ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১০ বৈশাখ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১

সৎপথে আহ্বান
প্রকাশ: শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 28

আশফাক জাদিদ
কিছু মানুষ আত্মশুদ্ধি ও নিজের সুপথ প্রাপ্তিকেই চূড়ান্ত সফলতা মনে করে থাকে। সফল জীবনের জন্য চারপাশের মানুষেরও যে পরিশুদ্ধ জীবন ও আত্মসংশোধন প্রয়োজন তা অনুভব করে না। একই সঙ্গে নিজেদের উন্নতির পাশাপাশি তাদের উন্নয়ন ও সুপথ প্রদর্শনের চিন্তা করাও যে সবার দায়িত্ববোধের মধ্যে পড়ে, তা অনেকে মনে করে না। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হচ্ছে, ‘হে পুত্র, নামাজ কায়েম কর, মানুষকে সৎকাজের আদেশ দাও, মন্দকাজ করতে নিষেধ কর এবং বিপদাপদে সবর কর। নিশ্চয় এটা সাহসিকতার কাজ।’ (সুরা লুকমান, আয়াত : ১৭)। অন্য আয়াতে মহান আল্লাহ বলেন, ‘আর তার চেয়ে কার কথা উত্তম, যে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেয়, সৎকর্ম করে এবং বলে, অবশ্যই আমি মুসলিমদের অন্তর্ভুক্ত।’ (সুরা ফুসসিলাত, আয়াত : ৩৩)। মহান আল্লাহ এ সম্পর্কে আরও বলেন, ‘আর যেসব লোক সুদৃঢ়ভাবে কিতাবকে আঁকড়ে থাকে এবং নামাজ প্রতিষ্ঠা করে নিশ্চয়ই আমি বিনষ্ট করব না সৎকর্মীদের সওয়াব।’ (সুরা আল আরাফ, আয়াত : ১৭০)। সুতরাং উপরোল্লিখিত আয়াতসমূহে একথা স্পষ্ট যে, জাতিকে দ্বীনের প্রতি আহ্বান করা এবং তাদের সংশোধনে আত্মনিয়োগ করা প্রতিটি সচেতন মানুষের দায়িত্ব ও অবশ্য কর্তব্য এবং এটি মহানবী (সা.)-এর গুরুত্বপূর্ণ সুন্নতও বটে। সুরা ইউসুফের ১০৮ নম্বর আয়াতে ইরশাদ হচ্ছে, ‘এটা আমার পথ। আমি জেনে-বুঝে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেই এবং যারা আমার অনুসরণ করেছে তারাও।’
ইসলামের একজন সফল প্রচারক ও দাঈর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, তাঁর দাওয়াত ও আহ্বান মানুষের মধ্যে ইতিবাচক প্রতিফলিত হয়। তাঁর আহ্বানে সাড়া দিয়ে তারা আত্মিক প্রশান্তি লাভ করে এবং একই সঙ্গে নতুন জীবনে প্রবেশের পর অন্যকেও তাদের নয়া পথে আহ্বানের তাড়না অনুভব করে। যারা এখনও সুপথপ্রাপ্ত হয়নি তাদের পথপ্রাপ্তির জন্য তাদের অন্তরে ব্যথা ও অস্থিরতা শুরু হয়। কেননা, তাঁরা বুঝতে পারে প্রকৃত ঈমানের দাবি তো এটাই।
আর বলা বাহুল্য, খাঁটি ঈমান অন্যকে সৎ পথে আহ্বানের আগে মুমিনের নিজের জীবনকে পরিশীলিত করার শিক্ষা দেয়। তার কথা আর কাজ হয় অভিন্নÑ এ রকম হলেই মুমিন অন্যের হৃদয়ে প্রভাব বিস্তার করতে পারে। এ প্রসঙ্গে একজন বিখ্যাত মুফাসসির বলেন, ‘আবেগ মিশ্রিত ও কর্ম সমর্থিত আহ্বানই ফলদায়ক হয়। যা অন্যকে কর্মের পথে পরিচালিত কর।’
তিনি আরও বলেন, ‘যদি কোনো দাঈর কথায় কাজে মিল না থাকে তা হলে তার দাওয়াত ও আহ্বান মানুষের হৃদয় পর্যন্ত পৌঁছে না। যদিও তার ভাষা অত্যন্ত সুমিষ্ট ও সাহিত্যপূর্ণ হয়। দ্বীনের দাঈ অবশ্যই আমানতদার হবে। কেননা, তার কথা হলো আজান ও আহ্বান।’ যদি আহ্বানকারীর মধ্যে আমল না থাকে তা হলে তার আহ্বান ফলপ্রসূ হবে না। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আল্লাহ কোনো জাতির অবস্থা পরিবর্তন করেন না, যে পর্যন্ত না তারা তাদের নিজেদের অবস্থা পরিবর্তন করে।’ (সুরা রাদ : আয়াত ১১)। আল্লাহ আমাদের কবুল করেন। আমিন।








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক: হারুন উর রশীদ, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]