ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ১৬ মে ২০২১ ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ১৬ মে ২০২১

বিল গেটস ও মেলিন্ডার সংসার ভাঙল
বিয়ের ২৭ বছর পর ডিভোর্সের ঘোষণা
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ৫ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম আপডেট: ০৫.০৫.২০২১ ১:২৯ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 20

বিল ও মেলিন্ডা গেটস তাদের বিয়ের সাতাশ বছর পর এসে বিবাহবিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, ‘জুটি হিসেবে এগিয়ে যেতে পারি এটা আমরা আর বিশ^াস করি না।’ এক টুইট বার্তায় তারা ঘোষণা দিয়েছেন, ‘আমাদের সম্পর্কটি নিয়ে অনেক চিন্তাভাবনা ও কাজের পর আমরা আমাদের বিয়ের সমাপ্তি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ বিবিসি।
মেলিন্ডা ১৯৮০ সালে বিল গেটসের মাইক্রোসফটে যোগ দেওয়ার পর তাদের মধ্যে প্রথম পরিচয় হয়েছিল। বিলিওনেয়ার এই দম্পতির তিন সন্তান আছে এবং তারা যৌথভাবে বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন পরিচালনা করেন। প্রতিষ্ঠানটি সংক্রামক রোগ ও শিশুদের টিকাদান উৎসাহিত করতে বিলিয়ন ডলার অর্থ ব্যয় করে।
গেটস দম্পতি ও বিনিয়োগকারী ওয়ারেন বাফেটস দ্য গিভিং প্লেজÑ উদ্যোগের সঙ্গে জড়িত যার লক্ষ্য হলো ধনীদের সম্পত্তির সিংহভাগ দাতব্য কাজে ব্যয় করা। ফোর্বসের হিসেবে, বিল গেটস এ মুহূর্তে বিশে^র চতুর্থ ধনী এবং তার সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১২৪ বিলিয়ন ডলার। তিনি মূলত এ অর্থের মালিক হয়েছেন বিশে^র সবচেয়ে বড় সফটওয়্যার কোম্পানি মাইক্রোসফটের মাধ্যমে। ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠা করা এ কোম্পানির সহপ্রতিষ্ঠাতা তিনি। বিল ও মেলিন্ডা গেটস তাদের বিবাহবিচ্ছেদ সম্পর্কে টুইটারে বিবৃতি দিয়েছেন। গত ২৭ বছর ধরে আমরা তিনটি অসাধারণ সন্তানকে বড় করেছি এবং একটি ফাউন্ডেশন তৈরি করেছি যা বিশ^জুড়ে মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে কাজ করে। বিবৃতিতে তারা বলেন, ফাউন্ডেশনে আমরা একসঙ্গে কাজ করে যাব। কিন্তু জীবনের পরবর্তী ধাপে আমরা একসঙ্গে এগিয়ে যেতে পারব বলে আমরা আর বিশ^াস করি না। বিবৃতিতে তারা তাদের নতুন জীবনের গোপনীয়তার দিকটিও সবাইকে মনে করিয়ে দেন।
বিল ও মেলিন্ডার পরিচয় : মেলিন্ডা মাইক্রোসফটে যোগ দিয়েছিলেন প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে ১৯৮৭ সালে এবং ওই বছর তারা নিউইয়র্কে একটি বিজনেস ডিনারে মিলিত হয়েছিলেন। নেটফ্লিক্স ডকুমেন্টারিতে বিল বলেছেন, ‘আমরা একে অন্যের যথেষ্ট যত্ন করেছি এবং সেখানে দুটি সম্ভাবনা ছিলÑ হয় বিচ্ছেদ নয়তো বিয়ে।’ ১৯৯৪ সালে তারা বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। নিজের দাতব্য কাজে জোর দেওয়ার জন্য বিল গেটস গত বছর মাইক্রোসফট বোর্ড থেকে সরে দাঁড়ান।
বিচ্ছেদের খরচ : বিল-মেলিন্ডার যৌথ মালিকানাধীন সম্পত্তি কীভাবে ভাগ হবে বা বিচ্ছেদের চুক্তি কী হচ্ছে, সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষের কাছ থেকেই কিছু জানা যায়নি। সংশ্লিষ্ট আদালতের কাছে বৈবাহিক সম্পর্ক মিটিয়ে ফেলার আবেদনের পাশাপাশি বিচ্ছেদ চুক্তি অনুযায়ী ব্যবসায়িক স্বার্থ, দায়বদ্ধতা এবং যৌথ মালিকানাধীন সম্পত্তিও ভাগ করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।
বিশে^র অন্যতম শীর্ষ ধনী বিল গেটস নিজ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে বেসরকারিভাবে সবচেয়ে বেশি কৃষিজমির মালিক। গেটসের মালিকানায় রয়েছে ২ লাখ ৪২ হাজার একর কৃষিজমি। তবে দেশটির ১৮টি অঙ্গরাজ্যে ছড়িয়ে থাকা এসব কৃষিজমিতে যৌথ মালিকানায় মেলিন্ডারও নাম আছে। এর মধ্যে লুইজিয়ানায় ৬৯ হাজার ৭১ একর, আরকানসাসে ৪৭ হাজার ৯২৭ একর ও নেব্রাস্কায় ২০ হাজার ৫৮৮ একর কৃষিজমি রয়েছে।
ধারণা করা হচ্ছে, বিশে^র অন্যতম ধনী দম্পতির বিচ্ছেদের পর এখন এই সম্পত্তি ভাগের বিষয়টি জটিল আকার ধারণ করবে। এ ছাড়া গেটস পরিবারের সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলার। তাই বিল গেটসের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের আপস-রফা হিসেবে মেলিন্ডা কী পাবেন, সে বিষয়ে চলছে জল্পনা। এর আগে, ২০১৯ সালে ২৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানেন বিশে^র সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি মার্কিন ধনকুবের ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস। জেফ বেজোসের সঙ্গে ডিভোর্সের পর তিনি পান ৩ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের সম্পদ।
সন্তানেরা কত সম্পদ পাবেন : বিল গেটস ও তার স্ত্রী মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদের ঘোষণা আসার পর আলোচনায় উঠে আসছেন তাদের সন্তানেরা। ধনকুবের এই দম্পতির তিন ছেলেমেয়ে। বড় মেয়ের নাম জেনিফার গেটস। ছেলে রোরি জন গেটস মেজ। আর ছোট মেয়ে ফিবি অ্যাডেল গেটস। মা-বাবার বিচ্ছেদের পর সন্তানেরা কী পরিমাণ সম্পদের মালিক হচ্ছেন, তা নিয়েও শুরু হয়েছে আলোচনা। তবে মা-বাবা অঢেল সম্পদের মালিক হলেও সন্তানেরা পাচ্ছেন তার খুব সামান্যই। তিন ভাই-বোনের প্রত্যেকই পাবেন এক কোটি মার্কিন ডলার। বিল ও মেলিন্ডার বাকি অর্থ চলে যাবে ট্রাস্টে।









সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]