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত পরীক্ষাসহ প্রায় ১৬টি সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা চলমান ছিল। যাদের শুধুমাত্র একটি বা দুটি পরীক্ষা বাকি আছে। এছাড়া বিভিন্ন ব্যাচের পরীক্ষা শেষ হলেও চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত হয়নি। ফলে বিভিন্ন চাকুরীর পরীক্ষায় আবেদন করতে পারছেন না শিক্ষার্থীরা।

বিভিন্ন বিভাগের একাধিক শিক্ষার্থী জানান, করোনায় বিভিন্ন বিভাগের স্নাতক শেষবর্ষ ও স্নাতকোত্তরের পরীক্ষা আটকে পড়েছে, আবার অনেকের ক্লাস শেষ হলেও একটি বা দুইটি পরীক্ষা আটকে থাকায় এবং বিভিন্ন বিভাগের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত না হওয়ায় কোনও চাকরির পরীক্ষায় আবেদন করতে পারছেনা তারা। অথচ করোনা শেষ হবার সাথে সাথে সকল চাকরির পরীক্ষা
অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে।

ফলে চাকরির বাজারে পিছিয়ে পড়ার শঙ্কায় শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন চাইলেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে আটকে থাকা বাকি পরীক্ষাগুলো নিয়ে এবং ফলাফল প্রকাশ করে শিক্ষার্থীদের চাকুরীর আবেদন করার সুযোগ করে দিতে পারে। তবে এখই কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন।

স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত পরীক্ষায় যাদের একটি বা দুটি পরীক্ষা বাকি আছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অন্তত তাদের পরীক্ষা নিতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা কার্যালয়ের পরিচালক অধ্যাপক ড. জি এম মনিরুজ্জামান।

সার্বিক বিষয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মোঃ আবু তাহের বলেন, বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য, ডিনবৃন্দ এবং বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাথে কথা বলে আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিব। তবে এখনই এ বিষয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]