ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ২ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১

বিদয়াত সর্বোতভাবে বর্জনীয়
নেছার আহমদ হাজারী
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০, ১০:৪৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 45

ইসলামের প্রকৃত জ্ঞান না থাকার কারণে অনেক মুসলমানই নানা বিদয়াতি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েন। বিদয়াতের অবস্থা অনেক সময় এতটাই প্রকটতর হয়, ইসলামে যে বিষয়টির অস্তিত্বও নেই সেটাকেও ইসলাম মনে করে পালিত হয়ে থাকে। ফলে অনেকেই ধীরে ধীরে রাসুলের (সা.) সুন্নাহ ও প্রকৃত ইসলাম থেকে অনেক দূরে ছিটকে পড়েন। যা মোটেও কাম্য নয়। তাই বিদয়াত সম্পর্কে অবগত হওয়ার প্রত্যেক মুসলমানের কর্তব্য। বিদয়াত আরবি শব্দ যার আভিধানিক অর্থÑ নতুনত্ব, নবতর সৃষ্ট বা উদ্ভাবন, পূর্ববর্তী কোনো নমুনা ছাড়াই নতুন আবিষ্কৃত বিষয়। (আন-নিহায়াহ : পৃ ৬৯)। আর শরিয়তের পরিভাষায় আল্লাহর দ্বীনের মধ্যে নতুন করে যার প্রচলন করা হয়েছে এবং এর পক্ষে শরিয়তের কোনো ব্যাপক ও সাধারণ কিংবা সুনির্দিষ্ট দলিল নেই এমন বিষয়। (কাওয়ায়েদ মারিফাতিল বিদআ : পৃ ২৪)
বিদয়াতের ব্যাপারে সংক্ষেপে তিনটি বিষয় স্মরণ রাখা যায়Ñ ১. নতুনভাবে প্রচলন অর্থাৎ আল্লাহর রাসুল (সা.) ও সাহাবায়ে কেরামের যুগে এর কোনো প্রচলন ছিল না এবং এর কোনো নমুনাও ছিল না। ২. এ নব প্রচলিত বিষয়টিকে দ্বীনের মধ্যে সংযোজন করা এবং ধারণা করা, এটি দ্বীনের অংশ। ৩. নব প্রচলিত এ বিষয়টি শরিয়তের কোনো দলিল-প্রমাণ ছাড়াই চালু ও উদ্ভাবন করা। উল্লিখিত সংজ্ঞার তিনটি বিষয়ের একত্রিত রূপ হলো বিদয়াত, যা থেকে বিরত থাকার কঠোর নির্দেশনা শরিয়তে এসেছে। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা বলেন, ‘আল্লাহর নিকট ইসলামই হচ্ছে একমাত্র মনোনীত দ্বীন।’ (সুরা আলে ইমরান : ১৯)। অন্যত্র বলেন, ‘যে ব্যক্তি ইসলাম ছাড়া অন্য কোনো দ্বীন অনুসন্ধান করে, তা কখনই তার কাছ থেকে গ্রহণ করা হবে না।’ (সুরা আলে ইমরান : ৮৫)। এ দ্বীন তথা ইসলামকে পরিপূর্ণ করার ঘোষণাও আল্লাহ  কোরআনে দিয়েছেন, ‘আজ আমি তোমাদের জন্য তোমাদের দ্বীনকে পরিপূর্ণ করে দিলাম এবং ইসলামকে তোমাদের জন্য দ্বীন হিসেবে মনোনীত করলাম।’ (সুরা মায়েদা : ৩)
এ ছাড়াও হাদিসে নববিতে বিদয়াতের ব্যাপারে কঠোর হুঁশিয়ারি বার্তা বারবার উচ্চারিত হয়েছে। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি আমার এই দ্বীনে কোনো নতুন কিছু উদ্ভাবন করল, যা তার মধ্যে নেই, তা প্রত্যাখ্যানযোগ্য।’ (বুখারি ও মুসলিম)। অন্য এক বর্ণনায় আছে, ‘যে ব্যক্তি এমন কোনো কাজ করল, যাতে আমাদের নির্দেশ নেই, তা বর্জনীয়।’ (বুখারি : ২৬৯৭; মুসলিম : ১৭১৮; আবু দাউদ : ৪৬০৬; ইবনে মাজা : ১৪; মুসনাদে আহমাদ : ২৩৯২৯) এ ঘোষণাসমূহের নির্দেশনার আলোকে কোরআন ও সুন্নাহর বাইরে দ্বীনের মধ্যে নতুন কোনো বিষয়
 সংযোজিত হওয়ার পথ চিরতরে রুদ্ধ হয়ে গেল এবং বিদয়াত তথা নতুন যেকোনো বিষয় দ্বীনি আমল ও আকিদা হিসেবে দ্বীনের অন্তর্ভুক্ত হওয়াও হারাম হয়ে গেল। এ ক্ষেত্রে আমাদের বিদয়াত সংক্রান্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আর রাসুল তোমাদের যা দেন তা তোমরা গ্রহণ কর এবং যা থেকে তোমাদের নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক।’ (সুরা হাশর : ৭)। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা (দ্বীনের) নব প্রচলিত বিষয়সমূহ থেকে সতর্ক থাক। কেননা প্রত্যেক নতুন বিষয় বিদয়াত এবং প্রত্যেক বিদয়াত ভ্রষ্টতা’’। (আবু দাউদ : ৩৯৯১; তিরমিজি : ২৬৭৬)।
নবীজি (সা.) এক দিন খুতবা দিতে গিয়ে বলেন, ‘নিশ্চয় সর্বোত্তম বাণী আল্লাহর কিতাব এবং সর্বোত্তম আদর্শ মোহাম্মদের আদর্শ। আর সবচেয়ে নিকৃষ্ট বিষয় হলো দ্বীনের মধ্যে নব উদ্ভাবিত বিষয়। আর নব উদ্ভাবিত প্রত্যেক বিষয় বিদয়াত এবং প্রত্যেক বিদয়াত হলো ভ্রষ্টতা এবং প্রত্যেক ভ্রষ্টতার পরিণাম জাহান্নাম। (মুসলিম : ১৫৩৫; নাসায়ি : ১৫৬০)। হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর (রা.) বলেন, ‘সব বিদয়াত গোমরাহি। যদিও লোকজন তাকে আপাত দৃষ্টিতে ভালো মনে করে।’ (দারিমি)
দশম হিজরিতে ঐতিহাসিক বিদায় হজে আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন, কোরআন ও সুন্নাহ আকড়ে ধরে জীবন পরিচালনা করতে। হজরত মালিক (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, আমি তোমাদের কাছে দুইটি বস্তু রেখে যাচ্ছি। তোমরা যতক্ষণ সেটা ধরে থাকবে, ততক্ষণ পর্যন্ত পথভ্রষ্ট হবে না। তা হলো আল্লাহর কিতাব ও তার নবীর সুন্নাত।’ (মুয়াত্তা মালেক)। তাই মুসলিম উম্মাহকে বিদয়াত ও বিভিন্ন ধরনের ফেতনা, বিভ্রান্তকর বিষয় থেকে বিরত রাখতে হলে অবশ্যই কোরআন ও সুন্নাহর আলোকে সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা পরিচালনা করতে হবে। ইসলামের প্রকৃত সৌন্দর্য ও শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিতে এই দুই মূলনীতির বিকল্প নেই। এই দুই মূলনীতির সুশীতল ছায়ায় সবাই পাবে শান্তির খোঁজ এবং বিপরীতে লাঞ্ছনা ও পথভ্রষ্টতা।
 লেখক : শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়, কুষ্টিয়া






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]