ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২২ জানুয়ারি ২০২১ ৮ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ২২ জানুয়ারি ২০২১

তিন দশকে খুলনা বিশ^বিদ্যালয়
প্রকাশ: বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ১১:৩০ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 20

ষ মল্লিক সুধাংশু খুলনা
খুলনাঞ্চলের উচ্চশিক্ষার অন্যতম বিদ্যাপীঠ খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের (খুবি) তিন দশক পুর্ণ হচ্ছে আজ। একই সঙ্গে দিনটি পালিত হচ্ছে খুলনা বিশ^বিদ্যালয় দিবস হিসেবেও। ২০০২ সালের ২৫ নভেম্বর উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ^বিদ্যালয় দিবস পালন করে খুবি। সেই থেকে প্রতিবছর এই দিনটি বিশ^বিদ্যালয় দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। এবারও বর্ণাঢ্য সাজে সাজানো হয়েছে খুবিকে। মহামারি করোনা প্রতিরোধের বিষয়টি মাথায় রেখে এবারের অনুষ্ঠান অনেকটাই কাটছাট করা হয়েছে। তবে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের আনন্দের কোনো কমতি থাকছে না। বিশ^বিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পর ১৯৮৭ সালের ৪ জানুয়ারি খুলনা বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত সরকারি সিদ্ধান্ত গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়। ১৯৮৯ সালের ৯ মার্চ খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তুর স্থাপন করা হয়। ১৯৯০ সালের জুলাই মাসে জাতীয় সংসদে ‘খুলনা বিশ^বিদ্যালয় আইন-১৯৯০’ পাস হয়। এটি গেজেট আকারে প্রকাশ হয় একই বছরের ৩১ জুলাই। এরপর ১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষে ৪টি ডিসিপ্লিনে ৮০ জন ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা হয়। ১৯৯১ সালের ৩০ আগস্ট প্রথম ওরিয়েন্টেশন এবং ৩১ আগস্ট ক্লাস শুরুর মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রমের সূচনা হয়। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালের ২৫ নভেম্বর শিক্ষা কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। ২০০২ সালের ২৫ নভেম্বর ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও আড়ম্বরপূর্ণ পরিবেশের মধ্য দিয়ে পালন করা হয় খুলনা বিশ^বিদ্যালয় দিবস। সেই থেকে প্রতিবছর ২৫ নভেম্বর খুলনা বিশ^বিদ্যালয় দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। একই সঙ্গে সেশনজট, সন্ত্রাস ও রাজনীতিমুক্ত খুলনাঞ্চলের বৃহত্তম এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলনা বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রমের ৩০ বছর পূর্ণ করল। জানা যায়, প্রতিষ্ঠাকালে দেশের পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়ের মধ্যে খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল নবম। এটি ছিল একটি সাধারণ বিশ^বিদ্যালয়। তবে সময়ের চাহিদা অনুযায়ী এখানে বিজ্ঞান, প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা, চারুকলাসহ অন্যান্য বিষয়ের প্রতিও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে বুয়েটের পরই ১৯৯৭-৯৮ শিক্ষাবর্ষ থেকে খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ে কোর্স ক্রেডিট পদ্ধতি চালু হয়। খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ে ৮টি স্কুল (অনুষদ) রয়েছে। এখানে মোট ২৯টি ডিসিপ্লিনে (বিভাগ) শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এ বিশ^বিদ্যালয় থেকে নিয়মিত ব্যাচেলর ডিগ্রি, ব্যাচেলর অব অনার্স ডিগ্রি, মাস্টার্স ডিগ্রি, এম ফিল এবং পিএইচডি প্রদান করা হয়।
খুবিতে বর্তমানে শিক্ষক সংখ্যা প্রায় পাঁচশ। ছাত্রছাত্রী রয়েছে প্রায় সাত হাজার। কর্মকর্তা রয়েছেন তিন শতাধিক এবং কর্মচারী রয়েছে প্রায় তিনশ। শিক্ষা কার্যক্রমের গত ৩০ বছরে ২৬টি ব্যাচে থেকে উত্তীর্ণ গ্র্যাজুয়েট সংখ্যা ১৩ সহস্রাধিক। খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে এক তৃতীয়াংশই পিএইচডি ডিগ্রিধারী। খুলনা বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে রয়েছে ৩টি একাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, ভাইস চ্যান্সেলরের বাসভবন, পাঁচটি আবাসিক হল, মেডিকেল সেন্টার, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য ৫টি বাসভবন, অগ্রণী ব্যাংক ভবন, ডাকঘর, খুলনা বিশ^বিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও বিশ^বিদ্যালয় মন্দির। ছাত্রছাত্রী এবং শিক্ষকদের জ্ঞান সহায়তায় রয়েছে সমৃদ্ধ কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ভবন। এ ছাড়া চলতি প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ঊর্ধ্বমুখী (পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলা) সম্প্রসারণ, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের পাশর্^মুখী (প্রথম-ষষ্ঠ তলা) ও ঊর্ধ্বমুখী (পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলা) সম্প্রসারণ, মাইকেল মধুসূদন দত্ত গেস্ট হাউসের পাশর্^ এবং উর্ধ্বমুখী, আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগার ভবনে ঊর্ধ্ব ও পাশর্^মুখী সম্প্রসারণের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে সাত তলা আইইআর ভবন ও মেডিকেল সেন্টারের নির্মাণ শুরু হয়েছে। বিশ^বিদ্যালয়ের টিএসসি, জিমনেসিয়াম এবং সুউচ্চ এবং সর্ববৃহৎ আয়তনের ১০ তলা জয়বাংলা একাডেমিক ভবন, ১১ তলাবিশিষ্ট আবাসিক ভবনের নির্মাণকাজ শিগগিরই শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
স্থানীয় সম্পদ আহরণ, জাতীয় অর্থনীতিকে শক্তিশালী করা, প্রশিক্ষিত জনসম্পদ সৃষ্টি এবং সম্ভাবনার নতুন নতুন দিগন্ত উন্মোচনের লক্ষ্যে খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ে গবেষণার কাজ এগিয়ে চলেছে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]