ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ১৪ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১

বৃদ্ধ বাবাকে তাড়িয়ে ফ্ল্যাট  দখল ব্যাংকার ছেলের
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:২৯ পিএম আপডেট: ০৩.১২.২০২০ ১১:৩৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 228

বৃদ্ধ বাবাকে তাড়িয়ে দিয়ে ফ্ল্যাট দখল করল ব্যাংকার ছেলে। সম্পদের লোভ আর নিজ স্বার্থে এক শ্রেণির মানুষ যেন পুরোই অন্ধ হয়ে গেছে। সম্পদের লোভে মানবিকতা শূন্য হয়ে পড়ছে তারা। মানুষরূপী এসব অমানুষ জন্মদাতা মা-বাবার সঙ্গেও দেখাচ্ছে চরম নিষ্ঠুরতা। 
নিজের ভালো থাকার স্বার্থে বৃদ্ধ বা অসহায় বাবা-মাকে টেনেহেঁচড়ে বাড়ির বাইরে ছুড়ে ফেলতেও বুক কাঁপছে না তাদের। এমনই নিষ্ঠুর অমানবিক কাÐ ঘটেছে রাজধানীর অভিজাত ধানমন্ডি এলাকায়। ষাটোর্ধ্ব সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা ফারহাদ আহমেদ হালিকে তারই বড় ছেলে রুকন আহমেদ লিখন কেবলমাত্র ফ্ল্যাট দখলের জন্যই বাসা থেকে অত্যাচার করে তাড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গৃহহীন হয়ে পড়া ফারহাদ এখন অন্যের বোঝা হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন স্বজনদের দ্বারে দ্বারে। তবে গত দুই দিন ধরে একাধিকবার লিখনের মোবাইল ফোনে ফোন করা হলেও সে রিসিভ করেনি।
ভুক্তভোগী বৃদ্ধ ফারহাদ আহমেদ হালীর বড় মেয়ে ফারহানা আহমেদ কাকন সময়ের আলোকে বলেন, ফ্ল্যাটটি তার মা দিলরুবা আহমেদ রুকুর নামে। গত ২৪ মে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। মায়ের মৃত্যুর পরই তার বড়ভাই রূপালী ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা লিখন বৃদ্ধ বাবাকে বের করে দিয়ে ফ্ল্যাটটি অবৈধ দখলে নেয়। লিখন রূপালী ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। এ ঘটনার পর গত ৬ সেপ্টেম্বর বাবা ফারহাদ আহমেদ হালী ধানমন্ডি মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। জিডি নম্বর-২৫৯। জিডির পর পুলিশ একাধিকবার ওই ফ্ল্যাটে গেলেও অজ্ঞাত কারণে ফ্ল্যাটটি লিখনের দখলমুক্ত করতে পারেনি। কাকনের অভিযোগ, ব্যাংকার লিখনের কয়েকজন বন্ধু পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হওয়ায় তাদের প্রভাব খাটাচ্ছে।
ধানমন্ডি থানার ওসি মো. ইকরাম আলী মিয়া বৃহস্পতিবার সময়ের আলোকে বলেন, ঘটনার পর কয়েক দফায় এটা নিয়ে কাজ করেছি। ফ্ল্যাটটি লিখনের মৃত মা দিলরুবার নামে। কিন্তু ফ্ল্যাটটি লিখন এককভাবে দখল করার জন্য তার বৃদ্ধ বাবাকে বের করে দিয়েছে। এ ঘটনা চরম অমানবিক ও নিষ্ঠুর। ব্যাংক কর্মকর্তা লিখন তার বাবাকে বের করে দিয়ে ফ্ল্যাটটি দখল করে আছে বলে প্রাথমিক তদন্তেই প্রমাণিত হয়েছে। লিখন তার স্ত্রী ও শ^শুরবাড়ির লোকজন নিয়ে ওই ফ্ল্যাটে অবস্থান করছে। মানবিক কারণেই আমরা লিখনকে ফ্ল্যাটের বাবাকে ফিরিয়ে আনতে নানাভাবে বুঝিয়েছি, কিন্তু সে মানতে নারাজ।
ওসি বলেন, পুলিশের উচ্ছেদ সংক্রান্ত আইনি কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। তবে এ বিষয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দ্রæতই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন বলেও জানান ওসি। ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ভুক্তভোগী বৃদ্ধ ফারহাদের মেয়ে ফারহানা আহমেদ কাকন বলেন, তারা দুই ভাই ও দুই বোন। এর মধ্যে বড়ভাই রুকন আহমেদ লিখন রূপালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের এজিএম এবং ছোটভাই রওনক আহমেদ ঈমন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। কাকন গৃহিণী এবং তার ছোটবোন ফারিয়া আহমেদ বাধন স্বামীর চাকরির সুবাদে জার্মানিতে বসবাস করছেন।
কাকন জানান, মা দিলরুবা আহমেদ রুকুর নামে তার ছোটভাই ঈমন ২০১৫ সালে ধানমন্ডির ১০/এ নম্বর সড়কের ৩৯ নম্বর ভবনের ই-২ নম্বরের ৩৪০০ স্কয়ারফিটের একটি ফ্ল্যাট কিনে দেন। মা-বাবা ও ব্যাংকার বড় ছেলে লিখন তার স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে সেই ফ্ল্যাটেই বসবাস করে আসছিল। কিন্তু মহামারি করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ মে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মা দিলরুবা। কাকন অভিযোগ করেন, অসুস্থতার সময়ে মায়ের ন্যূনতম সেবাযতœ বা একবারের জন্য দেখাশোনাও করেননি লিখন বা তার স্ত্রী। এ নিয়ে তাদের বাবাসহ পরিবারের অন্যরা লিখন ও তার স্ত্রীর প্রতি ক্ষুব্ধ হন। একপর্যায়ে লিখন স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাইরে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে। এরপর গত কোরবানির ঈদে সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা বাবা ফারহাদ আহমেদ হালী গ্রামের বাড়ি গেলে সেই সুযোগে ধানমন্ডির ওই ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে সেটির দখল নেয়। ঈদ পরবর্তী ঢাকায় ফিরে ফারহাদ আহমেদ তার স্ত্রীর নামের সেই ফ্ল্যাটে উঠতে গেলে ছেলে ও তার শ^শুরবাড়ির লোকজন লাঞ্ছিত করে বের করে দেয়। নানারকম হুমকি দিয়ে ওই ফ্ল্যাটের আর কখনোই হালীকে না আসতে বলে তারই বড় ছেলে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]