ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২২ জানুয়ারি ২০২১ ৮ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ২২ জানুয়ারি ২০২১

শিরোপায় চোখ, মনোযোগ মাঠে
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ১০:৫২ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 20

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
‘আল্টিমেটলি লক্ষ্য তো হচ্ছে চ্যাম্পিয়নশিপ’Ñ কথাটা মুশফিকুর রহিমের। তার মতো বাকি চার অধিনায়কের লক্ষ্যটাও যে অভিন্ন, সেটা তারা কেউ মুখে না বললেও বুঝতে সমস্যা হওয়ার কথা নয় কারও। পাঁচ দলের টুর্নামেন্ট বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ, সব দলই লড়াইয়ের ময়দানে নামবে শিরোপায় চোখ রেখে, চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য। সে জন্য মাঠে নিজেদের সেরাটা ঢেলে দিতে হবে, এই সত্যটাও জানা সবার। চোখ শিরোপায় থাকলেও সবার মনোযোগ তাই এখন মাঠে।
করোনাকালে দেশের মাটিতে ক্রিকেট ফিরেছে প্রেসিডেন্টস কাপ দিয়ে। ‘ভাইয়ে ভাইয়ে খেলা’Ñ তিন দলের ওই আসরটির আবহ অনেকটা এমনই ছিল। লড়াইয়ের প্রকৃত ঝাঁজ তাই অনেকটাই অনুপস্থিত ছিল মাঠে, ক্রিকেটারদের মনোভাবেও। যে কারণে ৫০ ওভারের ম্যাচে ২০০ রান করতেও নিয়মিত খাবি খেতে দেখা গেছে দলগুলোকে। এবারের আবহটা ভিন্ন, অনেকটা বিপিএলের মতোই। পার্থক্য একটা জায়গাতেইÑ বিপিএলে বিদেশিরা থাকেন, বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপটা হচ্ছে কেবল স্থানীয়দের নিয়ে।
ঝক্কি-ঝামেলা এড়াতে এই করোনাকালে বিপিএল আয়োজনের পথে হাঁটেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তার বদলেই হচ্ছে এই বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি। আসরটিকে কেন্দ্র করে কদিন ধরেই ক্রিকেটীয় উৎসবের আমেজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। দীর্ঘদিন যেখানে ছিল সুনসান নীরবতা, সেখানটা এখন ক্রিকেটারদের কলতানে মুখর। কদিন ধরেই দলবেঁধে অনুশীলনে হাজির হচ্ছেন তারা, প্রস্তুত হচ্ছেন মাঠের লড়াইয়ে নিজেদের সেরাটা নিংড়ে দেওয়ার জন্য।
যে টুর্নামেন্টকে ঘিরে হোম অব ক্রিকেটের সরব হয়ে ওঠা, সেই বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি শুরু হচ্ছে আজ থেকে। পাঁচ দলের চারটিই মাঠে নামছে প্রথম দিনে। আজ দুপুর দেড়টায় উদ্বোধন ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকা খেলবে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর বিপক্ষে, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় ম্যাচে লড়বে ফরচুন বরিশাল আর জেমকন খুলনা। সোমবার একাডেমি মাঠে চারটি দলই মাঠের লড়াইয়ে নামার আগে শেষবারের মতো ঝালিয়ে নিচ্ছে নিজেদের।
সব দলই এখন মনোযোগী আসরের শুরুটা ভালোভাবে করার দিকে। মুশফিক যেমন বললেন, ‘শুরুটা যাতে ভালো করতে পারি, সেদিকেই মনোযোগ দিচ্ছি।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘মানসিকতায় পরিপক্ব (তরুণ) প্লেয়ার আমাদের আছে। তারা যদি নিজেদের মেলে ধরতে পারে, আর আমরা সিনিয়র যারা আছি, ওদের যদি সাপোর্ট দিতে পারি, তা হলে ইনশাল্লাহ ভালো একটা টুর্নামেন্ট কাটবে।’ নিজের দল নিয়ে আত্মবিশ^াস ঝরল রাজশাহী অধিনায়ক শান্তর কণ্ঠে, ‘চারদিক চিন্তা করলে আমাদের কম্বিনেশন ভালো। মনে হয় না সমস্যা হবে। আমরা রেগুলার পারফর্ম করছি, ওই জায়গাটাতেই ভালোভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি।’
টুর্নামেন্টের দুর্বল দলের একটি ভাবা হচ্ছে তামিমের নেতৃত্বাধীন বরিশালকে। দল নিয়ে তামিম নিজেও অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। এরপরও দলে যারা আছেন, অধিনায়ক হিসেবে তাদের ওপরই আস্থা রাখছেন দেশসেরা ওপেনার, ‘যে খেলোয়াড় আছেন, তারা সবাই সামর্থ্যবান। আমার বিশ^াস তারা ভালো করবে। আশা করি কালকের (আজ) ম্যাচটা আমরা ভালোভাবে শুরু করব। কারণ এক থেকে এগারোÑ সবাই ম্যাচ জেতাতে সক্ষম।’ বরিশাল অধিনায়ক সঙ্গে যোগ করলেন, ‘ভালো খেলতে পারলে কাগজে-কলমের শক্তিশালী কোনো ব্যাপার নয়।’
এই বাস্তবতা উপলব্ধি করতে পারছেন তামিমদের প্রতিপক্ষ খুলনার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও। কাগজে-কলমে টুর্নামেন্টের সব থেকে শক্তিধর ভাবা হচ্ছে তাদেরই। মাহমুদউল্লাহ এই শক্তির জানান দিতে চান মাঠের পারফরম্যান্সেও, ‘কাগজে-কলমে হয়তো আমাদের দলকে অনেক শক্তিশালী মনে হচ্ছে। তবে আমি সবসময়ই একটা কথা বিশ^াস করিÑ মাঠের পারফরম্যান্সটা সবসময়ই মুখ্য। দলে যত বড় নামই থাকুক, দিনশেষে আপনাকে সেটা মাঠে প্রমাণ করতে হবে। সেক্ষেত্রে বলব, মাঠে আমাদের প্রমাণের অনেক কিছুই আছে।’
মাহমুদউল্লাহ কথাগুলো বলেছেন সোমবার দলের অনুশীলন শুরুর আগে। অনুশীলন করেছে আজ মাঠে নামতে যাওয়া বাকি তিনটি দলও। অপর দল গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামও কিন্তু বিশ্রামে সময় কাটিয়ে দেয়নি। এদিন একাডেমি মাঠে অনুশীলন করেছে তারাও। যথাসম্ভব নিজেদের তৈরি রাখতে চাইছে মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের শিষ্যরা। কারণটাও বোধগম্যÑ শিরোপা জিততে চায় তারাও। মিঠুনের চট্টগ্রাম, সাকিব-মাহমুদউল্লাহ খুলনা, তামিমের বরিশাল, শান্তর রাজশাহী আর মুশফিকের ঢাকাÑ সব দলের চোখ যখন শিরোপায়, মনোযোগ মাঠে, বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আর জমজমাট হওয়ার কথা।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]