ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১ ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ৯ মার্চ ২০২১

ইতিহাস বদলে দেওয়ার চ্যালেঞ্জ
প্রকাশ: বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১০:৩৩ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 16

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
করোনকালে টিম বাংলাদেশের প্রথম সফর, সেটাও এমন একটা দেশে, যেখানে দ্বিপাক্ষিক লড়াইয়ে কখনই জয়ের স্বাদ পায়নি তারা। এবারের নিউজিল্যান্ড সফরে বাড়তি একটা চ্যালেঞ্জ তাই থাকছে। সেই চ্যালেঞ্জটা অবশ্য নিচ্ছে টাইগাররা। মঙ্গলবার বিকালে তারা দেশ ছেড়েছে ইতিহাস বদলে দেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়ে। তিন ওয়ানডে আর সমসংখ্যক টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজে এবার ভালো কিছু করে দেখাতে চান তামিম ইকবাল-মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা।
সেই ২০০১ সাল থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে পাঁচবার নিউজিল্যান্ড সফর করেছে বাংলাদেশ দল। তিন সংস্করণ মিলিয়ে খেলেছে ২৬টি ম্যাচ, এর কোনোটিতেই জয় নেই টাইগারদের। ২০১৯ সালে শেষবার যখন দেশটি সফর করেছিল তারা, ক্রাইস্টচার্চের একটি মসজিদে বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলার জেরে সফরটি অসম্পন্ন রেখেই ফিরেছিল দেশে। তার আগে যে তিনটি ওয়ানডে খেলেছিল বাংলাদেশ, হেরেছিল সবকটিতে। সেখানকার পেস-বান্ধব কন্ডিশনে বরাবরই নাস্তানাবুদ হয়েছে টাইগাররা।
নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন সফরকারী সব দলের জন্যই চ্যালেঞ্জিং। স্পিন-সহায়ক কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত উপমহাদেশের দলগুলোর জন্য চ্যালেঞ্জটা আরও বেশি। এবার সেখানে টিম বাংলাদেশ গেছে দেশের মাটিতে কোনো প্রস্তুতি ক্যাম্প না করেই। করোনার কারণে সেখানে গিয়ে এবার থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে। সেটা শেষ হওয়ার পরই কেবল পুরোদমে অনুশীলনের সুযোগ মিলবে, তাও বেশিদিনের জন্য নয়। ময়দানি লড়াই যে শুরু হয়ে যাবে কোয়ারেন্টাইন শেষ হওয়ার দিন দশেকের মধ্যেই।
সফরের শর্ত অনুযায়ী তিন দফায় করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়ে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চগামী বিমানে চেপেছে ৩৫ জনের বাংলাদেশ বহর। সেখানে যাওয়ার পর আরেক দফা করোনা পরীক্ষা হবে। তারপর শুরু হবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন। প্রথম সাত দিন লিংকন ইউনিভার্সিটি হাই পারফরম্যান্স সেন্টারে নিজ নিজ রুমে বন্দি থাকতে হবে টাইগারদের। কেউ কারও সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। খাবার রান্না করা বাদে নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজগুলো নিজেদেরই করতে হবে। প্রথম সপ্তাহ পার হওয়ার পর সীমিত পরিসরে জিম করা আর অনুশীলনের সুযোগ পাবেন টাইগাররা।
কিন্তু আগের সাতটা দিন বন্দি থেকে যে মানসিক যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে যাবেন তারা, সেই যন্ত্রণায় সবাই না আবার নুয়ে পড়েন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে দেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজে ধবলধোলাই হওয়ার পর এমনিতেই মানসিকভাবে খুব ভালো অবস্থায় টাইগাররা নেই। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজেই দেশে জৈব-সুরক্ষা বলয়ে থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সুযোগ তাদের হয়েছে, তাই কোয়ারেন্টাইন নিয়েও অভিজ্ঞতা টাইগারদের আছে কিছুটা। এ ক্ষেত্রে সেটা কিছুটা উপকারে আসতে পারে। তা ছাড়া কোয়ারেন্টাইনের পর সবাই নেগেটিভ হলে আর কোনো সমস্যা নেই। কারণ, জৈব-সুরক্ষা বলয়ে থাকার ঝামেলা নিউজিল্যান্ডে নেই।
ফলে মুক্ত বিহঙ্গের মতো ঘুরে বেড়াতে পারবেন তামিম-মুশফিকরা। কিন্তু স্বস্তিতে থাকার সুযোগ তাদের নেই। কারণ, এই সময়ে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড দল খেলছে তাদের ইতিহাসের সেরা ক্রিকেট। তাই এবারের সফরেও বাংলাদেশ কতটা কি করতে পারবে, তা নিয়ে সংশয় থাকছেই। যদিও দেশ ছাড়ার আগে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম জানিয়ে গেলেন, ইতিহাস বদলে দেওয়াই লক্ষ্য তাদের, ‘নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন বরাবরই আমাদের জন্য কঠিন। তবে অসম্ভব কিছুই না। নিউজিল্যান্ডে আমরা যা কোনো দিন অর্জন করতে পারিনি, চেষ্টা করব এবার যেন সেটা বদল করতে পারি। আমরা আশাবাদী।’
বিমান ধরার আগে তামিমের মতো ইতিহাস বদলে দেওয়ার প্রত্যয় শোনা গেল তরুণ অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের কণ্ঠেও, ‘অনেক চাপ থাকবে কি না, সেসব ভাবছি না। প্রসেসটা ঠিক রাখলে সফলতা পাব। আশা করি, আমরা পুরনো ইতিহাস পাল্টাতে পারব।’ প্রস্তুতির প্রসঙ্গ সামনে টেনে সাইফউদ্দিন যোগ করলেন, ‘আমরা কয়েকদিন সময় পাব অনুশীলনের জন্য। কোচিং স্টাফদের সহায়তা নিয়ে কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব।’ ভালো কিছুর আশাবাদ ব্যক্ত করলেন সৌম্য সরকারও, ‘অবশ্যই ভালো কিছু হবে। সবাই যেভাবে ফিট হয়েছে বা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছে, নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে আশা করি ভালো কিছুই হবে।’
ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তিন ওয়ানডের সিরিজে ধবলধোলাই করার সুখস্মৃতিটাও বাড়তি অনুপ্রেরণা দিচ্ছে টাইগারদের। নিউজল্যান্ডে বাংলাদেশের এবারের মিশনও শুরু হবে তিন ওয়ানডের সিরিজ দিয়ে। প্রথম ম্যাচটি হবে ২০ মার্চ, ২৩ আর ২৬ মার্চে হবে সিরিজের শেষ দুই ওয়ানডে। টি-টোয়েন্টি ম্যাচ তিনটি হবে ২৮, ৩০ মার্চ এবং ১ এপ্রিল।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]