ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১০ বৈশাখ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১

মাহে রমজানের চূড়ান্ত প্রস্তুতি
প্রকাশ: শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 67

মুহাম্মাদ হাবীব আনওয়ার
রমজানের আগামবার্তা জানিয়ে বিদায় নিতে চলেছে শাবান মাস। এ মাসের শেষেই রমজানের প্রথম প্রহরে ঝলমলে একফালি চাঁদের প্রতীক্ষায় পুরো মুসলিম বিশ^। রহমত, নাজাত আর মাগফিরাতের বার্তা নিয়ে আসা রমজানের অপেক্ষায় প্রহর গোনা মুমিনের বৈশিষ্ট্য। রমজান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে মুমিনদের প্রতি বিশেষ অনুগ্রহ। রমজানে প্রতি আমলের প্রতিদান আল্লাহ তায়ালা সত্তরগুণ বাড়িয়ে দেন। রমজান আসার পূর্বেই শাবান মাসে আল্লাহর রাসুল (সা.) রমজানের প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন। সাহাবায়ে কেরামদের (রা.) নিয়ে মজলিশ করতেন। রমজানের প্রস্তুতি হিসেবে আল্লাহর রাসুল (সা.) শাবান মাসে অন্যান্য মাসের তুলনায় বেশি বেশি নফল রোজা, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত ও নামাজ আদায় করে মাহে রমজানের পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন। মুসলিম শরিফের একটি হাদিসে হজরত আয়েশা (রা.) বলেছেন, নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কখনও নফল রোজা রাখতে শুরু করলে আমরা বলাবলি করতাম, তিনি বিরতি দেবেন না। আর রোজার বিরতি দিলে আমরা বলতাম যে, তিনি মনে হয় এখন আর নফল রোজা রাখবেন না। আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে রমজান ব্যতীত অন্য কোনো মাসে পূর্ণ এক মাস রোজা পালন করতে দেখিনি। কিন্তু শাবান মাসে তিনি বেশি নফল রোজা রেখেছেন।
রমজান যেহেতু মুসলিম উম্মাহর জন্য এক আলোকবর্তিকা নিয়ে হাজির হয় এজন্য মুসলিম উম্মাহর কর্তব্য রমজানের
যথাযথ গুরুত্ব অনুধাবন করা। প্রতিজন মুমিনের উচিত রমজান আসার আগেই রমজানের প্রস্তুতি গ্রহণ করা। নিজের জীবনকে আমলের মাধ্যমে সুন্দর ও সমৃদ্ধি করা। যাপিত জীবনের সব পাপ পঙ্কিলতাগুলো ধুয়ে-মুছে আল্লাহর প্রিয় পাত্র হওয়ার চেষ্টা করা। আল্লাহ তায়ালা এই মাসকে হেদায়াতের মাস বানিয়েছেন। রহমতের মাস উল্লেখ্য করেছেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘রমজান মাস, যে মাসে বিশ^মানবের জন্য পথ প্রদর্শন এবং সুপথের উজ্জ্বল নিদর্শন এবং হক ও বাতিলের প্রভেদকারী কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে। অতএব তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি সেই মাসে (নিজ আবাসে) উপস্থিত থাকে সে যেন সিয়াম পালন করে এবং যে ব্যক্তি পীড়িত অথবা প্রবাসী, তার জন্য অন্য কোনোদিন হতে গণনা করবে; তোমাদের পক্ষে যা সহজসাধ্য আল্লাহ তাই ইচ্ছা করেন ও তোমাদের পক্ষে যা দুঃসাধ্য তা ইচ্ছা করেন না এবং যেন তোমরা নির্ধারিত সংখ্যা পূরণ করে নিতে পার এবং তোমাদেরকে যে সুপথ দেখিয়েছেন তজ্জন্য তোমরা আল্লাহকে মহিমান্বিত কর এবং যেন তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর।’ (সুরা বাকারা : ১৮৫)। রোজা পালনকারীদের সুসংবাদ দিয়ে আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘জান্নাতের রাইয়্যান নামক একটি দরজা আছে। এ দরজা দিয়ে কিয়ামতের দিন সওম পালনকারীরাই প্রবেশ করবে। তাদের ব্যতীত আর কেউ এ দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। ঘোষণা দেওয়া হবে, সওম পালনকারীরা কোথায়? তখন তারা দাঁড়াবে। তারা ব্যতীত আর কেউ এ দরজা দিয়ে প্রবেশ করবে না। তাদের প্রবেশের পরই দরজা বন্ধ করে দেওয়া হবে। যাতে করে এ দরজাটি দিয়ে আর কেউ প্রবেশ না করে।’ (বুখারি : ১৮৯৬)
এমন বরকতময় মাসকে কাজে লাগানোর জন্য পূর্ব থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করা। কোনোরকম হেলায় খেলায় যেন পবিত্র এই মাসের ফজিলত হাত ছাড়া না হয় সেই দিকে লক্ষ রাখা। শেষ মুহূর্তে চলুন কিছু প্রস্তুতি গ্রহণ করে নিই।
আমলের প্রস্তুতি
রমজান মাস যেহেতু আমলের মাস, তাই এ মাসের মুখ্য বিষয় হওয়া দরকার আমল। কীভাবে আমলের পাল্লা ভারী হবে, পরকালে নাজাত পাওয়া যাবেÑ সেই ফিকিরে রমজানকে অতিবাহিত করাই হবে একজন মুমিনের আসল কাজ। রমজানের শুরুতেই একটা খসড়া তৈরি করা। কোন আমল কখন করবেন। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজগুলো ঠিকমতো জামাতের সঙ্গে আদায় করার পাশাপাশি কয় খতম কোরআন তেলাওয়াত করবেন, কত হাজার কালেমা, জিকির আজকার করবেনÑ তার একটা টার্গেট নির্ধারণ করা। বিশেষ করে রমজানের শেষ দশকে ইতেকাফের জন্য পূর্ণ প্রস্তুতি গ্রহণ করা। যারা কোরআন তেলাওয়াত জানেন না অথবা শুদ্ধ করে তেলাওয়াত করতে পারেন না, তারা এই রমজানে কোরআন শেখার কাজটা শেষ করতে পারেন। প্রতিদিন তারাবিগুলো ঠিকমতো আদায় করা। নফল নামাজ পড়ার জন্য দৈনন্দিন একটা টার্গেট ঠিক করা।
পারিবারিক প্রস্তুতি
রমজানকে সামনে রেখে পারিবারিক প্রস্তুতি আমরা এভাবে নিতে পারি। পারিবারিক কেনাকাটা, বাজার সদাই আত্মীয় বাড়ি যাওয়া রমজানের পূর্বের সেরে ফেলা। যাতে রমজানে উটকো ঝামেলা থেকে নিজেকে রক্ষা করে নিমগ্ন হয়ে ইবাদত করা যায়। সেই সঙ্গে ঘরের সদস্যদের নিয়ে প্রতিদিন রমজানের ফাজায়েল-মাসায়েল আলোচনা করা। এতে করে সবার মধ্যে রমজানের গুরুত্ব চলে আসবে। পরিবারের প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক সদস্য যেন রোজা পালন করে সেই বিষয় খেয়াল রাখা। রোজা থাকা অবস্থায় ঝগড়া-বিবাদ এড়িয়ে চলা। অশ্লীল কাজ থেকে বিরত থাকা। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, আল্লাহ‌র রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘রোজা ঢালস্বরূপ।
সুতরাং অশ্লীলতা করবে না এবং মূর্খের মতো কাজ করবে না। যদি কেউ তার সঙ্গে ঝগড়া করতে চায়, তাকে গালি দেয়, তবে সে যেন দুবার বলে, আমি সওম পালন করছি। ওই সত্তার শপথ, যার হাতে আমার প্রাণ, অবশ্যই সওম পালনকারীর মুখের গন্ধ আল্লাহর নিকট মিসকের সুগন্ধির চেয়েও উৎকৃষ্ট, সে আমার জন্য আহার, পান ও কামাচার পরিত্যাগ করে। সিয়াম আমারই জন্য। তাই এর পুরস্কার আমি নিজেই দান করব। আর প্রত্যেক নেক কাজের বিনিময় দশগুণ।’ (বুখারি : হাদিস ১৮৯৪)
সামাজিক প্রস্তুতি
সমাজের সবাইকে নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচার চালানো। বিভিন্ন দোকানপাটে অন্তত রমজান মাসে যেন টিভি-সিরিয়াল বন্ধ থাকে সেই ব্যবস্থা করা। গরিব-অসহায় ব্যক্তিদের রমজানের আগেই সম্মিলিত বা এককভাবে সহায়তা করা। তাদের রমজানটাও যেন দুশ্চিন্তামুক্ত হয়ে ইবাদতের মাধ্যমে অতিবাহিত হয় সেই ব্যবস্থা করা।
অফিস প্রস্তুতি
যারা অফিস-আদালতে কাজ করেন, সম্ভব হলে কিছু কাজ অগ্রিম করে রাখা। অথবা প্রতিদিনের কাজ প্রতিদিন করে রাখা। এর ফলে কাজের বাড়তি চাপ কম থাকার দরুন আপনার সারাদিন টেনশন মুক্ত থাকবে। সেই সঙ্গে অফিসের ফাঁকে ফাঁকে নামাজ, তেলাওয়াতসহ গুরুত্বপূর্ণ কিছু আমলের পরিবেশ করে রাখা।
ব্যবসায়িক প্রস্তুতি
যারা ব্যবসা করেন, তারা আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের একটি গুরুত্বপূর্ণ সুন্নাত পালন করছেন। তবে ব্যবসাটা অবশ্যই আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের দেখানো পথে হতে হবে। রমজান মাসে অন্তত দ্রব্যমূল্য ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখি। সিন্ডিকেট করে মূল্য বৃদ্ধি থেকে বিরত থাকা। আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের প্রতি যে সুসংবাদ, ‘সত্যবাদী, বিশ^স্ত ব্যবসায়ী কিয়ামতের দিন নবী, সিদ্দীকীন, শহীদগণ ও নেককারদের সঙ্গে
   থাকবেন।’ এটা অর্জনের চেষ্টা করা।এ ছাড়াও মেহমানদারি, অন্যের প্রতি সহনশীল আচরণ, দান-সদকা, গুনাহের মাধ্যমগুলো এড়িয়ে চলার প্রতি গুরুত্বারোপ করা। সন্তান-সন্ততি, পরিবারপরিজনদের হক আদায়ে সচেষ্ট থাকা। সর্বোপরি লক্ষ রাখাÑ রমজানে প্রতিটি মুহূর্ত যেন আমলের
মাধ্যমে অতিবাহিত হয়।








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক: হারুন উর রশীদ, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]