ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০

ঝালকাঠিতে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট পেতে ভোগান্তি
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৪০ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 58

ঝালকাঠি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে সঠিক সময়ে মেশিন রিডেবল (এমআর) পাসপোর্ট হাতে পাচ্ছে না সেবাপ্রত্যাশীরা। যদিও করোনার কারণে বিদেশে লোক যাতায়াত বন্ধ থাকায় তেমন চাপ নেই পাসপোর্ট অফিসে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঝালকাঠি আঞ্চলিক কার্যালয়ে শিগগির ই-পাসপোর্ট সেবা চালু হবে। তখন সহজে সেবা পাবেন জনসাধারণ।
জানা গেছে, ঝালকাঠিতে ২০১৩ সাল থেকে মেশিন রিডেবল (এমআর) পাসপোর্টসেবা কার্যক্রম শুরু হয়। এ জেলায় পাসপোর্টসেবা চালু হওয়ায় বিদেশ গমনে আশার আলো দেখতে পায় প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ। তবে তাদের বিপত্তি বাধে সঠিক নিয়মে ফরম পূরণ করতে না পারলে। একদিনের স্থানে ৩-৪ দিনও লাগে অনেকের। পাসপোর্ট ফরমে সঠিকভাবে তথ্য দিয়ে সত্যায়িত করে ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার ভাউচারসহ জমা দিলে একদিনেই কার্যক্রম শেষ হয়। ফরমে ভুল হলে আবার সঠিকভাবে ফরম পূরণ করে প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্রের সত্যায়িত করে ২ সেট অফিসে জমা দিতে হয়। এরপর ছবি তোলার কাজ শেষ হলে একটি সিøপ নিয়ে চলে যান পাসপোর্ট প্রত্যাশীরা। পুলিশ ভেরিফিকেশনপ্রাপ্তি সাপেক্ষে জরুরি পাসপোর্ট পেতে ৭ কার্যদিবস ও সাধারণ পাসপোর্ট পেতে ১৫ কার্যদিবসের নিয়ম রয়েছে। পুলিশ ভেরিফিকেশনের প্রতিবেদন ও ঢাকায় প্রিন্ট হওয়া নতুন পাসপোর্ট পেতে সময় ক্ষেপণ হয়।
নলছিটি উপজেলার নাঙ্গুলী গ্রামের জাকির খান তার ভাই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান খান নিয়ে যান পাসপোর্ট অফিসে। শাহজাহান খান জানান, পাসপোর্ট অফিস থেকে ফরম তুলে পূরণ করে ঝালকাঠি অফিসে দেখাই সঠিক আছে কি না। কর্তৃপক্ষ জানালো ভুল আছে। তখন আবার নতুন ফরম নিয়ে পূরণ করে দেখালে সেটা সঠিক হওয়ায় জমা দিয়েছি। ছবি তোলার জন্য অপেক্ষা করি।
রাজাপুর উপজেলার পাড়গোপালপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক কৃষ্ণ হাওলাদার জানান, সাধারণ পাসপোর্ট করতে আবেদন করে ১৫ দিনের স্থলে দেড় মাস পর পেয়েছি। তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রথমবারে আবেদন করলে সেখানে তারা কিছু খরচ চেয়েছিল, তা না দেওয়ায় জমা দেওয়া ফরমে ওভার রাইটিং করে ভুল করে। এরপর মাসখানেক পরে জানতে পারি জাতীয় পরিচয়পত্রের সঙ্গে পাসপোর্টের সঠিক মিল না থাকায় ভুল পাসপোর্টই আমার আটকে গেছে। পরে আবার নতুন করে জমা দিতে হয়েছে।
সেবা প্রত্যাশীদের অভিযোগ রয়েছে, ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার সিøপের সঙ্গে অতিরিক্ত দেড় হাজার টাকা দিলে আর কোনো ভুল থাকে না! দেড় হাজার টাকা না দিলে ফরমে অনেক ভুল ধরে এবং তা নিয়ে ৩-৪ দিন সময় ক্ষেপণ হয়।
তবে ঝালকাঠি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক ফাতেমা বেগম জানান, বর্তমানে পাসপোর্ট পেতে কোনো ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে না। নতুন আবেদন পেলে পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য পাঠানো হয়। পুলিশ প্রতিবেদন পেলে ঢাকায় পাঠানো হয় এবং পাসপোর্ট পেলে দ্রæত পৌঁছে দেওয়া হয়। আগামী মাসেই ই-পাসপোর্ট সেবা চালু হওয়ার কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে, সব কিছু সম্পন্ন হলে দ্রæত সেবা পাবেন এবং ভোগান্তি লাঘব হবে।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]