ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ২ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ১৬ জানুয়ারি ২০২১

ভর্তি পদ্ধতি নিয়ে আজ জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ১১:১৮ পিএম আপডেট: ২৪.১১.২০২০ ১১:৫৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 47

করোনা পরিস্থিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার মধ্যেও ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রতিবছর শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে এবং দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হলেও এ বছর তাতে পরিবর্তন আনা হচ্ছে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সমাগম এড়াতে এ বছর প্রথম থেকে অষ্টম পর্যন্ত সব শ্রেণিতেই লটারির মাধ্যমে ভর্তি করানো হবে। মহামারি করোনাভাইরাসে দেশের সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে কী পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে সে বিষয়ে আজ বুধবার জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।
দেশে বর্তমানে ৬৮৩টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে রাজধানীতে রয়েছে ৪২টি। আর বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৯ হাজার ৪২১টি। এর মধ্যে ১৬ হাজার ৭৭৫টি এমপিওভুক্ত এবং ২ হাজার ৬৪৬টি নন-এমপিও। বর্তমানে সারা দেশে প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হলেও দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি করা হয় পরীক্ষার মাধ্যমে। করোনার কারণে এবার ঢাকা মহানগরীর সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোয় ভর্তির জন্য দুটি বিকল্প প্রস্তাব করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। একটি হলো, প্রথম শ্রেণির মতো সব শ্রেণিতেই লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা। আরেকটি হলো, মোট ৯ দিনে সব কটি বিদ্যালয়ের পরীক্ষা নেওয়া। এত দিন ভর্তি পরীক্ষা তিন দিনে নেওয়া হতো। এভাবে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হলে এবার সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের পরিবর্তে এমসিকিউ প্রশ্নে পরীক্ষা হবে।
বর্তমানে সারা দেশের স্কুলগুলোয় প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হলেও দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয় পরীক্ষার মাধ্যমে। আর নবম শ্রেণিতে ভর্তি করা হয় জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে। কিন্তু করোনার কারণে এ বছর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা হচ্ছে না। ফলে নবম শ্রেণিতে এবার জেএসসি ও জেডিসির ফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ নেই।
ঢাকা মহানগরীর বেশিরভাগ সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক স্তরেও শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়। ফলে এসব বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য অভিভাবকদের আগ্রহ বেশি। বিদ্যালয়গুলোকে মোট তিনটি ভাগে ভাগ করে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়। এসব বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত মোট আসন আছে সাড়ে ১১ হাজারের মতো।
প্রতিবছর নভেম্বরে বিদ্যালয়গুলোর ভর্তির পদ্ধতি ঠিক করে ডিসেম্বরের শুরুতে আবেদন নেওয়া শুরু হয়। এরপর লটারি ও ভর্তি পরীক্ষা শেষে ডিসেম্বরের মধ্যেই ভর্তির কাজটি শেষ করা হয়। ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হয় নতুন শিক্ষাবর্ষ। কিন্তু এ বছর পুরো শিক্ষাপঞ্জি এলোমেলো হয়ে গেছে। করোনা সংক্রমণের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে। ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়িয়েছে সরকার।








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]