ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০

সাকিবের সময় লাগবে : ডমিঙ্গো
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৩৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 13

সাকিব আল হাসানকে দেওয়া আইসিসির প্রদেয় নিষেধাজ্ঞা একেবারেই শেষের দিকে। আগামী ২৯ অক্টোবর থেকে ‘মুক্ত’ হবেন দেশসেরা অলরাউন্ডার, খেলতে পারবেন সব ধরনের ক্রিকেটে। জাতীয় ক্রিকেট দলও মুখিয়ে তাকে শিবিরে ফিরে পেতে এবং প্রত্যেকের প্রত্যাশাটাও অনেক। এর ব্যতিক্রম নয় রাসেল ডমিঙ্গোর ক্ষেত্রে। তবে এখনই আকাশ-কুসুম ভাবছেন না টাইগারদের প্রধান কোচ। বাস্তবতার আলোকে তিনি বললেন, চিরচেনা ছন্দে মাঠে ফিরতে সাকিবের সময় লাগবে।
বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো জানান, বিশে^র সেরা অলরাউন্ডার সাকিবের জন্যও লম্বা বিরতি শেষে ফেরার পর কাজটা খুব কঠিন, ‘কালকেই (বুধবার) তার সঙ্গে কথা হয়েছে আমার। ফিটনেস নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করছে সে। আপাতত দেশের বাইরে আছে। অন্য সবার মতো সাকিবেরও ফেরার পর মানিয়ে নিতে সময় লাগবে কিছুটা। যদি আশা করে থাকেন ফেরার পর সরাসরিই বিশাল কোনো মিরাকল সে করে ফেলবে... তাকে নিয়ে ধৈর্য ধরতে হবে।’
ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ যোগ করেন, ‘এক বছর ধরে কোনো ধরনের ক্রিকেট খেলেনি সে, মাঠে ফিরতে মুখিয়ে আছে। সে বিশে^র সেরা অলরাউন্ডার, কিন্তু তারপর একটা পথ ধরে এগোতে হবে। অনুশীলনে থ্রো ডাউন এবং বোলিং মেশিনে খেলা আর ম্যাচে ১৪০ কিলোমিটার গতির বোলারকে খেলার মধ্যে অনেক পার্থক্য। আত্মবিশ^াস ফিরে পেতে তার কিছু সময় লাগবে। আমরা জানি, সে কোয়ালিটি ক্রিকেটার। আশা করি বাংলাদেশের হয়ে আগামী মৌসুম দুর্দান্ত কাটবে তার।’
প্রেসিডেন্টস কাপে শিষ্যদের পারফরম্যান্স নিয়েও কথা বলেছেন ডমিঙ্গো। চলমান ৫০ ওভারের ঘরোয়া টুর্নামেন্টে টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা চোখে পড়ার মতো হলেও তা নিয়ে চিন্তিত নন দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ। করোনার কারণে অপ্রত্যাশিত বিরতির পর শিষ্যরা মাঠে ফেরাতেই তুষ্ট তিনি। পাশাপাশি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বোলিংবান্ধব উইকেটে দেশের পেসারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে দারুণ খুশি তিনি।
টপঅর্ডার প্রসঙ্গে ডমিঙ্গোর ভাষ্য ছিল এমন, ‘আমি খুব খুশি। আমি মনে করি এই টুর্নামেন্টটি দারুণ মনোযোগ দিয়ে খেলেছে সবাই। আপনি দেখেছেন মাঠে ছেলেরা কতটা চেষ্টা করেছে, বোলাররা নিংড়ে দিয়ে বোলিং করেছে। অবশ্যই, আমরা আরও কিছু রান পেলে দারুণ হতো। তবে আপনাকে এটাও বুঝতে হবে যে ছেলেরা প্রায় সাত মাস কোনো প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট খেলেনি। কয়েকজন ব্যাটসম্যান অনুশীলনে যোগ দিয়েছিল টুর্নামেন্ট শুরুর এক বা দুই সপ্তাহ আগে।’
৪৬ বছর বয়সি কোচ বলেন, ‘কোচ হিসেবে আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ছেলেরা কিছু ম্যাচ খেলছে। ম্যাচ খেলার চেয়ে বড় অনুশীলন আর নেই। তা ছাড়া প্রতিটা ম্যাচই প্রতিযোগিতামূলক হয়েছে। উইকেটগুলো সহজ ছিল না। সেই কারণে ব্যাটসম্যানদের সংগ্রাম করতে দেখেছেন। কিছু তরুণ ক্রিকেটার দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছে। মুশফিক, রিয়াদ, তামিমের মতো কিছু সিনিয়র ক্রিকেটার রান পেয়েছে। মূল বিষয়টা হলো ছেলেরা কিছু প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট ম্যাচ পেয়েছে।’
এদিকে প্রেসিডেন্টস কাপে শিষ্যরা স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সান্নিধ্য না পাওয়ায় আফসোস করলেন ডমিঙ্গো। বর্তমানে আন্তর্জাতিক সূচি না থাকায় বোলিং কোচ ওটিস গিবসন, ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক লম্বা সময় ধরে ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদা করে সময় কাটাতে পেরেছেন যার যার সমস্যা, ঘাটতি নিয়ে। কিন্তু কোচিং স্টাফের সবচেয়ে বড় তারকা ও সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক যার, সেই ভেট্টোরিকেই এই সময়টায় পাওয়া যায়নি।
করোনাভাইরাসের প্রকোপের এই সময়ে বাংলাদেশে এসে কোয়ারেন্টাইন মানতে হবে ভেট্টোরিকে। এরপর আবার নিউজিল্যান্ডে ফিরে গিয়ে হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে দুই সপ্তাহ। মূলত তার দেশে ফেরার পরের নিয়মের কারণেই ভেট্টোরি বাংলাদেশে আসতে চাননি এই সময়ে। এ প্রসঙ্গে ডমিঙ্গো বলেন, ‘এটা অবশ্যই আদর্শ নয় যে ড্যান (ভেট্টোরি) আমাদের সঙ্গে যোগ দিতে পারেনি। এখনকার এই পরিস্থিতিতে নিউজিল্যান্ড থেকে আসা... (কঠিন)। গত দুই সপ্তাহে ওকে আমাদের সঙ্গে পেলে অবশ্যই দারুণ হতো।’






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]