ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৫ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

হাত-পা বেঁধে দুই ছাত্রকে মারধর
স্বীকার করে জবানবন্দি দিল সেই শিক্ষক
আদালত প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৪৩ পিএম আপডেট: ১৬.০৯.২০২০ ১১:০৫ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 16

সাভারের আশুলিয়া মধুপুর এলাকায় জাবালে নুর মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থী রাকিব হোসেন ও মাহফুজুর রহমান ফুয়াদকে হাত-পা বেঁধে মারধরের ঘটনা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন ওই মাদ্রাসার শিক্ষক ইব্রাহীম হোসেন। বুধবার ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম (সিজিএম) আদালতে আসামি ইব্রাহীমকে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার এসআই টুম্পা সাহা। এ সময় আসামি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে ইচ্ছুক হওয়ায় তা রেকর্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম রাজীব হাসান আসামির জবানবন্দি
রেকর্ড করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।
জবানবন্দিতে ইব্রাহীম বলেন, আমি দারুল কুরআন জাবালে নুর মাদ্রাসার শিক্ষক। মাদ্রাসার ছাত্র রাকিব দুষ্ট প্রকৃতির ছিল। সে ইতোমধ্যে মাদ্রাসা থেকে দুবার পালিয়ে গেছে। সে পড়ালেখায় অমনোযোগী ও দুষ্টুমি করত। এর জের হিসাবে ১১ সেপ্টেম্বর তাকে হাত-পা বেঁধে মারধর করি। তাকে মারার পর মাহফুজুর নামে আরেক ছাত্র রাকিবকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করে। তখন তাকেও হাত-পা বেঁধে মারধর করি। ১২ সেপ্টেম্বর রাকিবের ফুফু তাকে মাদ্রাসা থেকে নিয়ে যায়। ১৪ সেপ্টেম্বর তাদের মারধরের বিষয়টি এলাকার লোকজন জেনে যায়। তখন তারা এসে আমাকে গণধোলাই দেয়। এরপর আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১৫ সেপ্টেম্বর হাসপাতল থেকে পুলিশ আমাকে গ্রেফতার করে। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার বিষয় নিশ্চিত করেছেন ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আনোয়ারুল কবীর বাবুল।
উল্লেখ্য, ১১ সেপ্টেম্বর তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আশুলিয়ার শ্রীপুরের মধুপুর জাবালে নুর মাদ্রাসার ছাত্র রাকিব হোসেন (১০) এবং মাহফুজুর ফুয়াদ (১০) নামের দুই ছাত্রকে অন্য শিক্ষার্থীদের সামনে বেত দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে মাদ্রাসার শিক্ষক ইব্রাহিম। মারধরের ঘটনায় ১৫ সেপ্টেম্বর আশুলিয়া থানায় রাকিবের বাবা ইমদাদুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। পরবর্তীতে এ ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। উক্ত ভাইরাল হওয়া সিসি ক্যামেরার ভিডিওতে দেখা যায়, মাদ্রাসার একটি কক্ষে অভিযুক্ত শিক্ষক ইব্রাহিম হাতে বেত নিয়ে শিশু শিক্ষার্থী রাকিব হোসেনকে নির্দয়ভাবে পেটাচ্ছে। এক পর্যায়ে শিশু রাকিব ওই শিক্ষকের পা ধরলেও তিনি ক্রমাগত পেটাতে থাকেন। একই সময় পাশেই মাহফুজুর নামের অন্য শিশু ছাত্রকে মারধরের পর দড়ি দিয়ে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখা যায়।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]