ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১ ৩ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১

কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক এখন রিকশাচালক
এম মামুন হোসেন
প্রকাশ: শুক্রবার, ১১ জুন, ২০২১, ১০:৩৬ পিএম আপডেট: ১১.০৬.২০২১ ১২:১৯ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 70

বিশ^ব্যাপী চলমান মহামারি করোনার সবচেয়ে বড় ধাক্কা লেগেছে শিক্ষা খাতে। এর মধ্যে সবচেয়ে করুণ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে কিন্ডারগার্টেনে। স্বাস্থ্যবিধি মানতে গিয়ে ক্লাস বন্ধ থাকায় তারা বেতন পাচ্ছেন না। একই সঙ্গে টিউশনিও বন্ধ। এসব কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে কর্মহীন অবস্থায় আছেন এই ধারার ১০ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী। শিক্ষক হওয়ায় সামাজিক মর্যাদার কথা বিবেচনা করে তারা কারও কাছে হাতও পাততে পারছেন না। বাধ্য হয়েই তারা পেশা বদল করেছেন। কেউ কেউ রিকশা চালাচ্ছেন, কেউ বেছে নিয়েছেন মুদি দোকানদারি। কেউ হয়েছেন ফল বিক্রেতা। নারী শিক্ষকরা ঝুঁকছেন অনলাইন মার্কেটিংয়ে। সম্প্রতি বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন অ্যাসোসিয়েশনের এক জরিপে এমন চিত্র উঠে এসেছে। কিন্ডারগার্টেনকেন্দ্রিক সংগঠনগুলোর জোট কিন্ডারগার্টেন সমমান জাতীয় রক্ষা কমিটির তথ্য বলছে, সারা দেশে ৪০ হাজার ৮৫০টি কিন্ডারগার্টেন রয়েছে। ৯৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠানই ভাড়া বাড়িতে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রায় ১০ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী কাজ করছেন। বাড়ি ভাড়া ও শিক্ষকের বেতন দিতে না পারায় প্রায় ১২ হাজার স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
মিরপুরের সান ফ্লাওয়ার, হলি বার্ড, আশার আলো, আলোর দিশারী, সানোয়ার, পল্লবীর সান ওয়ার্ড ইন্টারন্যাশনাল, জুরাইনের আলমবাগ ও শনির আখড়ার প্রত্যাশা কিন্ডারগার্টেন শিক্ষার্থীদের কলকাকলিতে মুখরিত থাকত। করোনার কারণে এই স্কুলগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম এখন পুরোপুরি বন্ধ। রূপনগরের একতা স্কুল এখন মুদি দোকান।
কিছু কিছু স্কুল বিক্রি করে দেওয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেÑ মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধ এলাকার ফুলকুঁড়ি কিন্ডারগার্টেন অ্যান্ড হাইস্কুল, সাভারের বাইপাল এলাকার সৃজন সেন্ট্রাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজধানীর কচুক্ষেত মাটিকাটা এলাকার আইডিয়াল পাবলিক স্কুল, রামপুরার উলন রোডের হলি ভিশন রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বসিলার রাজধানী আইডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়, সাভারের পপুলার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, রাজধানীর রামপুরার ইকরা কিন্ডারগার্টেন, কচুক্ষেত মাটিকাটা এলাকার ব্লু বার্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল প্রভৃতি।
বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন আ্যাসোসিয়েশনের পরিসংখ্যান বলছে, প্রতিষ্ঠান চালাতে না পেরে সান ওয়ার্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলপ্রধান মো. মনোয়ার স্ট্রোক করে মারা গেছেন। কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার প্যারাগন কিন্ডারগার্টেনের রওশন কবীর এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার আলোকান্দি বিদ্যাপীঠের আবদুল খালেক আত্মহত্যা করেছেন।
সংগঠনটির কাছে শিক্ষকতা পেশা পরিবর্তনকারী ২২ জনের পরিসংখ্যান রয়েছে। এর মধ্যে মেহেরপুরের রোজ ডেল কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক মো. শাফিউর রহমান সুরুজ বিস্কুট বিক্রি করে সংসার চালান। রাজধানীর আদাবরের পপুলার কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক আমেনা বেগম ও আরবি শিক্ষক মো. ইমরান ফল বিক্রির পথ বেছে নিয়েছেন। গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের রওজাতুল আদব কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক মেহেরুল ইসলাম নৌকাচালকের পেশা বেছে নিয়েছেন। খুলনার পাইকগাছার ডেলুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক রবিউল আওয়াল ফল বিক্রি করেন। আর মেহেরপুরের কিডস ওয়ার্ড স্কলার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক সুজন ইসলাম অটোবাইক চালান।
মায়ের দোয়া কিন্ডারগার্টেন স্কুলের উদ্যোক্তা কামরুল হাসান লিপু জানান, করোনায় এক বছরেরও বেশি সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কারণে দেশের কিন্ডারগার্টেনগুলোর শিক্ষক-কর্মচারী বেকার হয়ে পড়েছেন। পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে অনেক প্রতিষ্ঠান। আমাদের স্কুলটিও বন্ধ হওয়ার পথে। তিনি আরও জানান, সরকারের কোনো ধরনের সুযোগ-সুবিধা আমরা পাইনি। স্কুল খুলে না দিলে প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়ে যাবে।
কিন্ডারগার্টেন সমমান জাতীয় রক্ষা কমিটির সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর কবির রানা সময়ের আলোকে জানান, শিক্ষক-কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ৯৫ শতাংশ স্কুল ভাড়া বাড়িতে চলছে। কোনো আয় নেই। বেশিরভাগ উদ্যোক্তা বাড়ি ভাড়া দিতে পারছেন না। এ পর্যন্ত ১২ হাজার কিন্ডারগার্টেন স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
করোনার মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি কয়েক দফা বাড়িয়ে ১২ জুন পর্যন্ত করেছে সরকার। সম্প্রতি ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপে দেশে করোনা সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখী। এই ছুটি আরও বাড়তে পারে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। দেশে করোনার প্রাদুর্ভাবের পর গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]