ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১৬ মে ২০২১ ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ১৬ মে ২০২১

বায়ার্ন ছাড়ার ঘোষণা ফ্লিকের
প্রকাশ: সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১, ১০:২৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 24

ক্রীড়া ডেস্ক
জয়টা যদি হয় ঘাম ঝরানো, তবে কিছুটা কথা শোনাতেই পারেন কোচ। ভলসবুর্গের মাঠে ৩-২ ব্যবধান জিতে হয়তো এমন কিছুর অপেক্ষাই করছিল বায়ার্ন মিউনিখের ফুটবলাররা। কিন্তু ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে যখন মুখ খুললেন কোচ হ্যান্স ফ্লিক, তখন রাজ্যের বিস্ময় শিষ্যদের চোখে-মুখে। হওয়ারই কথা! অপ্রত্যাশিতভাবে বায়ার্ন ছাড়ার ঘোষণাই যে দিয়ে বসেছেন তিনি।
শনিবার রাতে প্রতিপক্ষের মাঠে প্রথমার্ধেই ৩ গোল পায় বায়ার্ন এবং বিপরীতে হজম করে একটি। পঞ্চদশ মিনিটে জামাল মুশিয়ালার গোলে এগিয়ে যাওয়ার ৯ মিনিট পর জার্মান জায়ান্টদের ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এরিক ম্যাক্সিম চুপো-মন্টিং। ৩৫ মিনিটে স্বাগতিকরা একটি গোল শোধ দেওয়ার দুই মিনিট বাদেই স্কোরলাইন ৩-১ করেন মুশিয়ালা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আরেকটি গোল শোধ দেয় ভলসবুর্গ। ৫৪ মিনিটে অতিথিদের জাল কাঁপান ফিলিপ। তাতে রোমাঞ্চকর শেষের অপেক্ষায় ছিল ম্যাচটি। তবে এরপর দুই দল আর কোনো গোল না পেলে ৩-২ ব্যবধানে জয়ের হাসি হাসে বায়ার্ন। এই জয়ে ২৯ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে বুন্দেসলিগা টেবিলের শীর্ষেই আছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।
তবুও ম্যাচ শেষে অপ্রত্যাশিত এক ঘোষণা দিলেন ফ্লিক। মৌসুম শেষ হওয়া মাত্র বায়ার্নের কোচের পদ খালি করে দেবেন তিনি। কিন্তু কেন? সরাসরি কোনো কারণ বলেননি জার্মান কোচ। তবে তার বক্তব্যে বোঝা গেছে, ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শিরোপা ধরে রাখার মিশনে শিষ্যদের ব্যর্থতার জন্য কঠিন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। বায়ার্ন ছাড়ার ঘোষণায় ফ্লিকের ভাষ্য ছিল ঠিক এমন, ‘মৌসুম শেষে আমি আমার চুক্তি বাতিল করব। প্যারিসে ম্যাচের পর (চ্যাম্পিয়ন্স লিগের) আমি ক্লাবকে এটা জানিয়েছি এবং দলকে বললাম আজ (শনিবার)। আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ যে দল এটা আমার থেকে জানুক। আমি খুব কৃতজ্ঞ যে আমাকে এই দলটির সঙ্গে থাকতে দেওয়া হয়েছে।’
বায়ার্নের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে ফ্লিকের নাম। ২০১৯ সালের নভেম্বরে তিনি জার্মান জায়ান্টদের প্রধান কোচের পদে বসেন। নিজের প্রথম মৌসুমেই বায়ার্নকে বুন্দেসলিগা, ডিএফবি-পোকাল (জার্মান কাপ) এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতিয়েছেন ফ্লিক। ইউরোপিয়ান ট্রেবল জেতানো কোচের আগাম পদত্যাগের ঘোষণায় স্বাভাবিকভাবেই অবাক শিষ্যরা। গোলরক্ষক এবং অধিনায়ক ম্যানুয়েল ন্যয়ার প্রতিক্রিয়া দেখান এভাবেই, ‘এটা আমাদের প্রত্যেকের জন্য একটি আবেগময় মুহূর্ত ছিল। দল হিসেবে এখন আমাদের এগিয়ে যেতে হবে, কারণ (ফ্লিকের অধীনে) খুব সফল একটি দল ছিলাম আমরা এবং সময়টাও খুব সুন্দর ছিল।’
ফ্লিকের এমন বিদায় মানতে পারছেন না থমাস মুলারও। অভিজ্ঞ এই জার্মান তারকা বলেন, ‘তিনি আমাদের বলেছেন যে তিনি চলে যাচ্ছেন। তিনি কোনো কারণ বলেননি। বিগত দেড় বছরে তিনি অনেক শক্তি দিয়েছেন।’ ক্লাব কর্তৃপক্ষকে খোঁচা দিয়ে মুলার আরও বলেন, ‘বায়ার্নে কোচ হিসেবে থাকতে হলে আপনার চামড়া শক্ত হওয়ার দরকার।’




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]