ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০ ৮ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০

জার্মান সুপার কাপ বায়ার্নের
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৩৩ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 14

মৌসুমের শুরুতে দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের স্বাদ পেল বায়ার্ন মিউনিখ। গত বৃহস্পতিবার সেভিয়াকে হারিয়ে উয়েফা সুপার কাপ জেতা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নরা এবার ঘরে তুলল জার্মান সুপার কাপের ট্রফি। বুধবার রাতে শিরোপার লড়াইয়ে হ্যান্স ফ্লিকের শিষ্যদের কঠিন পরীক্ষাই নিয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। তবে ঘরের মাঠ আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় শেষ হাসিটা হেসেছে বায়ার্ন। গত মৌসুমে ইউরোপিয়ান ট্রেবল জেতা দলটি শিরোপা উল্লাস করেছে ৩-২ গোলের জয়ে।
ম্যাচের শেষটায় কঠিন পরীক্ষা দিতে হলেও বায়ার্নের শুরুটা ছিল দুর্দান্ত, ২-০ গোলে এগিয়ে যায় ৩২ মিনিটের মধ্যে। অষ্টাদশ মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন তোলিসো। প্রথম দফায় অবশ্য জার্মান জায়ান্টদের শট ডর্টমুন্ড গোলরক্ষক মারউইন হিটজের পায়ে লেগে ক্রসবারে প্রতিহত হয়। পরে ফিরতি বল টোকায় জালে জড়ান বায়ার্নের ফরাসি মিডফিল্ডার। ৩২ মিনিটে আলফোনসো ডেভিসের ক্রসে হেডে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন টমাস মুলার।
শুরুতে জোড়া গোল হজম করেও পাল্টা জবাবটা দারুণভাবে দেয় ডর্টমুন্ড। প্রথমার্ধেই অতিথিদের লড়াইয়ে ফেরান ইউলিয়ান ব্রান্ডট, ৩৯ মিনিটে শোধ দেন একটি গোল। আর্লিং হ্যালান্ডের পাস ধরে জোরালো উঁচু শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই জার্মান ফরোয়ার্ড। দ্বিতীয়ার্ধে লড়াই জমিয়ে তোলেন হ্যালান্ড। ৫৫ মিনিটে টমাস দেলেনির বাড়ানো বলে লক্ষ্যভেদ করে নরওয়ের এই ফরোয়ার্ড সমতায় ফেরান ডর্টমুন্ডকে।
খানিক বাদে এগিয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ আসে অতিথিদের সামনে। কিন্তু হ্যালান্ডের শট রুখে নেন বায়ার্ন গোলরক্ষক ম্যানুয়েল ন্যয়ার। পরে ৮২ মিনিটে স্বাগতিকদের জয়সূচক গোলটি করেন জসুয়া কিমিচ। মাঝমাঠে প্রতিপক্ষের পা থেকে বল কেড়ে লেভানদোস্কিকে বাড়িয়ে এগিয়ে যান তিনি। ফিরতি পাস ধরে শট নিতে গিয়ে পড়ে যান কিমিচ, ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক। পড়ে থাকা অবস্থাতেই পেছন থেকে বাঁ পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন জার্মান মিডফিল্ডার।
এক কথায়, শেষ মুহূর্তের অবিশ^াস্য গোলেই শিরোপা উল্লাসে মেতে ওঠে বায়ার্ন। তাতে তুষ্ট কিমিচ ম্যাচ শেষে প্রতিক্রিয়া জানালেন এভাবে, ‘শেষ পর্যন্ত আমরা ট্রফি পেয়েছি। এটা দারুণ লাগছে।’ বায়ার্নের জার্মান কোচ ফ্লিক বলেন, ‘আমরা ম্যাচ জিততে মরিয়া ছিলাম, তবে এটা এত সহজ ছিল না। আমরা ২-০ গোলে এগিয়ে গেলেও তারা (ডর্টমুন্ড) আমাদের কাজটা কঠিন করে তোলে। যাই হোক দিন শেষে শিরোপা জিততে পেরেছি।’
বায়ার্ন গোলমুখে দারুণ ছন্দে থাকা গোলরক্ষক ন্যয়ার মাতলেন কিমিচের প্রশংসায়, ‘শক্তিশালী দলের বিপক্ষে খেলা ছিল, তাই যেকোনো কিছু ঘটার সম্ভাবনা থাকে এবং এমনটাই আমরা দেখেছি আজ (বুধবার)। এটা আমাদের ভুল ছিল যে আমরা ডর্টমুন্ডকে ম্যাচে ফিরতে দিয়েছি। সব সময় ধরে নিতে পারবেন না যে আপনারা তিনটি গোল করতে যাচ্ছেন, তবে শেষটা জসুয়া কিমিচ ভালো করেছে।’





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]