ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১ ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১

রোচ শানিত হচ্ছেন আক্রমণের মন্ত্রে!
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১, ১০:৫৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 15

একাডেমি মাঠে অনুশীলন চলছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের। টেস্ট ম্যাচের আবহ তৈরি করে সেন্টার উইকেটে বল করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন কেমার রোচ। কোচ ফিল সিমন্স জানতে চাইলেন, ফিলিং পজিশনটা কেমন হবে? ৩২ বছর বয়সি এই পেসারের জবাব, ‘ডিপ স্কয়ারে কাউকে রাখার দরকার নেই, কাভার আর পয়েন্টে একজন করে দাঁড়ালেই হবে।’ বুঝতে অসুবিধা হলো না, যতটা সম্ভব আক্রমণাত্মক হতে চাইছেন রোচ। কিন্তু অপেক্ষাকৃত কম বাউন্স আর মন্থর উইকেটে চাইলেই কি আর তা হওয়া সম্ভব?
সম্ভব, তবে খুব কঠিন। টেস্ট ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের নতুন বলের দুই বোলার রোচ আর শ্যানন গ্যাব্রিয়েল সেটা বেশ ভালোভাবেই টের পেয়েছেন শুক্রবার। একাডেমি মাঠে এদিন তাদের বোলিং সন্তুষ্ট করতে পারেনি কোচ সিমন্সকে। বিশেষ করে শর্ট বলগুলো, সেগুলোতে ঠিকঠাক বাউন্সই পাচ্ছিলেন না তারা। তখন এই যুগল সম্ভবত উপলব্ধি করতে সক্ষম হয়েছিলেন, বাংলাদেশের কন্ডিশনে শর্ট বল সেভাবে কাজে লাগবে না। তাই একটা সময় ফুল লেংথে লাগাতার বল করা শুরু করলেন তারা। তাদের মনোভাব পরিষ্কারÑ স্টাম্পের ওপর বল রেখে ব্যাটসম্যানকে খেলাতে হবে, হতে হবে আক্রমণাত্মক।
বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজে রোচ আর গ্যাব্রিয়েলই ক্যারিবীয় বোলিং আক্রমণে মূল ভরসা। করোনা আতঙ্ককে অজুহাত বানিয়ে সফরে দলের সঙ্গী হননি নিয়মিত টেস্ট অধিনায়ক জেসন হোল্ডার, ওয়ানডে অধিনায়ক কায়রন পোলার্ডও। ব্যক্তিগত কারণেও সরে দাঁড়িয়েছেন দুজন। সব মিলে শীর্ষ ১২ তারকাকে দেশে রেখে ঢাকা এসেছে উইন্ডিজ দল। এককথায় দ্বিতীয় সারির দল নিয়েই বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে ক্যারিবীয়রা, যেমনটা ঘরের মাঠে ২০০৯ সালে তারা হয়েছিল। বেতনাদি নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে সেবার বাংলাদেশ সিরিজ বয়কট করেছিলেন শীর্ষ ক্রিকেটাররা।
বাধ্য হয়েই দ্বিতীয় সারির দল মাঠে নামিয়েছিল উইন্ডিজ বোর্ড। ফলশ্রæতিতে ওয়ানডে আর টেস্ট, দুটো সিরিজেই ধবলধোলাই হতে হয়েছিল তাদের। সেই সিরিজ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আত্মপ্রকাশ হয়েছিল রোচের। তাই সবকিছু খুব কাছ থেকেই দেখেছিলেন ডানহাতি এই পেসার। দেখছেন এবারও। একযুগ আগের সেই সিরিজে রোচ ছিলেন তরুণ তুর্কি, এখন তিনি পরিণত, বোলিং আক্রমণের অন্যতম সেরা অস্ত্র। তবে দুটো সিরিজের মধ্যে বেশ মিল খুঁজে পাচ্ছেন তিনি। বললেন, ‘তখন আমি বেশ অনভিজ্ঞ ছিলাম। ছেলেরা তখন বেশ চাপে ছিল ভালো করার জন্য, কিন্তু তারা তা পারেনি। আমাদের বেশিরভাগের জন্যই সেই সিরিজ বড় একটা শিক্ষা ছিল।’
আর এই সিরিজ? রোচ বললেন, ‘এবারেরটায় আমাদের জন্য দ্বিতীয়বার একই পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তবে গ্রæপ হিসেবে, দল হিসেবে আমাদের কী করতে হবেÑ এর ভালো একটা পরিকল্পনা করেছি আমরা। ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ভালো কিছু নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। আজ এবং গতকাল তাদের দেখে ভালোই মনে হচ্ছে। আশা করছি ভালো প্রস্তুতি নিয়েই আমরা টেস্ট সিরিজ শুরু করব।’ দুই টেস্টের সিরিজটা শুরু হবে ৩ ফেব্রæয়ারি, তাই প্রস্তুত হওয়ার জন্য রোচদের হাতে তাই এখনও পর্যাপ্ত সময় আছে।
বাংলাদেশের বিপক্ষে রোচের পারফরম্যান্স বেশ ভালো। ৮ টেস্ট খেলে নিয়েছেন ৩৩ উইকেট। তবে বাংলাদেশের মাটিতে সেভাবে সুবিধা করে উঠতে পারেননি এই পেসার। টাইগারদের ডেরায় ৩ টেস্টে মোটে ৪ উইকেট নিতে পেরেছেন। রোচ তাই ভালো করেই জানেন, এখানে পেসারদের কাজ কতটা কঠিন। তবে পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন হলে সাফল্য পাওয়া সম্ভব বলেই মনে করছেন তিনি, ‘বাংলাদেশে এসে উইকেট শিকার করা, ফাস্ট বোলারদের জন্য এটা সবসময়ই কঠিন। তবে আমি মনে করি, যদি ভালো পরিকল্পনা থাকে এবং আমি যদি তা বাস্তবায়ন করতে পারি... এখানেও ভালো করার অপেক্ষায় আমি। আমরা জিততেই এখানে এসেছি, কারণ জেতাটাই সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ।’
জিততে হলে কী করতে হবে? এমন প্রশ্নে রোচের জবাব, ‘মাঠে আরও আক্রমণাত্মক হতে হবে। যতটা সম্ভব লাইনে বল ফেলার চেষ্টা করতে হবে, কারণ এখানকার পিচে তেমন বাউন্স নেই। ভালো জায়গায় বল ফেলতে হবে, ভালো ফিল্ডিং সাজিয়ে যতটা সম্ভব আক্রমণাত্মক হতে হবে।’






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]