ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ১০ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ২৪ জানুয়ারি ২০২১

টিকা উৎপাদন পরিস্থিতি দেখতে পুনে যাচ্ছেন মোদী
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ৯:৪৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 108

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উৎপাদন এবং প্রস্তাবিত বিতরণ পরিকল্পনার অগ্রগতি দেখতে শনিবার পুনে-ভিত্তিক সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (এসআইআই) পরিদর্শনে যাবেন।

ব্রিটিশ-সুইডিস ওষুধ উৎপাদন কোম্পানি আস্ত্রাজেনেকা এবং অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির সঙ্গে সেরাম ইনস্টিটিউটের অংশীদারিত্বে উৎপাদিত কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগের ‘তৃতীয় ট্রায়ালে ৯০ শতাংশ সফলতা’ পাওয়া গেছে। আশা করা হচ্ছে ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ ভারতে এই ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন উৎপাদনের প্রতিযোগিতায় আস্ত্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন উৎপাদন এগিয়ে রয়েছে। করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী ৫ কোটি ৯৮ লাখ ১৬ হাজার ৫১০ জনের বেশী লোক আক্রান্ত হয়েছে এবং ১৪ লাখ ১০ হাজার ৩৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সরকারী সূত্রের বরাত দিয়ে আজ মিডিয়া রিপোর্টে বলা হয়, “প্রধানমন্ত্রী মোদী করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের উৎপাদন এবং বিতরণ প্রক্রিয়ার অগ্রগতি দেখার লক্ষ্যে এসআইআই পরিদর্শনে যাবেন।”

ভারতে বিদেশী মিশনের দূতরা আগামী ৪ ডিসেম্বর সেরাম ইনস্টিটিউট পরিদর্শনে যাওয়ার আগে মোদী এ পরিদর্শনে যাচ্ছেন। নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমতি পাওয়ার পর বিদেশী দূতরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের উৎপাদন এবং ব্যবহারের জন্য কোম্পানির বিতরণ পরিকল্পনা তদারক করবেন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, “ভারতে বিদেশী দূতরা একদিনে এবং দুইটি গ্রুপে এ পরিদর্শন করবেন।”
রাষ্ট্রদূতরা সকালে এসআইআই পরিদর্শনে যাবেন এবং তিন ঘন্টা সেখানে কোম্পানির অবকাঠামো সুবিধাদি পর্যবেক্ষণ করবেন।

বিকেলে দিল্লী ফেরার আগে তারা জেনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডে পৌঁছাবেন, এখানে কোম্পানির হিনজিওয়াদি ক্যাম্পাসে আরেকটি করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনের কাজ চলছে।

এদিকে, বাংলাদেশ গত ৫ নাভেম্বর সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে আস্ত্রাজেনিকা উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের ৩০ মিলিয়ন ডোজ কেনার জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

চুক্তি অনুযায়ী ভ্যাকসিন তৈরি হওয়ার পরে প্রথম পর্যায়ে ৩০ মিলিয়ন ডোজ বাংলাদেশকে হস্তান্তর করবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সম্প্রতি বলেছেন, বাংলাদেশের ওষুধ কোম্পানি বেক্সিমকো ফার্মার মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রতি মাসে ৫ মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন ক্রয় করবে।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ভ্যাকসিন কেনার জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে বিশ্বব্যাংক ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক সহ উন্নয়ন অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা করেছে।বাসস




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]