ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ঘুরে দাঁড়িয়েছেন ফুল ব্যবসায়ী সঞ্জয়
নীলকণ্ঠ আইচ মজুমদার ঈশ^রগঞ্জ
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:০৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 11

ঈশ^রগঞ্জে ফুলের ব্যবসায় করোনা বিপর্যয়ের পর অনেকটাই ঘুরে দাঁড়িয়েছেন সঞ্জয়। করোনায় ব্যবসা প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল।
করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার পর থেকে ব্যবসায় আশার প্রদীপ দেখতে পাচ্ছেন তিনি। ফুলকে ভালোবেসে জীবনের অর্থনৈতিক পরিবর্তনের স্বপ্ন নিয়ে ব্যবসায় আসা তরুণ সঞ্জয় গৌড় (৩২) স্বল্পসময়েই সফলতার মুখ দেখতে পেয়েছেন। ঈশ^রগঞ্জ পৌরশহরে কালিবাড়ী রোডে অবস্থিত পায়েল ফ্লাওয়ার হাউসটি উপজেলার একমাত্র ফুলের দোকান। চাকরির আশা বাদ দিয়ে আত্মীয়স্বজনের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে নিজে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য শুরু করেন এই ব্যবসা। মাত্র পাঁচ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত এ ব্যবসা দিয়ে চলছে সংসারের খরচ। পাশাপাশি হচ্ছে সঞ্চয়। ফুলের গন্ধ তার মনকে যেমন করেছে আকৃষ্ট, তেমনি আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ায় এ ব্যবসার পরিধি দিন দিন পরিবর্তন ঘটাচ্ছেন সঞ্জয়। তাকে সার্বক্ষণিক এ কাজে সহযোগিতা করছেন তার ছোটভাই ঋত্বিক গৌড়।
তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফুলের দোকান থেকে সব খরচ বাদ দিয়ে প্রতি মাসে আয় হচ্ছে প্রায় ২৫ হাজার টাকা। করোনাকালে বিভিন্ন অনুষ্ঠান বন্ধ থাকায় ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার পর ঘুরে দাঁড়িয়েছেন কিছুটা। এক সময় ময়মনসিংহ থেকে ফুল এনে ব্যবসা করার কারণে খুব একটা লাভ করা সম্ভব হয়নি। এখন প্রতি সপ্তাহে ঢাকা থেকে আনা হচ্ছে গাঁদা, গোলাপ, রজনী গন্ধা, গ্লাডিওলাস, জারবেরাস, চন্দ্রমল্লিকা, কাঠবেলি ও চেরি ফুল। ফলে লাভ যেমন বেড়েছে, তেমনি বৃদ্ধি পেয়েছে ফুলের মান। এ ছাড়াও সঙ্গে চলে কর্কশিট দিয়ে বিভিন্ন ধরনের নকশার কাজ, যা শোভা পায় বিয়ের কুঞ্জ, গায়েহলুদ কিংবা জন্মদিনের অনুষ্ঠানে। সঙ্গে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ফুলের মালা আর জন্মদিনের অনুষ্ঠান পালনের সামগ্রী। ২১ ফেব্রুয়ারি, ২৬ মার্চ, ১৬ ডিসেম্বর থাকে ফুলের ব্যাপক চাহিদা। প্রতিবারই এসব অনুষ্ঠানে জন্য তৈরি হয়ে থাকে শতাধিক ফুলের ডালা। এ ছাড়াও পয়লা বৈশাখ, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৫ আগস্ট ও ৯ ডিসেম্বর ঈশ^রগঞ্জমুক্ত দিবসেও তৈরি হয়ে থাকে এসব ফুলের ডালা। বিভিন্ন দফতরের অনুষ্ঠানের পাশাপাশি রয়েছে সংবর্ধনা। এসব অনুষ্ঠান বর্তমানে ফুলের তোড়া ছাড়া যেন অপূর্ণই থেকে যায়। এ ছাড়াও প্রায় সারাবছরই রয়েছে বিয়ের গাড়ি ও বাসারঘর সাজানোর কাজ। প্রায় প্রতি শুক্রবারই বিয়ের অনুষ্ঠান থাকায় সবকিছু বন্ধ থাকার পরও তাদের পার করতে হয় ব্যস্ত সময়।
সঞ্জয় গৌড় জানান, প্রাকৃতিক বিভিন্ন সমস্যার কারণে প্রায় সময়ই ফুল পচে যায়, তখন ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। কিন্তু জীবন পরিবর্তনের স্বপ্ন আর ফুলের গন্ধ যেন আঁকড়ে ধরেছে আমার জীবনকে। ফুলের চাহিদা কেবল শহর অঞ্চলে নয়, এর চাহিদা এখন গ্রামাঞ্চলেও বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনার প্রভাব কম থাকায় ফুলের ব্যবসায় এখন কিছুটা গতি এসেছে। ভালোভাবে ব্যবসা চললে করোনাকালের ঋণ পরিশোধ করা যাবে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]