ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১ ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১

অমল সেনের মৃত্যুবার্ষিকী আজ
প্রকাশ: রোববার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:২০ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 30

নিজস্ব প্রতিবেদক
আজ ১৭ জানুয়ারি। উপমহাদেশের কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা পুরুষ, ঐতিহাসিক তেভাগা আন্দোলনের নেতা, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কমরেড অমল সেনের ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকী। দিনটি উপলক্ষে কমরেড অমল সেন স্মৃতিরক্ষা কমিটির আয়োজনে যশোর-নড়াইলের সীমান্তবর্তী এগারখানের বাকড়ী গ্রামে আজ ওয়ার্কার্স পার্টির উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেদন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য মাহমুদুল হাসান মানিকসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন।
অমল সেনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার ঢাকায় ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, কামরুল আহসান প্রমুখ। এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি, উপদফতর সম্পাদক সায়েম খান, কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল আউয়াল শামিম, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সহকারী-সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় নেতা সুলতান আহমেদ বিশ^াস, সুনিল শীল, বাংলাদেশ জাসদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসিরুল হক নবাব, জাসদের সহসভাপতি শফিউদ্দিন মোল্লা, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশিদ ফিরোজ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণতন্ত্রী পার্টির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য কমল ঘোষ, ঐক্য ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ ভূঁইয়া, গণআজাদী লীগের সভাপতি এসকে শিকদার, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।
অমল সেন ব্রিটিশ ভারতে ১৯১৪ সালে বর্তমানের নড়াইল জেলার আফরা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। নবম শ্রেণির ছাত্র থাকাবস্থায় ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সংগ্রামে যুক্ত হয়ে ‘অনুশীলন’ সমিতির সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ১৯৩৩ সনে খুলনার বিএল কলেজে রসায়ন শাস্ত্রে পড়া অবস্থায় অবিভক্ত কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে যুক্ত হন এবং ওই বছরই এই অঞ্চলের জমিদারদের বিরুদ্ধে কৃষক আন্দোলনের নেতৃত্ব দেন। নিজের বাবার জমিদারির বিরুদ্ধে কৃষক আন্দোলন তাকে আরও পরিচিত করে তোলে। ১৯৪৬ সালের ঐতিহাসিক তেভাগা আন্দোলনের কিংবদন্তি পুরুষ পরিচিতি লাভ করেন সবার ‘বাবুদা’ হিসেবে। ১৯৪৮ সালের যশোর পার্টির সম্পাদক নিযুক্ত হন। ভারত-পাকিস্তান বিভক্তির পর পাকিস্তানি মুসলিম লীগ সরকারের রোষানলে পড়েন এবং ১৯৫৬ সাল পর্যন্ত কারারুদ্ধ থাকেন। দুই বছরের জন্য বাইরে থাকলেও আবারও ১৯৫৮ সালে গ্রেফতার হয়ে ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত জেলে আটক থাকেন তিনি। ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের সময় মুক্তি লাভ করলেও আবারও তাকে গ্রেফতার করা হয়। ১৯৭১ সালের মার্চ মাসে জনগণ জেল ভেঙে তাকে মুক্ত করেন। আজীবন বিপ্লবী, অকৃতদার, নিঃস্বার্থ বিপ্লবী কমরেড অমল সেন ১৯৭১ সালে জেলমুক্ত হয়ে ভারতে চলে যান এবং তখন বিভ্রান্ত বাম আন্দোলনের কর্মীদের সংগঠিত করতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ করতে ‘খোলা চিঠি’ দিয়ে আহ্বান জানান। ভারতে বসেই তিনি এদেশের বিপ্লবীদের ঐক্যবদ্ধ করার অব্যাহত প্রচেষ্টা চালান এবং ‘কমিউনিস্ট বিপ্লবীদের সমন্বয় কমিটি’ গড়ে তোলেন। অমল সেন ২০০৩ সালে ৮৯ বছর বয়সে মারা যান।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]