ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০

আয়কর ছাড়ে কী সুবিধা নেবেন
প্রকাশ: সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০, ১১:৩৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 12

ষ ব্যবসা-বাণিজ্য ডেস্ক
আয়কর প্রদানে নানা সুবিধা নিতে হলে বেশ কিছু পদ্ধতি জানতে হবে। এগুলো জানলে আয়করে ছাড় পাবেন। প্রথমেই আয়কর অফিসে করদাতা তার আয়কর রিটার্ন জমা দেবেন, সেখান থেকে একটি বই সংগ্রহ করতে পারেন। নাম আয়কর পরিপত্র। কোন খাতে কর ছাড় পাওয়া যায়, কীভাবে এ সুযোগ নেওয়া যায়, সে বিষয়ে বিস্তারিত লেখা আছে এতে।
বর্তমানে সঞ্চয়পত্র, জীবন বীমা, শেয়ারবাজার, কম্পিউটার, ল্যাপটপসহ কমপক্ষে ২৩টি খাতে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। আব্দুর রশিদের মতো অন্য করদাতারা চাইলে সরকারের দেওয়া কর ছাড়ের এসব সুবিধা নিতে পারেন। এতে করের চাপ থেকে কিছুটা স্বস্তি মিলবে। করদাতা নিজে ফরম পূরণ করে রিটার্নের সঙ্গে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট জমা দিয়ে এসব সুবিধা নিতে পারেন অথবা কর আইনজীবীর সহায়তা নিতে পারেন।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) থেকে পরিপত্র সংগ্রহ করা যায়। কেউ চাইলে টাকার বিনিময়ে কিনতে পারেন। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআর কার্যালয়ের সামনে অথবা আদালতপাড়ায় বিভিন্ন স্টলে খুঁজলে তা পাওয়া যাবে। প্রতিবছর বাজেটের পর আয়কর পরিপত্র প্রকাশ করে এনবিআর। সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে কর ছাড় বা রেয়াত সুবিধা পাওয়া যায়। তবে এ সুবিধা পেতে হলে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগকৃত অঙ্ক আয়কর রিটার্নে অবশ্যই দেখাতে হবে। কত টাকার বিনিয়োগ করলে কত হারে ছাড় পাওয়া যায়, পরিপত্রে তা উল্লেখ আছে।
বর্তমান আইনে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়াগ করলে সর্বোচ্চ ১৫ শতাংশ পর্যন্ত কর ছাড় পাওয়া যায়। সরকার নির্ধারিত খাতে বিনিয়োগ করলে কর ছাড় পাওয়া যায়। তবে এসব সুবিধা পেতে হলে প্রমাণ হিসেবে আয়কর রিটার্নে প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা দিতে হবে। এসব সুবিধা স্থায়ী নয়। প্রতিবছর বাজেটে কিছু পরিবর্তন আনা হয়। কিছু সুবিধা বাদ দেওয়া হয়। আবার কিছু নতুন যুক্ত করা হয়। কর ছাড়ে বিনিয়োগের উল্লেখযোগ্য খাতগুলো হলোÑ স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ার, ট্রেজারি বন্ড, সরকারি কর্মচারী কল্যাণ তহবিলে অনুদান, পেনশন স্কিম ইত্যাদি। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানে দান করলেও কর রেয়াত পাওয়া যায়। এর মধ্যে জাতির জনকের স্মৃতি রক্ষার্থে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান, জাকাত তহবিল, প্রতিবন্ধী কল্যাণে স্থাপিত প্রতিষ্ঠান, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, আগাখান ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্ক, আহছানিয়া ক্যানসার হাসপাতাল, সিআরপি এশিয়াটিক সোসাইটিতে প্রদত্ত দান উল্লেখযোগ্য।









সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]