ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৯ নভেম্বর ২০২০ ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ২৯ নভেম্বর ২০২০

শিবগঞ্জে আওয়ামী লীগের  দুই গ্রুপে সংঘর্ষ ভাঙচুর
প্রকাশ: বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৫৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 12

ষ চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মাসিক সভা চলাকালে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ-ভাঙচুর, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মাসিক সভা চলছিল। এতে মনাকষা ইউপি চেয়ারম্যান মীর্জা শাহাদাত হোসেন খুররমের সঙ্গে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়ার কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান খুররম বাইরে আসলে মারধরের শিকার হন মনাকষা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম। এ সময় দুই গ্রুপের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। মাসিক সভাকক্ষের পাশের রুমের দরজা, চেয়ার-টেবিলসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করে তারা। এতে এমপির সমর্থকদের প্রায় ৮-১০টি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।
এদিকে খবর পেয়ে শিবগঞ্জ থানার ওসির নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। কিন্তু কয়েক দফায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উপজেলা পরিষদ ভবনকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপে পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিউলি বেগমের অফিস কক্ষের জানালা ভেঙে যায়। বেলা সাড়ে ৩টার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ইকবাল হোছাইন ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল ও পৌর মেয়র কারিবুল হক রাজিন পুলিশের প্রটোকলে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। মনাকষা ইউপি চেয়ারম্যান মীর্জা শাহাদাত হোসেন খুররম জানান, সভায় উপজেলার সব সরকারি বরাদ্দ সঠিকভাবে বাস্তবায়নের অনুরোধ জানিয়েছি মাত্র। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বি জানান, পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেছি। এর বেশি কিছু জানি না। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ পাঁচজন আহত হয়েছে।
পৌর মেয়র কারিবুল রাজিন বলেন, অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে আমাকে ও সংসদ সদস্যকে পথরোধ করে। এ সময় ছাত্রলীগের কর্মীদের দ্বারা মারধরের শিকার হই। সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল ইউএনও ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান। এ ছাড়া উপজেলা পরিষদ চত্বরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কথা জানান তিনি।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]