ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ব্যাটিংটা থাকল দুশ্চিন্তা হয়ে
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:৪০ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 19

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
করোনা বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা আর ২০২১ সালের শুরুটা জয়ে রাঙাল বাংলাদেশ। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সাকিব আল হাসানের প্রত্যাবর্তন আর নিয়মিত ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে তামিম ইকবালের অভিষেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে স্বাগতিকরা। জয়ের ব্যবধান আরও বড় হবে, অতিথিদের মাত্র ১২২ রানে বেঁধে রাখার পর এমন প্রত্যাশাই ছিল। ব্যাটসম্যানরা সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি।
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বুধবার ৩২.২ ওভারেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের অনভিজ্ঞ ব্যাটিং লাইনআপকে বেঁধে ফেলে বাংলাদেশ। অতিথিদের বোলিং লাইনআপও ছিল অনভিজ্ঞ। তাই ধারণা করা হয়েছিল, ব্যাটিংয়ে তেমন কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না তামিম-লিটনদের। সেই ধারণা বদলে যেতে সময় লাগল না। ১২৩ রানের জয়ের ঠিকানায় পৌঁছতে বাংলাদেশকে ব্যাট করতে হলো ৩৩.৫ ওভার! হারাতে হলো ৪ উইকেট, সেটাও তামিম-লিটনের উদ্বোধনী জুটিতে ৪৭ রান আসার পরও!
দলের বোলিং নিয়ে প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই। বরং যে বোলিং সাকিব-হাসান-মোস্তাফিজদের থেকে দেখা গেছে, তা ছিল দুর্দান্ত। দশ মাসেরও বেশি সময় পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার মঞ্চে জয় পাওয়াটাও সন্তুষ্টির। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের যে (দ্বিতীয় সারির) দলটার বিপক্ষে জয় এসেছে আর জয়টা যেভাবে এসেছে, সেটা নিয়ে প্রশ্ন থাকছেই। জয়টাকে আতশি কাচের নিচে রেখে দেখলে ব্যাটিংয়ে খামতি থেকে যাওয়াটা চোখে পড়বেই। সন্দেহ নেই, তামিম-লিটন ভালো ভিত গড়ে দিয়েছেন, কিন্তু তাদেরও ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে কথা থাকছে।
মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবেই ডানহাতি ওপেনার লিটন পরিচিত। একাই প্রতিপক্ষের বোলিং আক্রমণ ধ্বংস করে দিতে জানেন তিনি। কিন্তু এদিন কচি-কাঁচাদের নিয়ে গড়া ক্যারিবীয় বোলিং আক্রমণ সামলাতেই হিমশিম খেতে দেখা গেছে তাকে। এই ডানহাতি ১৪ রান করেছেন, কিন্তু খেলেছেন ৩৮ বল। তিনি ফেরার পর দ্রুত সাজঘরের পথ ধরেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১ রান করা এই বাঁহাতি যেভাবে মিড উইকেট ফিল্ডারকে ক্যাচিং প্র্যাকটিস করালেন, তা ছিল দৃষ্টিকটূ। দৃষ্টিকটূ ছিল তামিমের স্টাম্পড হওয়াটাও।
লক্ষ্য ছোট হওয়ার পরও স্বাভাবিক খেলাটা না খেলে নিজেদের উপর ব্যাটসম্যানরা যেন বাড়তি চাপ নিয়ে ফেলেছিলেন। সে কারণেই জয় কিছুটা কষ্টসাধ্য আর বিলম্বিত হয়েছে। ম্যাচ শেষে সাকিব জানালেন, লম্বা সময় পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরায় তারা কিছুটা নার্ভাস ছিলেন, ‘দীর্ঘ বিরতির পর খেলতে নামায় আমরা সবাই কিছুটা নার্ভাস ছিলাম। তবে পরবর্তী ম্যাচের আগে এই জয়টা আমাদের স্বস্তি দিয়েছে।’
দলীয় অধিনায়ক তামিম ইকবালের ব্যাটিং ভালো না হওয়ার পেছনে উইকেটের ওপরই দায় চাপালেন। ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন, ‘ব্যাটিংয়ের জন্য উইকেটটা বেশ কঠিন ছিল। আক্রমণাত্মক শট খেলার ক্ষেত্রে তো আরও বেশি কঠিন। খেলতেই পারবেন না। প্রথমে যখন উইকেটটা দেখেছিলাম, মনে হয়েছিল ভালো উইকেট হবে। কিন্তু সারা দিনে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি, তাই কাউকে দোষ দেওয়া যায় না। এ ধরনের উইকেটে সামনে গিয়ে ব্যাট হাঁকানো যায় না। তাই পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাটিং করার চিন্তাই করেছি।’
সাকিবকে তার প্রিয় তিন নাম্বার পজিশন থেকে নামিয়ে চারে খেলানো হয়েছে। সাকিব চেষ্টা করেছেন নতুন পজিশনেও নিজেকে মেলে ধরার। কিন্তু তিনে খেলা শান্তর মধ্যে সেই চেষ্টা একেবারেই দেখা যায়নি। বিষয়টা সমালোচনার খোরাক যোগাচ্ছে। ম্যাচ শেষে এটা নিয়ে কথা বলতে হয়েছে সাকিবকেও। কিন্তু সিদ্ধান্তটা যেহেতু টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচ আর অধিনায়ক তামিমের, বিষয়টা তাদের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।
যে পজিশনেই ব্যাট করেন না কেন, সাকিব কেবল নিজের কাজটা করে যেতে চান, ‘কোচ, অধিনায়ক, টিম ম্যানেজমেন্ট একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, খেলোয়াড় হিসেবে আমাকে সেটার সম্মান করতে হবে। আমি রাজি থাকি কিংবা নারাজ, সেটা বড় কথা নয়। সবসময় আমি টিমের হয়ে খেলার চেষ্টা করি। আমার কাছে ব্যক্তিগত অর্জনের থেকে দলগত অর্জন সবসময়ই বড় মনে হয়। এটা বড় কোনো পার্থক্য করবে না মনে হয়।’









সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]