ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০ ৮ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০

টেস্টে লম্বা ইনিংস খেলতে চান শান্ত
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৫৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 19

তিন বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারের এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচ খেলেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। নেই কোনো বড় ইনিংস। দুয়েকবার ভালো শুরু পেয়েও সর্বোচ্চ ৭০ এর ঘরে এসেই থেমেছেন। এমন দৈন্যদশা থেকে বেরিয়ে আসতে মরিয়া বাংলাদেশ দলের প্রতিভাবান এই তরুণ ব্যাটসম্যান; ব্যাট হাতে টেস্টে খেলতে চান লম্বা ইনিংস।
লাল বলের ক্রিকেটে শান্তর অভিষেক ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে; ক্রাইস্টচার্চে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে করতে পারেন মাত্র ১৮ রান, দ্বিতীয় ইনিংসে ১২। এতে দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে তাকে অপেক্ষা করতে হয় দেড় বছরেরও বেশি সময়। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ঘরের মাঠ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টে শান্ত করেন ১৮ রান (দুই ইনিংস মিলিয়ে)।
চলতি বছরের ফেব্রæয়ারিতে পাকিস্তান সফরে অবশ্য দাঁড়িয়েছিলেন এই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান। রাওয়ালপিন্ডিতে শাহিন শাহ আফ্রিদি, মাহমুদ আব্বাস, নাসিম শাহদের মতো বোলারদের বিপক্ষে খেলেন ৪৪ ও ৩৮ রানের ইনিংস। ওই মাসেই সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুরে তার ব্যাট স্মিত হাস্যে হেসেছিল, এসেছিল ৭১ রান। কিন্তু তাতে কিছুতেই তুষ্ট হতে পারছেন না ২২ বছর বয়সি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ব্যাট হাতে ক্রমান্বয়ে নিজেকে ছাড়িয়ে যেতে চাইছেন।
বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করেন শান্ত। বলেন, নিজের সামর্থ্য প্রমাণে লম্বা ইনিংস খেলতে মরিয়া তিনি, ‘আমার মনে হয় শেষ দুই-তিনটা ইনিংস ভালো ব্যাটিং হয়েছে। আমি সবচেয়ে যে জিনিসটা চাই তা হলো ইনিংসগুলো যেন লম্বা হয়। আর নিয়মিত পারফরম্যান্স যেন করতে পারি। আমার ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হলো সেট হওয়া ইনিংসগুলো যেন বড় করতে পারি।’
করোনা মহামারিতে লকডাউনের সময়টা সতীর্থদের মতো ঘরে বসেই কেটেছে শান্তর। লকডাউন শিথিল হলে নিজ জেলা শহীদ কামারুজ্জামান স্টেডিয়ামে করেছেন ফিটনেস অনুশীলন। এরপর ঢাকায় এসে সতীর্থদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। পুরো লকডাউনকালে ঘরে বসে একমাত্র ফিটনেস অনুশীলন ছাড়া কিছুই করতে পারেননি। সেই বিবেচনায় স্কিল গত দিক থেকে তার কিছুটা পিছিয়ে যাওয়ারই কথা। তা হয়তো গিয়েছিলেন। কিন্তু পাশাপাশি উপকৃতও হয়েছেন বলে জানালেন এই তরুণ ব্যাটসম্যান।
শান্ত বলেন, ‘লকডাউনে ইতিবাচক দিক বলতে অতীতে যে ভুলগুলো ছিল বা অতীতে যেসব আমি ভালো করেছি ওসব নিয়ে চিন্তা করার খুব ভালো একটা সুযোগ ছিল। যেগুলো নিয়ে আমি কাজ করেছি। আমি মনে করি, সামনে যদি সুযোগ পাই তাহলে এই অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগবে। লকডাউনে ভালো বা খারাপ খেলা যেটাই বলি নিজের খেলাগুলো নিয়ে বিশ্লেষণ করতে পেরেছি। যেটা আমার জন্য অনেক উপকার হয়েছে এবং সামনে সুযোগ পেলে ভালো কিছু হবে মনে করি।’
শ্রীলঙ্কা সিরিজ সামনে রেখে স্কিল ট্রেনিংয়ের জন্য বিসিবি ঘোষিত ২৭ সদস্যের বাংলাদেশ দলে ঠাঁই করে নিয়েছেন শান্ত। দলের সঙ্গে নিয়মিত অনুশীলনও করে যাচ্ছেন। এতে করে স্বস্তি ফিরেছে তার ক্রিকেটীয় চিত্তে। আবার অস্বস্তিও আছে। আর সেটা হলো ঘন ঘন করোনা পরীক্ষা। ইতোমধ্যেই তিনবার পরীক্ষা দিয়েছেন। দুদিন পরপর নাক ও গলা থেকে নমুনা সংগ্রহ তাকে রীতিমতো অতিষ্ঠ করে তুলেছে, ‘এটা অবশ্য অনেক কঠিন, টেস্টের কথা বলব যে করোনা টেস্ট দুদিন পর পর এই জিনিসটা একটু অস্বস্তিকর লাগে।’






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]