ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১ নভেম্বর ২০২০ ১৭ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ১ নভেম্বর ২০২০

এখন কেউ ভালো কাজের প্রশংসা করতে চায় না
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৪১ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 20

পরিচালনায় বিশ বছর পেরিয়ে...
এক শ্রেণির নির্মাতা ভালোবাসা নিয়ে কাজ করে। প্রয়োজনে নিজের সম্মানির টাকাও কাজের জন্য খরচ করে। আরেক ধরনের নির্মাতা শুরুতেই নিজের অর্থ আলাদা করে রেখে বাকি অর্থে কাজ চালিয়ে নেন। প্রথম ধরনের নির্মাতার বৈষয়িক উন্নতি না হলেও যশ হয়। দ্বিতীয় প্রকার নির্মাতার তেমন হয়তো যশ হয় না কিন্তু আর্থিক সচ্ছলতা নিশ্চিত হয়। আমি প্রথম ঘরানার নির্মাতা। এত বছরে নামটা অর্জন করতে পেরেছি। এটাই আমার প্রাপ্তি। আরেক প্রকার নির্মাতা আছেন যারা সৌভাগ্যবান। সাফল্য ও অর্থ দুটোই তারা পেয়ে যান।
এই পথচলায় কোনো পরিবর্তন উপলব্ধি করছেন?
আমি কয়েকটি প্রজন্ম দেখেছি। আমরা রিহার্সেল করে শুটিং করতাম। খÐ নাটক করতাম তিন দিনে। আর টেলিফিল্মের জন্য ছয় দিন শুটিং হতো। বাজেটও ভালো ছিল। নাটকের মান দেখার জন্য কমিটি ছিল। কমিটির অনুমতি পেলে তা প্রচার হতো। এখন বাজেট অনেক কম। দুই দিনে খÐ নাটক শেষ করা হচ্ছে। শুনছি কেউ কেউ এক দিনেই ৫২ মিনিটের নাটক বানাচ্ছে। নাটকের মান দেখছেন মার্কেটিংয়ের মানুষজন। আগেকার তরুণ শিল্পীদের মধ্যে বড়দের সম্মান দেখানোর প্রবণতা ছিল। তারা বড় কেউ মেকআপ রুমে ঢুকলে উঠে দাঁড়াতেন, বসার জায়গা দিতেন। এখন তো কেউ কেউ বলে দেয় ১০টার আগে সে আসতে পারবে না। অথচ আগে পরিচালকের দেওয়া কল টাইম শিল্পীরা মেনে চলতেন। এখন কোনো কোনো শিল্পীকে ফোন কল দিলে পাওয়া যায় না, কল ব্যাকও করেন না। স্ক্রিপ্ট না পড়েই সহশিল্পী কে জানতে চান অনেকে। এমন অনেক পার্থক্য চোখে পড়ে। এখন  কেউ ভালো কাজের প্রশংসা করতে চায় না। করলেও প্রকাশ্যে করতে চায় না।
ইদানীং ওয়েব প্ল্যাটফর্ম নিয়ে চর্চা হচ্ছে। আপনি বিষয়টি কীভাবে দেখছেন?
আমি ওয়েব প্ল্যাটফর্মে কাজ করতে আগ্রহী। তবে বিতর্কিত কাজ করতে চাই না। ওয়েব কনটেন্টে প্রেম, ভালোবাসা সব থাকবে তবে শালীনভাবে। আমরা বাঙালি। আমাদের ঐতিহ্য আছে। আমাদের সংস্কৃতি সমৃদ্ধ। সব কিছুকে সম্মান জানিয়ে কাজ করতে হবে। যাতে করে অন্য দেশের কাছে আমাদের সম্বন্ধে ভুল বার্তা না পৌঁছায়।
করোনাকালে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?
আমি উত্তরার কোনো শুটিং বাড়িতে কাজ করিনি। আমার বন্ধুর বাড়িতে কাজ করেছি। ইউনিটের লোকসংখ্যা কমিয়ে অর্ধেকে নিয়ে এসেছি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেছি। সবসময় মাস্ক ব্যবহার করেছি। বাইরের খাবার খাইনি। ঘরে বানানো সাধারণ খাবার খেয়েছি সবাই মিলে। খাবার সময়েও দূরত্ব বজায় রেখেছি। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কাজ করেছি।
আপনার সিনেমা কখন মুক্তি পাচ্ছে?
আমি প্রস্তুতি নেওয়ার পর ‘বিশ^ সুন্দরী’ সিনেমা বানিয়েছি। অনেক বই পড়েছি, সিনেমা দেখেছি, চর্চা করেছি। সংশ্লিষ্টদের প্রশংসা পেয়েছি। এখন দর্শকের মতামতের জন্য অপেক্ষা করছি।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]