ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১৬ জুন ২০২১ ১ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ১৬ জুন ২০২১

মৃত্যু, কবর ও হাশর
হাশরে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ যেভাবে সাক্ষ্য দেবে
প্রকাশ: শনিবার, ১২ জুন, ২০২১, ১১:২২ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 28

মানুষের মৃত্যু অবধারিত। মৃত্যুর পর মানুষ হবে কবর জগতের বাসিন্দা। তারপর এক দিন সবাইকে হাশরের মাঠে পুনরুজ্জীবিত করা হবে। সেখানে দুনিয়ার
কৃতকর্মের
হিসাব-নিকাশ হবে। অতঃপর একদল মানুষকে জান্নাতে পাঠানো হবে, অন্য দলকে নিক্ষেপ করা হবে জাহান্নামে। দৈনিক সময়ের আলোর পাঠকদের জন্য মানুষের মৃত্যুর বিবরণ, কবর জগতের অবস্থা ও হাশরের বিচার সম্পর্কে কোরআন-হাদিসের আলোকে ধারাবাহিক লিখছেন
আরিফ খান সাদ
হাশরে মাঠে মানুষের হাতে আমলনামা ধরিয়ে দেওয়া হবে। পৃথিবীতে যে যা কিছু করেছে, সব কিছুর পুঙ্খানুপুঙ্খ বিবরণ তাতে লিপিবদ্ধ থাকবে। হাশরের মাঠের ভয়াবহ পরিস্থিতিতে যাদের বাম হাতে আমলনামা দেওয়া হবে, সবাই বুঝতে পারবে একটু পরই যেতে হবে ভয়ঙ্কর জাহান্নামের অগ্নিকুণ্ডে এবং অনন্তকাল জ্বলতে হবে। তাই অপরাধীরা আমলনামা ও কৃতকর্ম অস্বীকার করে বসবে। তারা বলতে চাইবে, ‘আমরা এসব কাজ করিনি। ফেরেশতারা
কম-বেশি বা ভুল করে লিখে রেখেছেন।’ তখন তাদের মুখ বন্ধ করে দেওয়া হবে এবং শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে কথা বলার শক্তি দেওয়া হবে। অপরাধীর হাত বলে উঠবে, হে রব! আমাকে দিয়ে সে এই এই অপরাধ করিয়েছে। পা বলে উঠবে, হে রব! আমার অনিচ্ছায় সে আমাকে ব্যবহার করে অমুক মন্দ স্থানে গমন করেছে। প্রতিটি আঙুল শব্দ করে সুস্পষ্ট ভাষায় বলে উঠবে, হে রব! আমি চাইনি, কিন্তু এ লোক আমাকে দিয়ে ওই ওই খারাপ কাজ করিয়েছে। এভাবে প্রতিটি অঙ্গ পুরো জীবনের পাপের ফিরিস্তি শুনিয়ে দেবে।
মানুষ যে হাত দিয়ে ধরে, যে পা দিয়ে হাঁটে, যে মুখ দিয়ে কথা বলে, যে চোখ দিয়ে দেখেÑ এসবই; এমনকি শরীরের চামড়া পর্যন্ত সেদিন মানুষের বিপক্ষে সাক্ষ্য দেবে। আল্লাহ সব কিছুর জবান খুলে দেবেন। আল্লাহর পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হবে, ‘আজ আমি তাদের মুখে মোহর লাগিয়ে দেব। ফলে তাদের হাত আমার সঙ্গে কথা বলবে এবং তাদের পা সাক্ষ্য দেবে তাদের কৃতকর্মের।’ (সুরা ইয়াসিন : ৬৫)। যখন মানুষের শরীরের চামড়াও তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবে তখন মানুষ চামড়াকে লক্ষ করে বলবে, ‘তোমরা আমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিচ্ছ কেন? তারা জবাব দেবে, আল্লাহ আমাদেরকে বাকশক্তি দান করেছেন, যিনি বাকশক্তি দান করেছেন প্রতিটি জিনিসকে।’ (সুরা হামিম সাজদাহ : ২১)
হাশরের মাঠের এমন ভয়াবহ পরিস্থিতির বিবরণ এসেছে হাদিসে। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিতÑ রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘হাশরের মাঠে আল্লাহ মানুষকে বলবেন, এখন এখানে আমি তোমার ওপর নিয়োজিত সাক্ষী নিয়ে আসছি। বান্দা তখন চিন্তা করতে থাকবে, কে আমার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আসবে? তখন আল্লাহ তার মুখে মোহর লাগিয়ে বন্ধ করে দেবেন এবং ঊরুকে নির্দেশ দেবেন, তুমি তোমার কথা বলতে শুরু কর। তখন ঊরু তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে শুরু করবে। এভাবে তার মুখ কথা বলবে, মাংস কথা বলবে, হাড় কথা বলবে। প্রত্যেকেই যা জানে সব বলে দেবে। যারা অস্বীকার করবে সবাই প্রমাণ পাবে এবং অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ওপর রাগান্বিত হবে।’ (মুসলিম : ২৯৬৮)। নিজের শরীরের বিভিন্ন অংশ এভাবে কথা বলার পর মানুষের আর কী করার থাকে? যে আল্লাহ নির্জীব জিহ্বাকে কথা বলার শক্তি দিয়েছেন, সেই আল্লাহই তো অন্যান্য নির্জীব অঙ্গকেও একই শক্তি দিতে সক্ষম!
এমনকি মানুষ যে জায়গায় অবস্থান করে পাপকর্ম করেছে, সেই জমিনও কথা বলতে শুরু করবে। যেখানে যেখানে হেঁটেছে, আহার-নিদ্রা করেছে, ভালো-মন্দ আমল করেছে সে অংশের জমিন সাক্ষ্য দেবে। জমিন সেদিন সব বলে দেবেÑ হে আমার রব! আমি সাক্ষী; তোমার এই বান্দা আমার পৃষ্ঠে অবস্থান করে, অমুক পাপ করেছিল, অমুক দিন করেছিল, অমুক সময় করেছিল। কোরআনে এসেছে, ‘সেদিন জমিন তার যাবতীয় সংবাদ জানিয়ে দেবে।’ (সুরা যিলযাল : ৪)। জমিনের প্রতিটি অংশ মানুষের হাঁটা-চলা, কথা-বার্তা, ভালো-মন্দ সব কাজের সাক্ষী। তারা প্রতিটি স্মৃতি সংরক্ষণ করে রাখছে। মানুষের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ, চামড়া, মাংস, জমিন, বৃক্ষলতা, বাতাস ইত্যাদি সব সাক্ষ্য দেওয়ার পর সবাই হতবিহ্বল হয়ে পড়বে। যারা আল্লাহর সঙ্গে লিখিত আমলনামা অস্বীকার করেছিল তারা নিজেদের নির্দোষ প্রমাণে ব্যর্থ হয়ে নিশ্চুপ দাঁড়িয়ে থাকবে। মানুষের কিছুই করার থাকবে না। অতএব দুনিয়ায় পাপ করার আগে চিন্তা করুনÑ হাশরের মাঠে এসব সাক্ষী যখন আপনার বিরুদ্ধে যাবে, কী করবেন তখন?
আগামী শনিবার পড়ুনÑ ‘হাশরের মাঠে
নবী-রাসুলদের পেরেশানি’








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]