ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অ্যাম্বুলেন্স আছে চালক নেই
প্রকাশ: সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০, ১১:২৭ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 7

ষ নিজস্ব প্রতিবেদক দিনাজপুর
দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘদিন ধরে অ্যাম্বুলেন্স চালক না থাকায় দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন রোগীরা। জেলার কয়েকবারের শ্রেষ্ঠ এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকারি তিনটি অ্যাম্বুলেন্স থাকলেও চালক না থাকায় অনেক বেশি ভাড়া দিয়ে প্রাইভেট অ্যাম্বুলেন্স বা মাইক্রো ভাড়া করে রোগী পরিবহন করতে হচ্ছে সেবাপ্রার্থীদের। এতে করে একদিকে রোগীর স্বজনরা আর্থিক ক্ষতির শিকার হচ্ছেন অপরদিকে দুর্ভোগও পোহাতে হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সর্বশেষ অ্যা¤ু^লেন্স চালক প্রায় দেড় বছর আগে অনিয়মের দায়ে বদলি হয়ে অন্যত্র চলে যান। এরপর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার গাড়িচালক মিলন রায় ওই কর্মকর্তার গাড়ি না থাকায় কিছুদিন অ্যাম্বুলেন্স চালকের দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু উপজেলা নতুন গাড়ি বরাদ্দ হওয়ায় মিলন রায় তার মূল দায়িত্বে ফিরে আসেন। এতে চালক শূন্য হয়ে একটি নতুন ও দুটি পুরাতন অ্যাম্বুলেন্স পড়ে আছে। এদিকে ব্যবহার না হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্সগুলো যন্ত্রাংশ নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। তবে করোনাকালীন সময়ে নমুনা পৌঁছানোর কাজে অ্যাম্বুলেন্সের চালক হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার গাড়িচালক মিলন রায়।
সরেজমিন দেখা যায়, খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গুরুতর রোগীদের এখান থেকে স্থানান্তর করা হয় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। স্থানান্তরিত রোগীদের পরিবহনের জন্য স্বজনদের প্রাইভেট অ্যাম্বুলেন্স অথবা গাড়ি ভাড়া করতে হয়। সুযোগ বুঝে ওইসব গাড়ির চালকরা তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করেন।
উপজেলার পাকেরহাট গ্রামের মোকছেদুল ইসলাম নামে এক যুবক জানান, সপ্তাহখানেক আগে রাতে রোগী নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাই। রোগীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় সেখান থেকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু দিনাজপুর যাওয়ার জন্য সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের চালক না থাকায় বেশি টাকায় প্রাইভেট একটি মাইক্রো নিয়ে আমাকে যেতে হয়। এতে টাকা বেশি লাগলেও মাইক্রো ম্যানেজ করতে ভোগান্তি পোহাতে হয়।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মিজানুর রহমান বলেন, আমি যোগদানের পরেই অ্যাম্বুলেন্সের চালক নিয়োগের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। এ ছাড়াও একাধিকবার মৌখিকভাবে আমি তাদেরকে জানিয়েছি। দ্রুত সময়ে শূন্য পদে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অ্যাম্বুলেন্স চালক নিয়োগ হলে উপজেলায় স্বাস্থ্য সেবার মান আরও বৃদ্ধি পাবে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]