ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১৬ জুন ২০২১ ১ আষাঢ় ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ১৬ জুন ২০২১

এবার নিষিদ্ধ হচ্ছেন সাকিব!
প্রকাশ: শনিবার, ১২ জুন, ২০২১, ১১:২৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 22

ষ ক্রীড়া প্রতিবেদক
বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না সাকিব আল হাসানের। ক্রিকেটারদের বিদ্রোহে নেতৃত্ব দেওয়া, ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও তা গোপন করা এবং সব ধরনের ক্রিকেট থেকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হওয়া, করোনাকালে দেশে ফিরেই কোয়ারেন্টাইনবিধি লঙ্ঘন করে জনসমাগমে হাজির হওয়া, আইপিএলে খেলতে জাতীয় দলকে উপেক্ষা করা, বেফাঁস মন্তব্য করে বিসিবি পরিচালকদের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ানোÑ সেই ২০১৯ সাল থেকে প্রতিটি ক্ষেত্রে বিতর্ককে সঙ্গী করেই সামনে এগোচ্ছেন তিনি।
সময়ের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন ৪ জুন, নিজের একাডেমির দুই বোলারকে নিয়ে অনুশীলনে এসে চলমান ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) জৈব-সুরক্ষা বলয় ভেঙে। ওই ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেই পার পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শুক্রবার ডিপিএলেই আবাহনীর বিপক্ষে মোহামেডান অধিনায়ক যে কাণ্ড ঘটিয়েছেন, তাতে দুঃখ প্রকাশ আর ক্ষমা চেয়েও পার পাচ্ছেন না সাকিব। নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছেন তিনি। সঙ্গে জরিমানাও গুনতে হতে পারে তাকে।
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শুক্রবার দুপুরে আবাহনীর বিপক্ষে ম্যাচে তিন দফায় বিতর্কিত ঘটনার জন্ম দেন সাকিব। প্রথমবার লাথি মেরে স্টাম্প উপড়ে ফেলেন। দ্বিতীয়বার স্টাম্প তুলে আছড়ে ফেলেন মাটিতে। তৃতীয় ঘটনাটি ঘটান মাঠ ছেড়ে যাওয়ার সময়। ড্রেসিং রুমে ফেরার সময় অশালীন ভঙ্গি করেন আবাহনীর ড্রেসিং রুম আর গ্যালারির দিকে। সে সময় তিনি আর আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন তেড়ে যান একে অন্যের দিকে। পরে অবশ্য কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন সাকিব, ভবিষ্যতে এমন কিছু আর করবেন না বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া বিবৃতিতে। কিন্তু তাতেও লাভ হচ্ছে না।
সাকিবের এমন অবিশ^াস্য আচরণ মাঠে বসেই দেখেছেন ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের (সিসিডিএম) কর্মকর্তারা। ঢাকার ক্লাব ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাটির চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানান, সাকিবের এমন আচরণ অগ্রহণযোগ্য, ‘খেলার মাঠে অনেক কিছুই হয়। আজকে আবাহনী-মোহামেডানের খেলা ছিল এবং এখানে বেশ উত্তেজনা ছিল। কিছু ঘটনাও ঘটেছে। সাকিব আল হাসানকে আমরা দেখতে পেয়েছি। এটা ফেসবুক লাইভ এবং ইউটিউব লাইভেও ছিল। তাই আপনারা সবাই দেখতে পেয়েছেন। এটা দুর্ভাগ্যজনক।’
সাকিবের বলে লেগবিফোরের সিদ্ধান্তে সাড়া দেননি আম্পায়ার। সে কারণেই প্রথম কাণ্ডটি ঘটান তিনি। পরে বৃষ্টি নামায় ওভার অসমাপ্ত রেখেই ম্যাচে বিরতি দেন আম্পায়ার, সেটা পছন্দ না হওয়ায় সাকিব ঘটান দ্বিতীয় কাণ্ডটি। কিন্তু আচরণবিধি অনুযায়ী মাঠে চাইলেই কোনো খেলোয়াড় আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করতে পারবেন না। কিন্তু সাকিবের সেসবে থোরাই কেয়ার! কোনোকিছু আমলেই নেননি তিনি। সিসিডিএম চেয়ারম্যান তাই মনে করিয়ে দিলেন, ‘ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা। ক্রিকেটে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। কখনও তার সিদ্ধান্ত আপনার পছন্দ নাও হতে পারে, কিন্তু খেলাটা তো চালিয়ে যেতে হবে। আমি জানি না সিদ্ধান্ত কী ছিল। তবে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।’
কাজী ইনাম জানান, আগেরবারের মতো এবার আর পার পাচ্ছেন না সাকিব। ম্যাচ রেফারি আর মাঠের আম্পায়ারদের রিপোর্ট পাওয়ার পর নিয়ম অনুযায়ীই ব্যবস্থা নেওয়া হবে মোহামেডান অধিনায়কের বিরুদ্ধে, ‘ক্রিকেট এমন একটি খেলা, যেখানে উত্তপ্ত একটি মুহূর্ত এসে যেতে পারে। কিন্তু আমরা আশা করি, সবসময় খেলোয়াড় তাদের মেজাজ ধরে রাখবে। যাই হোক, এটা স্বীকৃত ম্যাচ, এখানে নিয়ম আছে। ম্যাচ রেফারি, আম্পায়ার্সÑ তারা একটা রিপোর্ট দেবেন। আশা করছি, আজ তাদের রিপোর্ট আসবে। সব রুলস কিন্তু আছে, কোনো নিয়ম ভাঙলে নিয়ম অনুযায়ীই সব হবে।’
এখন প্রশ্ন হচ্ছে, নিয়ম অনুযায়ী কী শাস্তি পেতে পারেন সাকিব? জানা গেছে, আচরণবিধির ‘লেভেল টু’ লঙ্ঘন করেছেন সময়ের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। নিয়ম অনুযায়ী এ ধরনের অপরাধের শাস্তি হচ্ছে সর্বোচ্চ দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। সঙ্গে আর্থিক জরিমানারও বিধান রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, দুটো শাস্তিই পেতে যাচ্ছেন সাকিব। তবে দুই ম্যাচের জায়গায় তিনি নিষিদ্ধ হতে পারেন এক ম্যাচ। অর্থাৎ পরবর্তী ম্যাচটা অধিনায়ককে ছাড়াই খেলতে হবে মোহামেডানকে।








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]