ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১২ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

রক্তের দাগ দেখে ঘাতক গ্রেফতার
চুরি করতে দেখে ফেলায় গলা কেটে গৃহবধূকে হত্যা
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:০১ পিএম আপডেট: ১৫.০৯.২০২০ ১১:৫১ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 24

রাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন নন্দীপাড়ায় চুরি করতে দেখে ফেলায় এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করেছে একই বাসায় কাজ করা এক নির্মাণ শ্রমিক। নিহত ওই গৃহবধূর নাম জান্নাতুল ফেরদৌস (২৫)। ঘটনার পর রক্তের দাগ দেখে ঘাতক মনিরকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে নন্দীপাড়ার লাল মসজিদ সংলগ্ন সাততলা বাড়ির চারতলায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে, পৃথক ঘটনায় খিলগাঁওয়ের পূর্ব নন্দীপাড়া এলাকা  থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের (২৫) মস্তকবিহীন লাশ ও হাজারীবাগের বছিলা থেকে এক ব্যক্তির গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সবুজবাগ থানার ওসি মাহবুব আলম জানান, নন্দীপাড়ার লাল মসজিদ সংলগ্ন সাততলা বাড়ির চারতলায় স্বামী মোস্তাফিজ ও এক সন্তানকে নিয়ে থাকতেন জান্নাতুল ফেরদৌস। মোস্তাফিজ গুলশানের একটি হোটেলের ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেন। তারা যে বাসায় থাকেন ওই বাড়িটির চারতলার উপরের ফ্লোরগুলোর নির্মাণকাজ চলছিল। সেখানেই নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করত মনির। সোমবার রাত ৯টার দিকে চুরির উদ্দেশ্যে গৃহবধূ জান্নাতুলের বাসার পেছনের গেট দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে মনির। সে সময় জান্নাতুল তাকে দেখে ফেললে সঙ্গে সঙ্গেই মনির তার মুখ জাপটে ধরে। এতে তিনি চিৎকার করতে চাইলে মনির তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে ওই গৃহবধূর পিঠে একে একে সাতটি আঘাত করে। এরপরেও তিনি মনিরের হাত থেকে বাঁচতে ছুটে গিয়ে বেডরুমে ঢোকেন। মনিরও দৌড়ে বেডরুমে ঢুকে বিছানায় ফেলে গলা কেটে জান্নাতুলের মৃত্যু নিশ্চিত করে।
এদিকে, গলা কাটার সময় মনিরুলের নিজের হাতের আঙুলও কেটে যায়। এর মধ্যে চিৎকার শুনে তিন তলাসহ আশপাশের লোকজন দৌড়ে ওপরে উঠে আসে। মনিরও ধরা পড়ার ভয়ে পেছনের দরজা দিয়ে উপরে উঠে নিজের রুমে গিয়ে শুয়ে থাকার ভান করে। পরে রক্তের দাগ দেখে তাকে আটক করা হয়। ওসি আরও বলেন, হত্যার খবর পেয়ে পুলিশ ওই বাসার পেছনের দরজার কাছে গিয়ে ফোটা ফোটা রক্তের দাগ দেখতে পায়। এমনকি চারতলা থেকে পাঁচতলায় ওঠার সিঁড়িতেও রক্তের দাগ লেগেছিল। পরে ওপরে উঠে মনিরকে দেখতে পেয়ে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে। চুরি করতে গিয়ে দেখে ফেললে ওই নারীকে হত্যা করেন বলে পুলিশকে জানান তিনি।
ডিএমপির সবুজবাগ জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাশেদ হাসান জানান, মনির চুরি করতেই ওই বাসায় ঢুকেছিল নাকি অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল তা জানার জন্য তদন্ত চলছে। তবে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে চুরির জন্য ঢুকেছিল বলে স্বীকার করেছে। ঘটনাস্থল থেকে ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেকের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, দুই মাস আগে জান্নাতরা নিজেদের ওই নতুন ফ্ল্যাটে উঠেন। তার স্বামী প্রতিদিন রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে বাসায় ফিরতেন। সারা দিন ছোট্ট শিশু সন্তানকে নিয়ে তিনি একাকী থাকতেন। ওই বাসায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করার কারণে এ সব বিষয়গুলো জানা ছিল মনিরের। সেগুলোর ভিত্তিতে চুরির পরিকল্পনা করে সে। জানা গেছে, মনির প্রায় ৬ মাস ধরে ওই বাসায় নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করছিল। করোনার কারণে সাময়িকভাবে নির্মাণকাজ বন্ধ থাকায় মনির একাই ভবনে পানি দেওয়ার কাজ করত।
খিলগাঁওয়ে যুবকের মস্তকবিহীন লাশ
খিলগাঁও থানার ওসি মো. ফারুকুল আলম বলেন, মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে খিলগাঁওয়ের পূর্ব নন্দীপাড়ার ৬ নম্বর সড়কের চার তলাবিশিষ্ট নতুন ৪ নম্বর বাসার পেছন থেকে অজ্ঞাত ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ওসি বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ওই লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেকের মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃতের পরনে কালো রঙের প্যান্ট পরিহিত ছিল। লাশের পরিচয় জানাসহ মাথাটির খোঁজে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ ছাড়া কে বা করা হত্যায় জড়িত সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
বছিলায় তালাবদ্ধ ঘর থেকে লাশ উদ্ধার : হাজারীবাগ থানাধীন বছিলা এলাকার একটি বাড়ির তালাবদ্ধ ঘর থেকে এক ব্যক্তির গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে বছিলার মধ্যপাড়ায় সুলতান উদ্দীনের তিনতলা বাড়ির নিচতলা থেকে ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, ঘরের ভেতর থেকে দুর্গন্ধ এলে স্থানীয়রা হাজারীবাগ থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। মধ্যবয়সি ওই ব্যক্তির লাশ খাটের ওপরে ছিল। তার মুখে গামছা বাঁধা ও গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
হাজারীবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদুর রহমান জানান, চলতি মাসের শুরুর দিকে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে দুজন ওই বাসায় উঠেছিলেন। তবে তাদের নাম-ঠিকানা বাড়িওয়ালা রাখেননি। গত ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে বাসার দরজায় তালা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, স্ত্রী পরিচয় দিয়ে যে মহিলাকে নিয়ে এই বাসা ভাড়া নেওয়া হয়েছিল, সে-ই হত্যার ঘটনা ঘটিয়ে বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। মৃত ব্যক্তিসহ ওই নারীর পরিচয় বের করতে পুলিশ কাজ করছে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]