ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ ৫ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০

লালন শাহের তিরোধান দিবস
মাজারে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা গেটে ফকিরদের কান্না
প্রকাশ: রোববার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 13

ষ নিজস্ব প্রতিবেদক
ফকির লালন শাহের তিরোধান দিবস ছিল শনিবার। ১৩০ বছর ধরে তিরোধানের দিন বাউলরা এসে সাধুসঙ্গ করেন মাজার প্রাঙ্গণে। সাধুসঙ্গ উপলক্ষে বাউল ফকিরদের খাবারের এবং তিন দিনের লালন সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে লালন একাডেমি। কিন্তু বৈশি^ক করোনার কারণে এবার লালন একাডেমির নেই কোনো আয়োজন। এমনকি মাজারের প্রধান ফটকও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যেন আখড়া বাড়িতে কেউ প্রবেশ করতে না পারে।
পাশাপাশি লালন মাজার এলাকায় এক অঘোষিত কার্ফিউ জারি করেছে প্রশাসন। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মাজার প্রাঙ্গণের বিশাল প্রান্তর। মরা কালিনদীর পাশেও বসতে দেওয়া হচ্ছে না ফকিরদের। এতে ক্ষুব্ধ ফকিররা। সারা দেশ থেকে সাধুসঙ্গ করতে ছুটে আসা বাউল ফকিররা কান্নায় ভেঙে পড়েছেন। বাউলরা বলছেন, জেলা প্রশাসন বা লালন একাডেমি বাউলদের সাধুসঙ্গ উপলক্ষে খাবার দেবে না সেটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। কিন্তু ফকির মতালম্বীরা মনে করেন বাউল মত একটি ধর্মতত্ত্ব। আর এই তত্ত্বে বিশ^াসীরা প্রতিবছর ছুটে আসেন সাঁইজির মাজারে। একসময় লালন মাজারের খাদেমের দায়িত্বে ছিলেন ফকির আব্দুস সালাম। তবে তিনি এখন আর খাদেমের দায়িত্বে নেই। কিন্তু বাউল ফকির হিসেবে তার বেশ পরিচিতি রয়েছে। তিনি বলেন, লালন মাজার কোনো সরকারি সম্পত্তি নয় এটি বাউল সম্প্রদায়ের ধর্মসাধনার তীর্থস্থান। করোনাভাইরাসের অজুহাতে দীর্ঘদিন ধরে মাজার বন্ধ রাখা হয়েছে। আবার গেটেও তালা মেরে দিয়েছে। সাধুসঙ্গ করতে না দেওয়াটা প্রতিক্রিয়াশীল সিদ্ধান্ত বলে তিনি মনে করেন। প্রখ্যাত বাউল সাধক নজরুল ফকির বলেন, লালন একাডেমির অনুষ্ঠানের সঙ্গে বাউলদের সাধুসঙ্গের কোনো সম্পর্ক নেই।
লালন একাডেমি অনুষ্ঠান করবে না এটা তাদের ব্যাপার। কিন্তু বাউলদের পথ রুদ্ধ করা লালন একাডেমির মোটেও উচিত হয়নি। তিরোধান দিবস উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাউলরা ইতোমধ্যে এসে জমা হয়েছেন সাঁইজির মাজারে। মাজারের গেট বন্ধ থাকায় তারা মাজারের সামনে অবস্থান করছেন শুক্রবার দুপুর থেকে। এ বিষয়ে লালন একাডেমির সদস্য সচিব কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. সাইফুর রহমার বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে এবার অনুষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে বাউলদের জন্য মূল গেট কিছু সময় খুলে দেওয়া হতে পারে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]