ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১০ বৈশাখ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১

কায়েমা-উর্মির সোনালি দিন
প্রকাশ: শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 12

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
ম্যাচটা শেষ হতেই চোখ বেয়ে নামল জলের ধারা, কিছুতেই সেটা আটকাতে পারছিলেন না কায়েমা খাতুন। কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে মেয়েদের ৪৮ কেজি ওজন শ্রেণির ফ্লাইওভারে সোনা জয়ের পর এভাবেই আনন্দাশ্রুতে ভাসলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের এই বক্সার। বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে বৃহস্পতিবার কায়েমার মতো সোনালি আভায় উদ্ভাসিত হয়েছেন যশোরের মেয়ে উর্মি আক্তারও। বড় দুই তারকা শাপলা আর এলিনার অনুপস্থিতিতে ব্যাডমিন্টনের নারী এককে সোনা জিতেছেন তিনি। পুরুষ এককে সেনাবাহিনীর আল আমিন জুমারকে সরাসরি ২-০ সেটে হারিয়ে প্রত্যাশিতভাবেই সোনার পদকটা নিজের করে নিয়েছেন গৌরব সিং।
মাত্র তিন মাস বয়সে বাবাকে হারান কায়েমা। যখন হাঁটতে শেখেন, তখন তার মা দ্বিতীয়বার বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। ছোট্ট কায়েমার স্থান হয় নানির কাছে। তখন থেকেই তার সংগ্রাম শুরু। কিছুটা বড় হওয়ার পর নানিকে মেসে রান্না করে সংসার চালাতে দেখে স্বাবলম্বী হওয়ার পথ খুঁজেন কায়েমা, বেছে নেন বক্সিং খেলাটাকে। নেমে পড়েন রিংয়ে। কোচ রাজু আহমেদের কাছে গত বছর ধরে শিখেছেন প্রতিপক্ষকে ঘায়েলের কৌশল। সেই কৌশল কাজে লাগিয়েই বৃহস্পতিবার মোহাম্মদ আলী বক্সিং স্টেডিয়ামের রিংয়ে সোনালি দিন দেখেছেন কায়েমা। সোনা জয়ের পর প্রতিভাবান এই বক্সারকে সব রকম সহায়তা প্রদানের আশ^াস দিয়েছে বক্সিং ফেডারেশন।
কায়েমার পারফরম্যান্স দেখে তাকে দলে ভেড়াতে ইতোমধ্যেই যোগাযোগ করেছে বাংলাদেশ আনসার। এই সংস্থাটিকেই এদিন সোনালি সাফল্য উপহার দিয়েছেন উর্মি। সবশেষ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেওয়া এই শাটলার ২-১ সেটে হারিয়েছেন সেনাবাহিনীর বৃষ্টি খাতুনকে। ফাইনালে এদিন শুরুটা ভালো ছিল না তার, ২১-২৩ পয়েন্টে হেরে বসেছিলেন প্রথম সেট। এরপর ঘুরে দাঁড়ান দুর্দান্ড প্রতাপে। শেষ দুই সেট জিতে নেন ২১-১৩ আর ২১-১৪ পয়েন্টের ব্যবধানে। সোনা জয়ের পর উর্মি বলেছেন, ‘র‌্যাঙ্কিং টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম, সেই আত্মবিশ^াস থেকে গেমসে সোনা জিতলাম। ২০১৬ সাল থেকে সিনিয়রে খেলি, এটিই আমার সেরা সাফল্য।’
এদিন মেয়েদের হ্যান্ডবল ইভেন্ট থেকেও সোনা পেয়েছে আনসার। শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালে বাংলাদেশ পুলিশকে ৪২-২০ গোলে হারিয়েছে তারা। ছেলেদের বাস্কেটবলের সোনা গেছে নৌবাহিনীর ঝুলিতে। তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফাইনালে সেনাবাহিনীকে ৫৭-৫২ পয়েন্টে হারিয়েছে তারা। অথচ ম্যাচের প্রথম কোয়ার্টারে একক আধিপত্য ছিল সেনাবাহিনীর, তারা এগিয়ে ছিল ২১-৯ পয়েন্টে। এরপর ঘুরে দাঁড়ায় নৌবাহিনী। অধিনায়ক শোয়েবের দারুণ পারফরম্যান্সে পরের তিন কোয়ার্টারেই আধিপত্য বিস্তার করে সোনার পদকটা নিজেদের করে নেয় তারা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২২ পয়েন্ট স্কোর করেন অধিনায়ক শোয়েব। এই ইভেন্টে ব্রোঞ্জ পেয়েছে রাজশাহী জেলা।
এদিকে মেয়েদের ভারোত্তোলনে ৭৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে সোনা জিতেছেন আনসারের জহুরা খাতুন নিশা। স্ন্যাচে ৭১ আর ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ৯১ কেজি মিলিয়ে ১৬২ কেজি ওজন তুলে সেরা হন তিনি। ১৫৩ কেজি ওজন তুলে রুপা পেয়েছেন সেনাবাহিনীর রোকেয়া সুলতানা, বাংলাদেশ জেলের আয়েশা খাতুন পান্না ব্রোঞ্জ পেয়েছেন ১১৯ কেজি ওজন তুলে। মেয়েদের ৮১ কেজি ওজন শ্রেণিতে সোনা গেছে সেনাবাহিনীর ঝুলিতে। স্ন্যাচে ৭৫ আর ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ৯৪, মোট ১৬৯ কেজি ওজন তুলে সোনা জিতেছেন মনিরা কাজী। আনসারের ফিরোজা পারভীন ১২৩ কেজি তুলে রুপা আর জেলের আনুফা আক্তার ১০৫ কেজি তুলে ব্রোঞ্জ পেয়েছেন।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক: হারুন উর রশীদ, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]