ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ২ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ১৭ জানুয়ারি ২০২১

মুক্তার-ইয়াসিরে ঢাকার প্রতিশোধ
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:০৭ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 17

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের উদ্বোধনী ম্যাচটার কথা মনে আছে? অন্যরা ভুলে গেলেও সেই দুঃস্মৃতি মুক্তার আলীর মন থেকে সহজে মুছে যাওয়ার কথা নয়! সেদিন মিনিস্টার গ্রæপ রাজশাহীর বিপক্ষে শেষ ওভারে মাত্র ৯ রানের সমীকরণ মেলাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন বেক্সিমকো ঢাকার এই ব্যাটসম্যান। ব্যর্থতার সেই গøানি শুক্রবার কিছুটা হলেও মোচন করতে পেরেছেন তিনি। তবে ব্যাট হাতে নয়, মুক্তার এদিন বল হাতে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন রাজশাহীর জয়ের স্বপ্ন, প্রতিশোধের ম্যাচে ২৫ রানের জয় এনে দিয়েছেন ঢাকাকে।
টানা তিন ম্যাচে হারের পর ঢাকার দ্বিতীয় জয়ের কৃতিত্বটা কেবল মুক্তারকে দিলে অবিচার করা হবে ইয়াসির আলীর ওপর। মুখ গোমরা করতে পারেন আকবর আলীও। ব্যাটিংয়ে ঢাকার দুঃস্বপ্নের শুরুটা তো শেষে ঢেকে দিয়েছেন তারাই। এই যুগলের অসাধারণ ব্যাটিংয়েই ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি গড়ে ঢাকা। রান তাড়ায় শুরুটা বাজে হওয়ার পর রনি তালুকদার আর ফজলে মাহমুদের ব্যাটে ওই চ্যালেঞ্জ উতরে যাওয়ার স্বপ্নই দেখেছিল রাজশাহী। তবে রুবেল হোসেন আর শফিকুল ইসলামকে নিয়ে সেই স্বপ্ন ধূলিসাৎ করে দিয়েছেন মুক্তার। ১৫০ রানেই অলআউট হয় রাজশাহী, পঞ্চম ম্যাচে এসে
তৃতীয় পরাজয়ের স্বাদ পায় নাজমুল হোসেন শান্তর নেতৃত্বাধীন দলটি।
রুবেল, শফিকুল আর রবিউল ইসলাম রবির দারুণ বোলিংয়ে ১৫ রানেই ৩ উইকেট হারায় রাজশাহী। দলকে বিপাকে ফেলে বিদায় নেন অধিনায়ক শান্ত, আগের ম্যাচের হাফসেঞ্চুরিয়ান আনিসুল ইসলাম ইমন আর মোহাম্মদ আশরাফুল। এরপর ৬৭ রানের জুটিতে দলকে টেনে তোলেন রনি আর মাহমুদ। এই যুগল যখন ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছিলেন, তখনই দৃশ্যপটে মুক্তারের আগমন। ১টি চার আর ৩টি ছক্কায় ২৪ বলে ৪০ রান করা রনিকে বোল্ড করেন তিনি। নিজের পরবর্তী দুই ওভারে ডানহাতি পেসার ফেরান শেখ মেহেদী হাসান আর মাহমুদকে। ৫টি চার আর ৩টি ছক্কায় ৪০ বলে ৫৮ রানের ইনিংস খেলার পথে রাজশাহীকে জয়ের স্বপ্নই দেখাচ্ছিলেন এই বাঁহাতি।
মাহমুদ ফিরে যাওয়ার পর ফরহাদ রেজা ২ ছক্কায় রাজশাহীকে নতুন করে স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেন, নিজের শেষ ওভারে তাকে নাঈম হাসানের ক্যাচ বানিয়ে সেই স্বপ্নটাও শেষ করে দেন মুক্তার। ৪ বলে ১৪ রান করে ফেরেন ফরহাদ, ম্যাচে চতুর্থ উইকেট পাওয়ার আনন্দে মাতেন মুক্তার। এরপর শফিকুল আর রুবেল মিলে ইতি টেনে দেন রাজশাহীর ইনিংস, জয় নিশ্চিত করেন ঢাকার। ৩১ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়েছেন শফিকুল, রুবেল ২ উইকেট নিয়েছেন ১৫ রান দিয়ে। তবে তারা কেউ নন, ম্যাচসেরার খেতাবটা উঠেছে ইয়াসিরের হাতে। এদিন অসাধারণ ব্যাটিং করেছেন এই তরুণ। যখন উইকেটে আসেন, ৪৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ঢাকা তখন ধুঁকছে। খানিক পর বিদায় নেন দারুণ খেলতে থাকা অধিনায়ক মুশফিকও (৩৭)।
এরপর যুব বিশ^কাপজয়ী অধিনায়ক আকবরকে সঙ্গী করে পাল্টা আঘাত হানেন ইয়াসির। ৯ ওভারে গড়েন ১০০ রানের জুটি। ওই জুটিতেই টানা দ্বিতীয় জয়ের রসদ পেয়ে যায় ঢাকা। ম্যাচে ফরহাদকে একমাত্র উইকেটটি উপহার দিয়ে ইয়াসির ফেরেন ইনিংসের শেষ ওভারের প্রথম বলে। তখন তার নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ৬৭ রান। ৩৯ বল খেলে ৯টি চার আর ১টি ছক্কায় ওই রান করেছেন তিনি। বোলারদের জন্য প্রতিশোধের উপযুক্ত মঞ্চ তৈরি করে দিয়ে ২৩ বলের ইনিংসে ৩টি চার আর ২টি ছক্কা হাঁকিয়ে আকবর অপরাজিত থাকেন ৪৫ রানে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]