ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ১০ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ২৪ জানুয়ারি ২০২১

তারুণ্যেই আস্থা
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ১০:৫২ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 24

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
বলা হয়ে থাকে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য তরুণরাই আদর্শ। ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিং আর বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ের এই ফরম্যাটে তারাই বেশি মানানসই! আন্তর্জাতিক কিংবা ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টÑ দলগুলোতে থাকে তারুণ্যের প্রাধান্য। আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের দলগুলোতে প্রাধান্যটা আরও বেশি করে চোখে পড়ছে। বিদেশিহীন টুর্নামেন্টে পাঁচটি দলই আস্থা রাখছে তরুণদের ওপর।
বেক্সিমকো ঢাকা, মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী, ফরচুন বরিশালের মতো দলগুলো তো বলতে গেলে তারুণ্যনির্ভর দল নিয়েই নামতে যাচ্ছে লড়াইয়ের ময়দানে। বাকি থাকা দুই দল জেমকন খুলনা আর গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম কিছুটা ব্যতিক্রম বটে, তবে তাদের শিবিরেও তারুণ্যের ছোঁয়া কম-বেশি আছে। মাহমুদুল হাসান জয়, মেহেদী হাসান, সঞ্জিত সাহা, রাকিবুল ইসলামের মতো তরুণরা বেশ গুরুত্ব পাচ্ছেন চট্টগ্রাম দলে। মাহমুদউল্লাহ-সাকিব-ইমরুলদের খুলনাকে আরও বেশি শক্তিধর দেখাচ্ছে দলটিতে শামীম হোসেন পাটোয়ারী, রিশাদ হোসেন, হাসান মাহমুদ, জাকির হোসেনের মতো তারুণরা আছেন বলেই।
কাগজে-কলমে টুর্নামেন্টের সব থেকে শক্তিধর খুলনার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই আজ নিজেদের অভিযান শুরু করবে বরিশাল। আফিফ হোসেন, সাইফ হাসান, সুমন খান, তৌহিদ হৃদয়, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, মেহেদী হাসান মিরাজের মতো তরুণরাই মূলত দলটির প্রাণ। অধিনায়ক তামিম ইকবাল, ইরফান শুক্কুর, আবু জায়েদ রাহী, সোহরাওয়ার্দী শুভরাই দলটিতে কিছুটা অভিজ্ঞতার ছোঁয়া দিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই তাই দলটির সাফল্য নির্ভর করছে তরুণদের পারফরম্যান্সের ওপর। অধিনায়ক তামিম বারবারই কথাটা বলেছেন, সোমবার বললেন আরও একবার।
আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচকে সামনে রেখে তরুণদের প্রতি শতভাগ আস্থার কথা জানিয়ে তামিম বলেছেন, ‘আমি নিশ্চিত, দলে যে (তরুণ) প্লেয়ারগুলো আছে, তারা সবাই সামর্থ্যবান। আমার বিশ^াস, তারা ভালো করবে। এটাই আশা করব যে, আমরা কালকের (মঙ্গলবার) ম্যাচটা ভালোভাবে শুরু করব। কারণ, এক থেকে এগারোÑ সবাই-ই ম্যাচ জেতাতে সক্ষম। একটাই ব্যাপার যে তারা তরুণ। আমি নিশ্চিত তারা ভালো করবে।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘সব থেকে বড় বিষয় হচ্ছেÑ প্লেয়ারদের ওপর বিশ^াস রাখা, যেটা আমার আছে। হয়তো বড় বড় নাম খুঁজে পাবেন না, কিন্তু তারা সবাই ম্যাচ জেতাতে সক্ষম।’
আসরের উদ্বোধন ম্যাচে মাঠে নামবে ঢাকা আর রাজশাহী। দুই দলে রীতিমতো তরুণদের ছড়াছড়ি। রাজশাহী তো ২২ বছর বয়সি তরুণ ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তর কাঁধে নেতৃত্বভারই তুলে দিয়েছে। আনিসুল ইসলাম ইমন, জাকের আলী, মুকিদুল ইসলাম, রেজাউর রহমানদের মতো তরুণদের নিয়ে আশাবাদী রাজশাহী দলপতি, ‘আমার দলে তরুণ ক্রিকেটার অনেক আছে। চারদিক চিন্তা করলে কম্বিনেশনটা ভালো। মনে হয় না কোনো সমস্যা হবে। সবাই রেগুলার পারফরমার।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘যেই দলই হবে, সেটা নিয়ে আমরা আত্মবিশ^াসী।’
মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বধীন বেক্সিমকো ঢাকা দলে আছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ^কাপজয়ী তিন যুবা। নাইম শেখ, ইয়াসির আলী, পিনাক ঘোষ, মেহেদী হাসান রানা আর নাঈম হাসানরাও এখনও তরুণ। রীতিমতো তারুণ্যের জয়গান দলটিতে। তাদের হয়ে ব্যাটিংয়ের গোড়াপত্তন করবেন দুই তরুণ নাইম আর তানজিদ হাসান তামিম। মিডলঅর্ডারে অধিনায়ক মুশফিকের সঙ্গে দায়িত্ব সামলাবেন আকবর আলী আর পিনাক। লোয়ার অর্ডারে ঝড় তোলার জন্য অভিজ্ঞ সাব্বির রহমানের সঙ্গে থাকবেন শাহাদাত হোসেন দিপু। স্পিনে নাঈম আর পেস বোলিংয়ে রুবেল হোসেনের সঙ্গে নেতৃত্ব দেবেন রানা।
মুশফিক আস্থা রাখছেন এই তরুণদের ওপর। বিশেষ করে বিশ^জয়ী চার যুবাÑ আকবর, তানজিদ আর শাহাদাতকে নিয়ে ঢাকা অধিনায়ক বেশ আশাবাদী, ‘তারা অনভিজ্ঞ বা তরুণ হতে পারে, কিন্তু তারা পরিপক্ব। আমি শেষ ১৫-১৬ বছর খেলেছি, একটা বিশ^কাপও জিততে পারিনি। আমাদের দলে এমন তিন-চারজন প্লেয়ার আছে যারা বিশ^কাপ জয়ী টিমের। বিশ^কাপ জেতার চেয়ে তো বড় চাপের কিছু হতে পারে না। আমি মনে করি ওই রকম মানসিকতার পরিপক্ব প্লেয়ার আছে। তারা যদি নিজেদের মেলে ধরতে পারে, আর আমরা সিনিয়র যারা আছি তাদের সাপোর্ট দিতে পারি, তা হলে ইনশাল্লাহ ভালো একটা টুর্নামেন্ট কাটবে।’
দলগুলো তারুণ্যে আস্থা রাখছে। এখন দেখার তরুণরা সেই আস্থার প্রতিদান দিতে পারেন কিনা। তবে সর্বাত্মক চেষ্টার প্রতিশ্রুতি তরুণরা দিয়ে রেখেছেন। আরও ভালোভাবে নির্বাচকদের নজরে আসার জন্য এই টুর্নামেন্টটা যে তাদের জন্য বড় সুযোগ।










সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]