ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১৬ জুন ২০২১ ১ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ১৬ জুন ২০২১

বজ্রপাতে প্রাণ গেল ১৯ জনের
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ১৯ মে, ২০২১, ১১:০১ পিএম আপডেট: ১৯.০৫.২০২১ ১২:৩৩ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 66

দেশজুড়ে মঙ্গলবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা নাগাদ যে বৃষ্টি হয়েছে তাতে স্বস্তিবোধ করেছে দেশবাসী। কিন্তু এর সঙ্গে যে বজ্রপাত হয়েছে তাতে নিভে গেছে বহু প্রাণ। সাত জেলায় বজ্রপাতে ১৯ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে নেত্রকোনায় নয়, ফরিদপুরে চার, মানিকগঞ্জে দুই এবং সুনামগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ময়মনসিংহ ও কুমিল্লায় একজন করে প্রাণ হারিয়েছে। আমাদের ব্যুরোপ্রধান, নিজস্ব প্রতিবেদক, জেলা প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবরÑ
নেত্রকোনা : হাওরে কাজ করতে গিয়ে নেত্রকোনার চার উপজেলায় বজ্রপাতে নয়জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে কেন্দুয়া উপজেলায় দুই, মদনে দুই, খালিয়াজুরীতে তিন কৃষক ও পূর্বধলায় এক শিশু রয়েছে। এ ছাড়া বজ্রপাতে খালিয়াজুরীতে পাঁচ ও মদনে চারজন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে এসব ঘটনা ঘটে। মৃতরা হলেনÑ কেন্দুয়ার পাইকুড়া ইউনিয়নের বৈরাটি গ্রামের মো. বায়েজিদ মিয়া (৪২) ও কান্দিউড়া ইউনিয়নের কুণ্ডলী গ্রামের মো. ফজলুর রহমান (৫৫), খালিয়াজুরীর মেন্দিপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামের খেলু ফকিরের ছেলে কৃষক অছেক মিয়া (৩২), একই গ্রামের আমির সরকারের ছেলে কৃষক বিপুল মিয়া (২৮), বাতুয়াইল গ্রামের মঞ্জুরুল হকের ছেলে মনির হোসেন, মদন উপজেলার পশ্চিম ফতেপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে হাফেজ মো. শরীফ (১৮) ও একই গ্রামের মৃত আব্দুল মন্নাফের ছেলে মাওলানা আতাবুর রহমান (১৯) ও পূর্বধলার দলামূলগাঁও ইউনিয়নের টাকলি গ্রামের ইছাক মিয়ার ছেলে জুনাইদ (৮)।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর আনুমানিক ২টার দিকে কেন্দুয়া উপজেলার ফজলু মিয়া বাড়ির পাশেই সবজিক্ষেতে কাজ করছিলেন। এ সময় বজ্রসহ বৃষ্টি নামে। হঠাৎ বজ্রপাতে মারাত্মক আহত হন তিনি। খবর পেয়ে স্বজনরা ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অন্যদিকে একই উপজেলার পাইকুড়া ইউনিয়নের বৈরাটি গ্রামের আহসান খানের ছেলে বাচ্চু খান বৈরাটি আশ্রমের পাশের মাঠে কাজ করছিলেন। হঠাৎ বজ্রসহ বৃষ্টি নামলে বজ্রপাতে তিনিও আহত হন। তাকেও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।
ফরিদপুর : জেলায় বজ্রপাতে নারীসহ চারজন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৪টা ও সাড়ে ৫টার দিকে ফরিদপুর পৌরসভার পশ্চিম গঙ্গাবর্দী, পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের মোল্লাডাঙ্গি মহল্লায়, সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ও মধুখালী উপজেলার চাঁদপুরে এ ঘটনা ঘটে। ধান নিয়ে বাড়িতে ফেরার সময় বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ফরিদপুর পৌরসভার ১১ নম্বর ওয়ার্ডের মোল্লাডাঙ্গি মহল্লায় বজ্রপাতে নিহত হন আনোয়ারা বেগম (৪৫) নামে এক নারী। আনোয়ারা বেগম মোল্লাডাঙ্গি গ্রামের বাসিন্দা কৃষক কাবুল শেখের স্ত্রী।
এদিকে বিকাল ৪টার দিকে ধান নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ফরিদপুর পৌরসভার পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম গঙ্গাবর্দী মহল্লায় বজ্রপাতে কৃষক কবির মোল্লা (৪৮) নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া বিকালে বজ্রপাতে সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নে মারা যান দুলাল খান (৫৮) নামে এক কৃষক।
মধুখালী উপজেলায় বৃষ্টির মধ্যে পাটক্ষেতে কাজ করার সময় বজ্রপাতে কবির শেখ (৪১) নামে এক কৃষক নিহত হয়েছেন। বিকাল সাড়ে ৫টায় এ ঘটনা ঘটে। তিনি উপজেলার কামালদিয়া ইউনিয়নের চানপুর গ্রামের নবীন শেখের ছেলে।
মানিকগঞ্জ : মঙ্গলবার বিকালে জেলার সদর উপজেলার গিলণ্ডে ঘুড়ি ওড়াতে গিয়ে এক স্কুলছাত্র ও পৌরসভার পৌলী এলাকায় ধান কাটতে গিয়ে এক শ্রমিক বজ্রপাতে নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরও দুজন। নিহতরা হলেনÑ সদর উপজেলার গিলণ্ডে গ্রামের মাসুদ মোল্লার ছেলে দশম শ্রেণির ছাত্র আসিফ (১৫) এবং ঘিওর উপজেলার বড়টিয়া গ্রামের বাসিন্দা আজমত আলী (৫০)। আহতদের মধ্যে অনিক নামে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
সুনামগঞ্জ : সদর ইউনিয়নের তেগাঙ্গা গ্রামের তাজউদ্দিনের ছেলে আবু তাহের (৩৫) বজ্রপাতে নিহত হয়েছেন। নিহত আবু তাহের বিকালে গ্রামের কাছের বন্দেহরি বিলে মাছের পোনা ধরে বিক্রি করার জন্য বাজারে যাচ্ছিলেন। কিন্তু বিলের পাড়েই বজ্রপাতের শিকার হন তিনি। বজ্রপাতের তার বুকসহ শরীরের সামনের অংশ ঝলসে যায় এবং ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আবু তাহের ছিলেন একজন হতদরিদ্র জেলে। মাছ ধরে সংসার চালাতেন তিনি। তার তিনটি মেয়ে শিশু রয়েছে। পরিবারের উপার্জনশীল মানুষটির নির্মম মৃত্যুতে চরম পরিস্থিতিতে পড়েছেন তার পরিবার ও বাবাহারা তিন শিশু। দোয়ারাবাজার থানার ওসি নাছির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আবু তাহেরের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানিয়েছেন, নিহত আবু তাহেরের পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা সহায়তা দেওয়া হবে।
কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের নিকলীতে বজ্রপাতে মো. আরিফুল ইসলাম (১৭) নামে এক কিশোর নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার গুরুই ইউনিয়নের পাশর্^বর্তী বিয়াতিরচর হাওরে বজ্রপাতে মৃত্যুর এ ঘটনা ঘটে। নিহত আরিফুল ইসলাম গুরুই ইউনিয়নের বেতি নোওয়াগাঁও এলাকার মিয়া চানের ছেলে। এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে আরিফুল ইসলাম গুরুই ইউনিয়নের বিয়াতিরচর হাওর থেকে গরু আনতে যায়। এ সময় প্রচণ্ড ঝড়বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এ সময় আরিফুল বজ্রপাতে গুরুতর আহত হয়। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিকলী থানার ওসি মো. শামসুল আলম সিদ্দিকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের তারাকান্দায় ফুটবল খেলার সময় বজ্রপাতে আতিকুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরও একজন। নিহত আজিজুল উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের খলিশাজান গ্রামের আজমত আলীর ছেলে। মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের খলিশাজান গ্রামে খোলা মাঠে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে বৃষ্টি ও বজ্রপাতের সময় কয়েক যুবক রাস্তার পাশে খোলা মাঠে ফুটবল খেলতে নামে। এ সময় হঠাৎ বজ্রপাতে আতিকুল ইসলামসহ দুজন বজ্রপাতে আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার সময় আতিকুল মারা যান। আহত অন্যজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বিষয়টি নিশ্চিত করে তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, ঘটনাটি খুব মর্মান্তিক।
কুমিল্লা : কুমিল্লার হোমনায় কালবৈশাখী ঝড়ের সময় বজ্রপাতে প্রাণ হারাল এক যুবক। বজ্রপাতে নিহত যুবক মো. মোমেন (৩৫) উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের সীতারামপুর গ্রামের মো. তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্র ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল বাশার মোল্লা জানান, বিকালে আকাশ কালো হয়ে বজ্রসহ বৃষ্টিপাত শুরু হয়। বাড়ির পাশের জমিতে ঘাস খাওয়ার জন্য গরু চড়ানো ছিল তার। সেই গরু আনতে গিয়েই বজ্রপাতে মারা যান মোমেন।
হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ বজ্রপাতে মৃত্যুর বিষয়টি শুনেছেন বলে জানান।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]