ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১৬ জুন ২০২১ ১ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ১৬ জুন ২০২১

অচিরেই যুক্তরাষ্ট্রের টিকা পাওয়ার সিদ্ধান্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: সোমবার, ১৭ মে, ২০২১, ৬:৩৮ পিএম আপডেট: ১৭.০৫.২০২১ ৬:৫৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 93

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার জানিয়েছেন, দেশটি থেকে করোনাভাইরাসের টিকা পাওয়ার বিষয়ে আগামী দুই-একদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত পাওয়া যাবে।

সোমবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি একথা জানান। 

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত তাকে জানিয়েছেন বিষয়টি তাদের সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। আগামী এক-দুদিনের ভেতর উত্তর পাওয়া যাবে। ইতোমধ্যে তারা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যোগাযোগ করেছে বলেও জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী জানান, মার্কিন কোম্পানিগুলোর সহযোগিতায় এখানে টিকা উৎপাদন করা যায় না সেটা নিয়ে তারা আলোচনা করছে তবে এটা দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা।

এসময় আর্ল মিলার বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন উৎপাদনের যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে উল্লেখ করে বলেন, তার সরকার টিকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। মার্কিন সরকার বাংলাদেশি ওষুধ সংস্থাগুলিতে মার্কিন ভ্যাকসিন তৈরির সম্ভাবনাগুলো খতিয়ে দেখছে। বাংলাদেশি ওষুধ কোম্পানির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা উৎপাদনের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী ও মার্কিন রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের তাৎক্ষণিক চাহিদা পূরণের জন্য ভ্যাকসিন সরবরাহের বিষয়সহ করোনা মহামারি মোকাবিলায় দু দেশের মধ্যে চলমান সহযোগিতা নিয়েও আলোচনা করেন।

এসময় মিলার জানান, তার সরকার টিকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভ্যাকসিন সরবরাহে দক্ষিণ এশিয়ায় একটি আঞ্চলিক পদ্ধতি থাকা উচিত বলে মনে করে সে দেশের সরকার।

মিলার বলেন, মার্কিন সরকার বাংলাদেশি ওষুধ সংস্থাগুলিতে মার্কিন ভ্যাকসিন তৈরির সম্ভাবনাগুলো খতিয়ে দেখছে। আর্ল মিলার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে জানান, তার সরকার টিকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। মার্কিন সরকার বাংলাদেশি ওষুধ সংস্থাগুলিতে মার্কিন ভ্যাকসিন তৈরির সম্ভাবনাগুলো খতিয়ে দেখছে।

বাংলাদেশি ওষুধ কোম্পানির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা উৎপাদনের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী ও মার্কিন রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের তাৎক্ষণিক চাহিদা পূরণের জন্য ভ্যাকসিন সরবরাহের বিষয়সহ করোনা মহামারি মোকাবিলায় দু দেশের মধ্যে চলমান সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করেন।

এসময় মিলার জানান, তার সরকার টিকার বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভ্যাকসিন সরবরাহে দক্ষিণ এশিয়ায় একটি আঞ্চলিক পদ্ধতি থাকা উচিত বলে মনে করে সে দেশের সরকার।

বৈঠক সম্পর্কিত তথ্য নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে  হয়, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মানবিক অভিযানের বার্ষিক যৌথ প্রতিক্রিয়া পরিকল্পনা (জেআরপি) চালু করা, ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাত, কোভিড-১৯ পরিস্থিতি, ভ্যাকসিন ইস্যু ইত্যাদিসহ বিভিন্ন বৈশ্বিক ও দ্বিপক্ষীয় ইস্যুতে বৈঠকে আলোচনা হয়। এসময় মিলার বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আবার জেআরপিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রাখবে, যা আগামীকাল কার্যত চালু হবে। এর সহ-সভাপতিত্ব করবেন প্রতিমন্ত্রী শরিয়ার আলম।

মিলার বলেন, মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত জনগণের বোঝা বহন করতে আমেরিকা সব সময় বাংলাদেশকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে।

এসময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের টেকসই প্রত্যাবাসন বাংলাদেশের অগ্রাধিকার বলে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে সাফ জানিয়ে দেন। ভাসান চরে স্থানান্তরিত বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য আন্তর্জাতিক সমর্থন পাওয়ার ওপরও জোর দেন শাহরিয়ার আলম।

বৈঠকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী চলমান ফিলিস্তিনি-ইসরায়েল সংকট নিয়ে বাংলাদেশের গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে এ বিষয়ে ভূমিকা রাখার বাংলাদেশের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেন।

গাজা উপত্যকায় রক্তপাত বন্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সক্রিয় ভূমিকা নেয়ার আহ্বান জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। দ্বি-রাষ্ট্রীয় তত্ত্বে বিষয়টি সমাধানে বাংলাদেশের অবস্থা পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি।

এছাড়া বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা করতে যেতে ইচ্ছুক বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সময় মতো ভিসা ইনভিউরভিউ স্লট দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। বলেন, ভিসা স্লট বন্ধ থাকায় বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে।

জবাবে মিলার বলেন, লকডাউন পরিস্থিতি দ্বারা সৃষ্ট ব্যাকলগ সমাধানে দূতাবাস কাজ করছে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশে ধর্মীয় স্বাধীনতা সম্পর্কিত মার্কিন সরকার কর্তৃক সম্প্রতি প্রকাশিত প্রতিবেদনে বাংলাদেশের পুরোচিত্র ভালোভাবে প্রতিফলিত হয়নি। কারণ সরকার দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও বৈষম্য নিশ্চিত করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, দেশে ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের সেসব উদাহরণ প্রতিবেদনে দেয়া হয়েছে বিচ্ছিন্ন ঘটনা এবং সরকার দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিয়েছে।
দুই জনের মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি নিয়েও আলোচনা হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]