ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০ ১৬ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০

রাসেলকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৫৮ পিএম আপডেট: ০১.১০.২০২০ ১১:১৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 21

গ্রিনলাইন পরিবহনের বাসের চাপায় পা হারানো প্রাইভেট কারচালক রাসেল সরকারকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশনা দিয়ে রায় ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। তিন মাসের মধ্যে এই টাকা দিতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে জারি করা রুলের চ‚ড়ান্ত শুনানি করে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণা করেন। এই রায় নিয়ে গ্রিনলাইন কর্তৃপক্ষ আর আপিল করবে না বলে আইনজীবীর মাধ্যমে জানিয়েছে। তাই সর্বসম্মত জাজমেন্ট দিয়েছেন আদালত। রায়ে আদালত বলেছেন, ‘তিন মাসের মধ্যে একসঙ্গে ২০ লাখ টাকা দিতে গ্রিনলাইনকে নির্দেশ দেওয়া হলো। ওই অর্থ দিয়ে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে নির্দেশ বাস্তবায়ন বিষয়ে সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে গ্রিনলাইন কর্তৃপক্ষকে। আর হাতে টাকা পাওয়ার এক সপ্তাহ পরে রাসেল সরকার ব্যাংকের হিসাব জমা দেবেন।’
আদালতে রাসেলের পক্ষে আইনজীবী খন্দকার সামসুল হক রেজা ও জহির উদ্দিন লিমন, গ্রিনলাইন পরিবহনের পক্ষে আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার শুনানি করেন।
রায়ের পর গ্রিনলাইনের আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, ‘আগে রাসেল সরকারকে ১৩ লাখ ৪২ হাজার টাকা দিয়েছি। আদালত আরও ২০ লাখ টাকা তিন মাসের মধ্যে পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা গ্রিনলাইন মালিকের সঙ্গে আলাপ করে এ ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হওয়ার পর আদালত আদেশ দিয়েছেন। এটা সর্বসম্মতিক্রমে একটি রায়। এ কারণে গ্রিনলাইনের পক্ষে আমরা রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করব না।’ তিনি আরও বলেন, ‘আদালত বললেন আপনারা একটা সম্মত অর্থের পরিমাণ বলেন। আমি আদালতকে বললাম আগে প্রায় ১৩ লাখ ২৮ হাজার টাকা দিয়েছি। এর বাইরে আমি ১৫ লাখ টাকার কথা বলেছিলাম। তখন আদালত বললেন ১৫ লাখ টাকা রাজি হলে বাড়িয়ে আরও পাঁচ লাখ টাকা দেবেন। তিন মাসের মধ্যে আদালত এ টাকা দিতে বলেছেন। মোটামুটি একটা সম্মত রায়। মানবিক কারণে আমরা সম্মত হয়েছি। যেহেতু সে পা হারিয়েছে। তাকে একটা ক্ষতিপূরণ দেওয়া দরকার।’
রিটকারী আইনজীবী খন্দকার শামসুল হক রেজা বলেন, ‘ইতঃপূর্বে তারা ১০ লাখ টাকা দিয়েছে। ৩ লাখ ৪২ হাজার টাকার চিকিৎসা দিয়েছে। আদালত সবদিক বিবেচনা করে তিন মাসের মধ্যে ২০ লাখ টাকা পরিশোধ করতে বলেছেন। গ্রিনলাইন পরিবহনের আইনজীবীর অ্যাডমিশনের ভিত্তিতে এটা হয়েছে।’
এদিকে রায়ের পর এক প্রতিক্রিয়ায় রাসেল সরকার সাংবাদিকদের বলেন, ‘যা হারিয়েছি তা কি আর শত কোটি টাকা দিলেও ফিরে আসবে? তবে আমি আদালতের রায় মেনে নিয়েছি। রায়ে আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞ ও সন্তুষ্ট।’ তিনি বলেন, ‘যা হওয়ার তা হয়েই গেছে, ক্ষতিপূরণ দিয়ে কী হবে? তবে, এই টাকা পেলে আমার ব্যাংকে ডিপোজিট করার ইচ্ছা আছে। সেখান থেকে যদি কিছু আয় হয় তাহলে সেটা দিয়ে চলব।’ এখন কীভাবে চলছেন, জানতে চাইলে রাসেল বলেন, ‘এখন তো আমার ব্যক্তিগত কোনো আয় নাই। সারা দিন ঘরেই বসে থাকি। তাই হাতে কোনো টাকা-পয়সাও নেই। স্ত্রী ছেলেমেয়ে পড়ায় এবং দরজির কাজ করে। স্ত্রীর আয়-রোজগারে চলছি।’






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]