ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ১৪ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১

দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুনীরুজ্জামান আর নেই
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ১১:১৮ পিএম আপডেট: ২৫.১১.২০২০ ১২:০২ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 61

দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার মুনীরুজ্জামান আর নেই। মঙ্গলবার সকাল ৭টা ২০ মিনিটে মুগদা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। তিনি স্ত্রী ও এক ছেলে রেখে গেছেন। তার স্ত্রী ডা. রোকেয়া এবং একমাত্র ছেলেও খ্যাতিমান চিকিৎসক।
করোনায় আক্রান্ত হয়ে খন্দকার মুনীরুজ্জামান গত ৩১ অক্টোবর মুগদা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তিনি ১৯৪৮ সালের ১২ মার্চ ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে অধ্যয়নের সময় সাংবাদিকতায় যুক্ত হন। একই সময়ে তিনি প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। সাংবাদিক হিসেবে তিনি বিভিন্ন পত্রিকায় কাজ করেছেন। অংশ নিয়েছিলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে। দৈনিক সংবাদে তিনি সহকারী সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন। পরে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হন। তিনি দীর্ঘদিন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির ঢাকা জেলা কমিটির সম্পাদক ছিলেন। খন্দকার মুনীরুজ্জামান সাংবাদিকতা ছাড়াও কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ, চিত্র সমালোচনা এবং নিয়মিত কলাম লিখতেন। তিনি জাতীয় প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য ছিলেন।
বিশিষ্ট সাংবাদিক, কলামিস্ট ও দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুনীরুজ্জামানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। শোকবার্তায় তিনি বলেন, মুনীরুজ্জামান ছিলেন নিরপেক্ষ, বস্তুনিষ্ঠ ও নির্ভীক সাংবাদিকতার পথিকৃৎ। তার মৃত্যু গণমাধ্যমের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। রাষ্ট্রপতি মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
খন্দকার মুনীরুজ্জামানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
খন্দকার মুনীরুজ্জামানের মৃত্যুতে আরও শোক জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, দৈনিক সংবাদ সম্পাদক আলতামাশ কবির ও মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবির।
মঙ্গলবার বিকালে খন্দকার মুনীরুজ্জামানের লাশ জাতীয় প্রেসক্লাবে আনা হয়। জানাজা শেষে সাংবাদিক সংগঠনগুলো ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানান দলটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম। এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নঈম নিজাম, দৈনিক সংবাদের সম্পাদক আলতামাশ কবির, খন্দকার মুনীরুজ্জামানের বড়ভাই জাতীয় প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য খন্দকার রফিকুজ্জামান ও জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক শাহেদ চৌধুরী। এ ছাড়া জানাজায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ইকবাল সোবহান চৌধুরী ও মনজুরুল আহসান বুলবুল, সাবেক মহাসচিব আবদুল জলিল ভুইয়া ও ওমর ফারুক, জাতীয় প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আজিজুল ইসলাম ভুইয়া, কোষাধ্যক্ষ শ্যামল দত্ত, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু, সাবেক সভাপতি কাজী রফিক, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান ও রাজু আহমেদ।
পরে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক খন্দকার মুনীরুজ্জামানকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, তাকে ঢাকাতেই দাফন করা হয়েছে।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]