ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১ ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১

রোহিঙ্গাদের করুণ গল্প নিয়ে সিনেমা বানানোর আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১, ৯:৩৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 99

নিজের দেশ থেকে বিতারিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর করুণ জীবনের গল্প নিয়ে সিনেমা বানানোর আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের মানবেতন কষ্টের জীবন আজ পুরো বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে। এর এমন একটা দেশ থেকে বিতারিত যেখানে বুদ্ধের অহিংসা চর্চা করা হয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমানের নিরবতা সত্যি অবিশ্বাস্য। 

শনিবার রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে ‘ঊনবিংশ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, আমরা প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে কক্সবাজারে। যারা মিয়ানমারের সামরিক জান্তার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ধাপে ধাপে তারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। তাই তাদের মানবেতর জীবন নিয়ে সিনেমা বানানোর জন্য পরিচালকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 

এসময় তিনি জাতির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মজীবনি নিয়ে সিনেমা বানানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানব। তার জীবনী নিয়ে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ আয়োজনে সিনেমাটির শুটিং চলতি মাসেই শুরু হবে।

‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’ স্লোগান নিয়ে পর্দা উঠলো ‘ঊনবিংশ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-২০২১’ আসরটির। মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে এবারের আসরটি উৎসর্গ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি। মোট ৭৩টি দেশের ২২৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে এবারের উৎসবে। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কে দোরাইস্বমী, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকি।
উদ্ভোধনী চলচ্চিত্র ‘স্প্রি ব্লোসম’। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন সুজান্না লিনডন। একজন টিনজে তরুণীর সঙ্গে একজন প্রৌড়ার জাগতিক সম্পের্কেও টানাপোড়েন নিয়ে নির্মিত হয়েছে চলচ্চিত্রটি। ২০২০ সালের কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রতিযোগিতা বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ‘স্প্রিং ব্লোসম’। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়।

জানা যায়, গেল ১৯ বছর ধরে রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করে আসছে। এবারে এশিয়ান ফিল্ম প্রতিযোগিতা বিভাগ, রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অফ দ্য ওয়ার্ল্ড, চিল্ড্রেন ফিল্মস্, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস, শর্ট অ্যান্ড ইন্ডিপেনডেন্ট ফিল্ম এবং উইমেন্স ফিল্ম মেকার বিভাগ। তবে উৎসবে এবারই প্রথম সংযুক্ত হচ্ছে 'লিজেন্ডারি লিডারস হু চেঞ্জ দ্যা ওয়ার্ল্ড' এবং ‘ট্রিবিউট’ নামে আরও দু'টি নতুন বিভাগ।

উৎসবে আগামী আজ রোববার এবং আগামীকাল সোমবার চলচ্চিত্রে নারীর ভূমিকা বিষয়ক ‘সপ্তম ঢাকা আন্তর্জাতিক উইমেন ফিল্ম মেকারস সেশন’ অনুষ্ঠিতও হবে। এটি প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলবে। দেশ ও বিদেশের নারী নির্মাতাদের চলচ্চিত্র নিয়ে এই বিভাগটি সাজানো হয়েছে। এতে দেশি-বিদেশি ১৯টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং প্রামাণ্যচিত্র অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। তিন সদস্যের একটি স্বাধীন জুরিবোর্ড এই বিভাগের একটি শ্রেষ্ঠ কাহিনীচিত্র ও একটি শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্যচিত্রকে পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত করবে। পুরস্কার হিসেবে থাকছে সনদ ও ক্রেস্ট।

উপমহাদেশের কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে একটি বিশেষ ট্রিবিউটের আয়োজন করা হয়েছে। এটি হবে ২০ জানুয়ারি বিকেল ৪টায়। এখানে আসাদুজ্জামান নূরের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিমান অভিনেত্রী শর্মীলা ঠাকুর, ধৃতমান চ্যাটার্জী, বিচারপতি রিফাত আহমেদ এবং চলচ্চিত্র সমালোচক মঈনুদ্দীন খালেদসহ আলোচিত ব্যক্তিত্বরা অংশগ্রহণ করবেন। উৎসবে দেখানো হবে সত্যজিৎ রায়ের কিছু সিনেমাও।

কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার চত্বরে উৎসবের মূল অফিস থাকবে। সেখান থেকে সব ধরনের তথ্য পাওয়া যাবে। চলচ্চিত্রের যাবতীয় তথ্য সমৃদ্ধ স্মরণিকা প্রকাশিত হবার পাশাপাশি উৎসব চলাকালীন প্রতিদিনকার সংবাদসহ একটি বুলেটিন এখান থেকেই প্রকাশ করা হবে। এছাড়াও, এখানেই দেশি চলচ্চিত্রকার, প্রযোজক, অভিনয় শিল্পীসহ সাংবাদিকদের সীমিত পর্যায়ে সমাবেশের সুযোগ থাকবে।

এবার রাজধানীর কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তন ও কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তন, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা ও নৃত্যশালা মিলনায়তন, শিল্পকলার নন্দন থিয়েটার (মুক্তমঞ্চ), বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্স এবং সীমান্ত স্কয়ার সিনেপ্লেক্সে দেখানো হবে উৎসবে ঠাঁই পাওয়া চলচ্চিত্রগুলো।




এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]