ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০ ১২ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০

করোনায় মৃত্যু বাড়ছে
গ্লোব বায়োটেকের ভ্যাকসিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকায়
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: রোববার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৩৯ পিএম আপডেট: ১৮.১০.২০২০ ১২:২৪ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 44

তিন দিন পর দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা আবার বেড়েছে। শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আরও ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্র ও বৃহস্পতিবার মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৫ জন করে, তার আগের দিন এ সংখ্যা ছিল ১৬ জন। মঙ্গলবার মৃতের সংখ্যা ছিল ২২। বাংলাদেশে প্রথম কোভিড-১৯ রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ৩০ জুন ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনে সর্বাধিক মৃত্যু। এখন পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা  বেড়ে ৫ হাজার ৬৪৬ জন হয়েছে।
শনিবার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ২০৯ জন। তাদের নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ২৯৫ জন। বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৫৬০ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৩ লাখ ২ হাজার ২৯৮ জন হয়েছে।
২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১০টি ল্যাবে ১১ হাজার ৫৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২০ লাখ ৬১ হাজার ৫২৮টি নমুনা। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৪৫ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ০৫ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।
যারা মারা গেছে তাদের মধ্যে পুরুষ ১৮ জন, নারী ৫ জন। তাদের প্রত্যেকেই বাড়িতে মারা গেছে। মৃতের মধ্যে ১৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ৪ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে এবং ২ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে এবং ১ জনের বয়স ১০ বছরের কম ছিল। মৃতের মধ্যে ১৪ জন ঢাকা বিভাগের এবং ৪ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১ জন খুলনা বিভাগের এবং ২ জন বরিশাল বিভাগের ও দুজন রংপুর বিভাগের বাসিন্দা ছিল।
দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৫ হাজার ৬৪৬ জনের মধ্যে ৪ হাজার ৩৪৫ জন পুরুষ এবং ১ হাজার ৩০১ জন নারী। তাদের মধ্যে ২ হাজার ৯৬১ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। এ ছাড়াও ১ হাজার ৫০৫ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৭০৮ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৩১৭ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১২৭ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ৪৫ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ২৮ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।
মোট মৃতের মধ্যে ২ হাজার ৮৮৯ জন ঢাকা বিভাগের, ১১১৩ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৩৬০ জন রাজশাহী বিভাগের, ৪৫৫ জন খুলনা বিভাগের, ১৯৫ জন বরিশাল বিভাগের, ২৩৯ জন সিলেট বিভাগের, ২৫৭ জন রংপুর বিভাগের এবং ১১৮ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।
এদিকে বাংলাদেশের গ্লোব বায়োটেকের করোনা ভ্যাকসিন ব্যানকোভিডকে তালিকাভুক্ত করেছে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটি তাদের ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করেছে। এতে দেখা গেছে, গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস গ্রুপ অব কোম্পানিজ লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের ৩টি ভ্যাকসিন প্রি-ক্লিনিক্যাল টেস্টের জন্য তালিকাভুক্ত করেছে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা। গ্লোব বায়োটেকও সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা ১৫ অক্টোবর গ্লোব বায়োটেকের আবিষ্কৃত তিনটি ভ্যাকসিনকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে। ভ্যাকসিনগুলো হচ্ছেÑ উ৬১৪এ াধৎরধহঃ সঋঘঅ ঠধপপরহব, উঘঅ চষধংসরফ ঠধপপরহব, অফড়হড়পরৎঁং ঞুঢ়ড়-৫ ঠপপঃড়ৎ ঈধপপরহব.
গ্লোব বায়োটেকের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের প্রধান ডা. আসিফ মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, ডিসেম্বরে বাংলাদেশের বাজারে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে আসার ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেন। তার এই আশাবাদ প্রকাশের এক মাস পর বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা প্রি-ক্লিনিক্যাল টেস্টের তালিকাভুক্ত করল। প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তালিকায় ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজের ভ্যাকসিনসহ ১৫৬টি কোম্পানি রয়েছে।  করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ^জুড়ে গবেষকরা একটি ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যে ছুটছেন। এর মধ্যে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা ১৪০টির বেশি ভ্যাকসিনের ওপর নজর রেখেছে। ভ্যাকসিন তৈরি ও পরীক্ষা করতে সাধারণত বেশ কয়েক বছর সময় লাগে। বেশ কয়েকটি ধাপ পেরিয়ে তবেই ভ্যাকসিন ব্যবহারের উপযোগী হয়। তবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে গবেষকরা ১২ থেকে ১৮ মাসের মধ্যেই তা সম্পন্ন করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]