ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১০ বৈশাখ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১

অনিন্দ্যসুন্দর প্যারিসের গ্র্যান্ড মসজিদ
প্রকাশ: শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 47

মোস্তফা কামাল গাজী
একসময় ফ্রান্স ছিল মুসলমানদের পুণ্যভূমি। দিকে দিকে ছিল মুসলমানদের জয়জয়কার। ফলে সেখানে গড়ে উঠেছিল শত শত মসজিদ। কালের আবর্তে ফ্রান্স মুসলমানদের হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার পর অনেক মসজিদ ধ্বংস হয়ে যায়। তবে বর্তমানে সেখানে বেশ কিছু অত্যাধুনিক মসজিদ নির্মিত হয়েছে। তন্মধ্যে রাজধানী প্যারিসের গ্র্যান্ড মসজিদ অন্যতম। এটি ফ্রান্সের সবচেয়ে বড় এবং ইউরোপ মহাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ। প্রথম বিশ^ যুদ্ধে ফ্রান্সের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে যেসব মুসলমান নিহত হয়েছেন, তাদের স্মরণে মসজিদটি নির্মিত হয়। ফ্রান্সে বসবাসরত মুসলমানরা ১৮৯৫ সালে প্রথম প্যারিস শহরে একটি মসজিদ নির্মাণের পরিকল্পনা করেন। কিন্তু আর্থিক সঙ্কটের কারণে সে পরিকল্পনা তখন আলোর মুখ দেখেনি। প্রথম বিশ^যুদ্ধের পর মরক্কোর বংশোদ্ভূত একজন মুসলিম নেতা ফ্রান্স সরকারের কাছে এই মসজিদ নির্মাণের পরিকল্পনা পেশ করেন। ফ্রান্সের আঞ্জুমানে ওকাফের সভাপতির দায়িত্ব পালনকারী সেই মুসলিম নেতার নাম ছিল সাইয়েদ কাদ্দুর বিন কিবরিয়াত। তিনি যখন এ প্রস্তাব তুলে ধরেন, তখন প্রথম বিশ^ যুদ্ধে জার্মান বাহিনীর আগ্রাসন প্রতিহত করতে গিয়ে নিহত মুসলমানদের স্মরণে কিছু একটা করে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি মুসলিম সমাজকে খুশি করতে চাচ্ছিল ফরাসি সরকার।
মসজিদ নির্মাণের প্রস্তাবে প্যারিস সরকারের সে কাজটি অনেকটা সহজ হয়ে যায়। ১৯২২ সালে ফ্রান্সের পার্লামেন্টে এই মসজিদ নির্মাণের প্রস্তাব পাস হয় এবং এই কাজে পাঁচ লাখ ফ্রাঙ্ক অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়। প্যারিস সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে মসজিদ নির্মাণের জন্য নগরীর সবচেয়ে ভালো এলাকায় ৭ হাজার ৫০০ বর্গমিটার জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়। মসজিদ নির্মাণের কাজে ফ্রান্স সরকারের পাশাপাশি ফরাসি উপনিবেশভুক্ত দেশ আলজেরিয়া, তিউনিশিয়া ও মরক্কোর মতো দেশগুলোর মুসলমানরাও আর্থিক অনুদান দেন। ১৯২৬ সালের ১৫ জুলাই ফ্রান্সের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট গ্যাস্তোন দুমার্গ প্যারিস গ্র্যান্ড মসজিদ উদ্বোধন করেন। সেদিনই এই মসজিদে প্রথম নামাজের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজের ইমামতি করেছিলেন ফ্রান্সের বিশিষ্ট আলেম আহমাদ আল-আলাভি। ১৯৫৭ সাল পর্যন্ত এই মসজিদ পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন ফরাসি নাগরিকরা। সে বছর হামজা আবুবকর নামের আলজেরীয় বংশোদ্ভূত একজন মুসলমানকে এই মসজিদ পরিচালনা কমিটির প্রধান করা হয়। তিনি অবসরে যাওয়ার সময় মসজিদ পরিচালনার দায়িত্ব আলজেরিয়া সরকারের কাছে ন্যস্ত করেন। বিষয়টি ফরাসি নাগরিকরা তাদের দেশে বিদেশি হস্তক্ষেপ বলে গণ্য করেন এবং তাদের প্রতিবাদের মুখে ১৯৯২ সালে একজন ফরাসি নাগরিককে মসজিদ পরিচালনা কমিটির প্রধান নিযুক্ত করা হয়।
বর্তমানে প্যারিস গ্র্যান্ড মসজিদে স্থাপিত একটি ইসলামী সংস্থা ফ্রান্সের সব মসজিদ পরিচালনার দায়িত্ব পালন করছে। এই সংস্থা দ্বীনি শিক্ষা দেওয়ার জন্য ‘গাজ্জালি সেন্টার’ নামের একটি মাদ্রাসা পরিচালনা করে। ফ্রান্সের সব মসজিদের ইমামরা এই মাদ্রাসা থেকে শিক্ষাপ্রাপ্ত আলেম। মুসলমানদের বেশিরভাগ সামাজিক কাজের সঙ্গে প্যারিসের গ্র্যান্ড মসজিদ জড়িত। বিয়ে-তালাক, আইনি পরামর্শ, সারা দেশের জুমা ও ঈদের নামাজ পরিচালনা, হজে লোক পাঠানো, হালাল উপায়ে পশু জবাই করার ওপর নজরদারি, মৃত ব্যক্তিদের দাফন, এতিম শিশু ও অসহায় পরিবারগুলোকে সহায়তা প্রদানসহ এ ধরনের আরও অনেক সেবামূলক কাজ করে এই মসজিদ। মসজিদের ইসলামী সংস্থার উদ্যোগে এখানে স্থাপিত হয়েছে একটি বিশাল লাইব্রেরি। সেই সঙ্গে ইসলামকে অমুসলিমদের সামনে তুলে ধরার জন্য মসজিদের অডিটোরিয়ামে মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন সভা ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়। এ ছাড়া মুসলিমদের জন্য এখানে অনুষ্ঠিত হয় তাফসিরে কোরআন মাহফিল এবং হাদিস ও ফিকাহ শিক্ষার ক্লাস।
ইউরোপের যেসব দেশের সরকার সাম্প্রতিক সময়ে মুসলমানদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি তাদের গতিবিধির ওপর নজর রাখছে, ফ্রান্স তাদের অন্যতম। ইসলাম আতঙ্ক ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্যারিস ব্যাপক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এই দেশের বিশ^বিদ্যালয়গুলোতে মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর অবমাননা করে কার্টুন প্রকাশিত হয়েছে। আশ্চর্যের ব্যাপার হচ্ছে, ইসলাম বিদ্বেষী এতসব তৎপরতার পরও ফ্রান্সে গির্জার চেয়ে মসজিদের সংখ্যা বেশি!




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক: হারুন উর রশীদ, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]