ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০

ওয়ান টাইম কাপ ব্যবহারে দীর্ঘমেয়াদি স্বাস্থ্যঝুঁকি
অরিন্দম মাহমুদ, ধামইরহাট
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৫ পিএম আপডেট: ২৪.১০.২০২০ ৯:৪০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 272

করোনাকালীন সময়ে “ওয়ান টাইম” প্লাষ্টিক চায়ের কাপ ব্যাবহার ব্যাপক হারে বেড়ে গেছে। বিশেষ করে চা/কফির কাপ হিসাবে প্লাষ্টিক কাপের ব্যাবহার বিপদজনক হারে বেড়ে চলেছে। এতে করে জনসাধারনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি যেমন হুমকির মুখে পড়ছে ঠিক তেমনি ফেলে দেওয়া প্লাষ্টিক বর্জের কারণে পরিবেশও তার ভারসাম্য হাড়িয়ে ফেলছে। অসচেতনতা অযত্ন আর অব্যবস্থাপনায় আমাদের অগোচরে পরিবেশ প্রতিনিয়ত হুমকির মুখে পড়ছে।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার ধামইরহাট বাজার, ফতেপুর, হরিতকি ডাঙ্গা, মঙ্গলবাড়ি বাজারসহ গ্রামে গঞ্জের হাটবাজারে কয়েক হাজার চায়ের স্টল রয়েছে। এসব চা স্টল গুলোতে প্রতিদিন প্লাষ্টিকের চায়ের কাপ ব্যাবহার হলেও যেন দেখার কেউ নেই। শুধু তাই নয়, চা/কফি পানের পর অপচনশীল প্লাষ্টিক কাপ গুলো যত্রতত্র ফেলে দেবার কারণে পরিবেশ যেমন দুষিত হচ্ছে তেমনি শরীরে মরণ ব্যাধি ক্যান্সারসহ হার্ট, কিডনি ও লিভার অক্রান্ত হবার সম্ভাবনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। করোনাকালীন সময়ে প্লাষ্টিক কাপে কফি বা চা পান করা কতটুকু স্বাস্থ্য সম্মত তা এখনই ভেবে দেখা দরকার।

অন্যদিকে অসাস্থ্যকর প্লাষ্টিক কাপ ব্যাহার বন্ধ করে স্বাস্থ্য সম্মত মাটির তৈরি কাপ/মগ ব্যবহার বৃদ্ধিতে প্রনোদনার মাধ্যমে উৎসাহ প্রদান করলে দেশীয় শিল্প যেমন রক্ষা পাবে তেমনি চা/কফি পানে মরণ ব্যাধি ক্যান্সারসহ বিভিন্ন ধরনের রোগে অক্রান্ত হবার সম্ভাবনাসহ প্রকৃতিকে রক্ষা করাও সম্ভব হবে বলে মনে করছেন সুধী মহল।

চায়ের দোকানিরা জানান, কাঁচের কাপে করোনা হবার সম্ভাবনা বেশি তাই ক্রেতাদের চাপেই আমরা “ওয়ান টাইম” প্লাষ্টিক কাপে চা বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি। তাছড়া এটি খুবই সহজ লভ্য যেকোন দোকানে স্বল্প মূল্যে কিনতে পাওয়া যায়।

চা পানরত মুশফিকুর রহমান বলেন, কাঁচের গ্লাসে যদি করোনা ভাইরাসের জিবাণু লেগে থাকে, সেই ভয়েই ওয়ান টাইমে চা খাচ্ছি।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ছিব্বির অহমেদ বলেন, প্লাষ্টিক চায়ের কাপের ব্যাপারে সরকারী ভাবে আমাদের কাছে তেমন কোন নির্দেশনা নেই, নির্দেশনা পেলেই ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

“ওয়ান টাইম” চায়ের কাপের ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, এসব পণ্য তৈরিতে পলিমার নামক ক্ষতিকর কেমিক্যাল ব্যাবহার হওয়ায় প্লাষ্টিক কাপে গরম পানি বা চা পান করলে লিভার, হার্ট, কিডনিসহ ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হয়। তাছাড়া এটি পরিবেশের জন্যও হুমকি স্বরুপ। এ ক্ষেত্রে মাটির তৈরি কাপে চা বা কফি পান করা স্বাস্থ্যসম্মত ও পরিবেশ বান্ধব।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]