ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ২ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১

জিকিরে আত্মার প্রশান্তি
ফিরোজ আহমাদ
প্রকাশ: শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০, ১০:৫৫ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 50

 যে ব্যক্তি আল্লাহকে স্মরণ করে আর যে ব্যক্তি আল্লাহকে স্মরণ করে না; উভয়ের মধ্য আকাশ-পাতাল ব্যবধান। এই ব্যবধানের উদাহরণ হাদিসে উল্লেখ রয়েছে। হজরত আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিতÑ নবীজি (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘যে ব্যক্তি আল্লাহ তায়ালার জিকির করে আর যে জিকির করে না; উভয়ের দৃষ্টান্ত হলো জীবিত ও মৃতের মতো।’ (বুখারি : ৮/৬৪০৭)। জিকিরে আল্লাহর সঙ্গে বান্দার সংযোগ সৃষ্টি হয়। জিকিরের ধ্বনি ফসলের ওপর বৃষ্টির ফোঁটা পড়ার ন্যায় মুমিনের রুহকে করে সতেজ-সজীব। ইরশাদ হয়েছে, ‘হে মুমিন! তোমরা আল্লাহকে অধিক পরিমাণে স্মরণ কর।’ (সুরা আহজাব : ৪১)। অন্য আয়াতে ইরশাদ হয়েছে, ‘তোমরা আমাকে স্মরণ কর, আমিও তোমাদের স্মরণ করব।’ (সুরা বাকারা : ১৫২)। সাবান দিয়ে শরীরের চামড়ার ওপরের অংশের ময়লা যেমন পরিষ্কার করা যায়, তেমনিভাবে নিয়মিত জিকিরের আমলের দ্বারা শরীরের ভেতরে
থাকা সু² বস্তু কালবের ময়লা পরিষ্কার হয়ে যায়।
পার্থিব টাকা-পয়সা ও ধন-দৌলত মানুষকে কখনও প্রশান্তি দিতে পারে না। বরং মানুষের পেরেশানি বৃদ্ধি করে। আল্লাহ তায়ালার জিকির এমন একটি কর্ম, বান্দা যতই করতে থাকবে, ততই আত্মার প্রশান্তি বাড়তে
থাকবে। ইরশাদ হয়েছে, ‘যারা আল্লাহর ওপর ঈমান আনে এবং আল্লাহর জিকিরে তাদের অন্তঃকরণ প্রশান্ত হয়। জেনে রাখো, আল্লাহর জিকিরই অন্তরসমূহকে প্রশান্ত করে।’ (সুরা রাদ : ২৮)। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিতÑ নবীজি (সা.) ইরশাদ করেন, ‘আল্লাহ তায়ালা বলেন, যখন আমার বান্দা আমাকে স্মরণ করে এবং তাহার ঠোঁট আমার স্মরণে নড়াচড়া করতে থাকে তখন আমি তার সঙ্গে থাকি।’ (মুন্তাখাব হাদিস, ইলম ও জিকির : ১৩১)
হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিতÑ নবীজি (সা) ইরশাদ করেছেন, ‘যেসব লোকেরা আল্লাহ তায়ালার জিকিরে মশগুল হয় ফেরেশতারা তাদেরকে ঘিরে রাখেন, আল্লাহর রহমত তাদেরকে ঢেকে রাখে, তাদের ওপর সকিনা (বিশেষ এক প্রকার রহমত) নাজিল হয় এবং আল্লাহ তায়ালা ফেরেশতাদের মজলিসে তাদের কথা আলোচনা করেন।’ (মুন্তাখাব হাদিস, ইলম ও জিকির : ১৫২)
যারা আল্লাহর জিকির থেকে গাফেল থাকে, আল্লাহ তাদের প্রতি অসন্তুষ্ট থাকেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘আর যে আমার জিকির থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে, তার জন্য হবে নিশ্চয় এক সঙ্কুচিত জীবন এবং আমি তাকে কেয়ামত দিবসে ওঠাব অন্ধ অবস্থায়।’ (সুরা তাহা : ১২৪)। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিতÑ নবীজি (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘যে মানুষ এমন কোনো মজলিস থেকে ওঠে যেখানে তারা আল্লাহ তায়ালার জিকির বা আলোচনা করে নাই, তবে তারা যেন মৃত গাধার নিকট থেকে উঠে এসেছে। আর এই মজলিস কেয়ামতের দিন তাদের জন্য আফসোসের কারণ হবে।’ (মুন্তাখাব হাদিস, ইলম ও জিকির : ১৬৮)। আল্লাহ তায়ালা ফরজ, ওয়াজিব ও সুন্নত আমলের পাশাপাশি নিয়মিত তার জিকিরে মশগুল থাকার তওফিক দান করুন। আমিন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]