ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১ ৩ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১

কী আছে পাটের ব্যাগের মোটা বইয়ে
শাহনেওয়াজ
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১, ১১:১৮ পিএম আপডেট: ১৮.০৫.২০২১ ৫:৩৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 84

কী আছে পাটের ব্যাগে মোড়া মোটা বইয়ে? এ কৌতূহল মেটাতে আজ সব মন্ত্রী, সচিব উপস্থিত থাকছেন শেরেবাংলা নগরে এনইসি সভাকক্ষে। পাটের ব্যাগটি বেশ নান্দনিক। যার গায়ে লেখা আছে, ‘সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’। ব্যাগের কর্নারে একপাশে মুজিব বর্ষের লোগো। অন্যপাশে রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের মনোগ্রাম।
মোটা বই ইতোমধ্যে সব মন্ত্রী, সচিবের কাছে পৌঁছানো হলেও অনেকে এই বইয়ের পাতা উল্টে দেখার সুযোগ পাননি বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। কারণ বেশিরভাগ মন্ত্রী ও সচিবের কাছে এই পাটের ব্যাগে বইটি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে তাদের দফতরে। করোনার লকডাউনে অনেকে নিজ দফতরে আসেননি। তবে এই বই দফতরে আসার সঙ্গে সঙ্গে তাদের কাছে এই বার্তা চলে গেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। আজ সবাই যার যার মন্ত্রণালয়ের ভাগ্যে কী পরিমাণ বরাদ্দ হলো তা স্পষ্ট জানতে পারবেন। সবাই যখন শেরেবাংলা নগরে, তখন আশপাশেই গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি যোগ দেবেন। সবার কথা শুনবেন। কারণ তিনি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের চেয়ারপারসন।
মোটা বইয়ের প্রথম কয়েক পাতাজুড়ে সংক্ষিপ্ত বিবরণ। যেখানে রয়েছে বরাদ্দসহ প্রকল্প। বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প, পুনর্বিন্যাসিত সেক্টর কাঠামো ও নতুন ছকে এডিপি প্রণয়ন, সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০টি সেক্টরের বরাদ্দ, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ও করপোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নের প্রকল্পের বরাদ্দ, ২০২১-২২ অর্থবছরের এডিপিতে প্রস্তাবিত মোট বরাদ্দ ও প্রকল্পসংখ্যা, বরাদ্দসহ অনুমোদিত প্রকল্প, বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প ইত্যাদি। তবে এই সংক্ষিপ্ত বিবরণে উপসংহার সংযোজন করা হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত এডিপির আওতাভুক্ত প্রকল্প বা কার্যক্রমের সফল বাস্তবায়ন দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রসার, অধিক কর্মসংস্থান সৃষ্টি, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়ন, খাদ্য উৎপাদন, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, দারিদ্র্য বিমোচন, তথা দেশের সামাজিক আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাক্সিক্ষত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।
কী আছে এই মোটা বইয়ে? যা সরকারের ২০২১-২২ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি নামে সুপরিচিত। জানা গেছে, নতুন এডিপিতে বরাদ্দসহ ১ হাজার ৫১৫টি প্রকল্পের তালিকা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্পের তালিকা হচ্ছে ৫৯৬টি। বৈদেশিক সাহায্যপ্রাপ্তি সুবিধার জন্য ১৪১টি প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যা সবই অননুমোদিত। ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য এডিপিতে ৩৫৬টি শেষ করার জন্য নির্ধারণ করা হচ্ছে।
মোটা বইয়ের আসল কথা হচ্ছে, ২০২১-২২ অর্থবছরে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের জন্য কত টাকা বরাদ্দ রাখা হচ্ছে? তবে প্রস্তাব করা হচ্ছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৩২০ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে স্থানীয় মুদ্রায় ১ লাখ ৩৭ হাজার ২৯৯ কোটি ৯১ লাখ টাকা। প্রকল্প সাহায্য ৮৮ কোটি ২৪ লাখ ২৩ হাজার টাকা।
সর্বোচ্চ বরাদ্দের ক্ষেত্রে ১০টি সেক্টরকে চিহ্নিত করা হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য পদ্মা সেতুসহ পদ্মা রেল সংযোগের গুরুত্ব বিবেচনা করে পরিবহন ও যোগাযোগ সেক্টরকে সর্বোচ্চ বরাদ্দের প্রস্তাব করা হচ্ছে, যা মোট বরাদ্দের ২৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ। অর্থাৎ ৬১ হাজার ৬৩১ কোটি ৪১ লাখ টাকা। পাশাপাশি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণসহ বিদ্যুৎ ও জ¦ালানি খাতে সর্বোচ্চ ৪৫ হাজার ৮৬৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হচ্ছে। এরপরই রয়েছে গৃহায়ন ও কমিউনিটি সুবিধাবলি সেক্টরে তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ, যা মোট বরাদ্দের ১০ দশমিক ৫৪ শতাংশ। শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি ও প্রসারের জন্য এ খাতে বরাদ্দ করা হচ্ছে ২৩ হাজার ১৭৭ কোটি ৯৬ লাখ টাকা, যা মোট বরাদ্দের ১০ দশমিক ২৯ শতাংশ।
জানা গেছে, নতুন অর্থবছরের এডিপিতে আটটি সেক্টরের আওতাভুক্ত স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ও করপোরেশনের জন্য প্রকল্পের সংখ্যা ৮৯টি। এর জন্য বরাদ্দ করা হচ্ছে ১১ হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। উন্নয়ন সহায়তা খাতে বরাদ্দের ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা উন্নয়ন সহায়তা, জেলা পরিষদ সহায়তা, পৌরসভা উন্নয়ন সহায়তা, সিটি করপোরেশন সহায়তা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন সহায়তাসহ বিশেষ এলাকার জন্য সহায়তার বরাদ্দ রাখা হচ্ছে, যার পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার ৪৪০ কোটি টাকা। এদিকে গত ৯ মে পরিকল্পনামন্ত্রীর সভাপতিত্বে পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় এডিপির আকারসহ প্রকল্পের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় বলে জানা গেছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]