ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১ ৭ মাঘ ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১

দিহানের শরীরে শক্তি বাড়ানো ওষুধের অস্তিত্ব পরীক্ষার নির্দেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:০৫ পিএম আপডেট: ১৩.০১.২০২১ ১১:৪৭ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 69

রাজধানীর কলাবাগানে মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ও লেভেলের শিক্ষার্থী আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে করা মামলায় গ্রেফতার ইফতেখার ফারদিন দিহান যৌনশক্তিবর্ধক ওষুধ ও মাদকসেবন করেছিল কি নাÑ তা জানতে চেয়ে পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কলাবাগান থানার পুলিশ পরিদর্শক আ ফ ম আসাদুজ্জামান এই আবেদন করেন। আবেদনে তিনি বলেন, কারাগারে থাকা আসামি দিহান কোনো মাদকসেবন করেছিল কি না, তা জানার জন্য তার ডোপ টেস্ট করা প্রয়োজন। এ ছাড়া কোনো যৌনশক্তিবর্ধক ওষুধ সেবন করেছিল কি না এবং সেবন করলে কোন ধরনের ওষুধ সেবন করেছিল, তা দিহানের রক্ত থেকে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা করে বিশেষজ্ঞদের মতামত প্রয়োজন। শুনানি শেষে মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরা এ আবেদন মঞ্জুর করেন। আদালতের কলাবাগান থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা স্বপন কুমার এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত ১০ জানুয়ারি ডিএনএ টেস্ট এবং জব্দ করা আলামত পরীক্ষার আবেদন করলে একই আদালত তা মঞ্জুর করেন।
মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, ফারদিন ইফতেখার দিহান গত ৭ জানুয়ারি দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে স্কুলছাত্রী আনুশকাকে প্রেমে প্রলুব্ধ করে মোবাইল ফোনে তার বাসায় ডেকে নিয়ে যায়। মেয়েটিকে ধর্ষণ করে দিহান। ধর্ষণের সময় শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্তক্ষরণের কারণে মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়ে। তখন বিবাদী ধর্ষণের বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার জন্য মেয়েটিকে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে ভিকটিমের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় দিহানকে একমাত্র আসামি করে আনুশকার বাবা ধর্ষণ ও হত্যার মামলা করেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]