ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৫ জুলাই ২০২১ ৯ শ্রাবণ ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৫ জুলাই ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

ছয় মাসেও মেলেনি মেডিকেল রিপোর্ট
আবদুল্লাহ আল মামুন
প্রকাশ: সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১, ৬:৪২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 69

রাজধানীর কলাবাগানে ও লেভেল শিক্ষার্র্থী আনুশকা নুর আমিনকে ‘ধর্ষণের পর হত্যা’র অভিযোগে করা মামলার তদন্ত ৬ মাসেও আলোর মুখ দেখেনি। থানা পুলিশের পর এবার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) মামলার তদন্তভার পেয়েছে। কিন্তু হত্যাকাণ্ডের এখনও মেডিকেল রিপোর্ট না পাওয়ায় তারাও তদন্তে অগ্রসর হতে পারছেন না। আবার ডিএনএ রিপোর্ট না পাওয়ায় ঢাকা মেডিকেলের ফরেনসিক বিভাগ পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল রিপোর্ট দিতে পারছে না।

স্বজনদের অভিযোগ, চাঞ্চল্যকর এ ঘটনার পর দ্রুততর সময়ে মেডিকেল রিপোর্ট দেওয়ার কথা থাকলেও এতদিনে রিপোর্ট দিতে পারেনি আগের তদন্ত সংস্থা। এতে মামলার নিষ্পত্তিতে অনেক বিলম্ব হচ্ছে।

তবে পিবিআই তদন্তভার পাওয়ায় সঠিক তদন্ত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে তারা আশাবাদী। পিবিআই নিহতের পরিবারের দেওয়া সব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নতুন করে তদন্ত শুরু করেছে। আনুশকার পরিবার, পিবিআই ও ফরেনসিক সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার সময়ের আলোকে জানান, ‘পরিবার ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে সব অভিযোগ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।’ আনুশকার মা সময়ের আলোকে জানান, ঘটনার পর বেশ কয়েকবার তদন্ত রিপোর্ট দাখিলের তারিখ পেছানো

হলেও শেষ পর্যন্ত আগের তদন্ত সংস্থা প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি। পরবর্তী সময়ে মামলার তদন্তভার পিবিআইতে হস্তান্তরের আবেদন করলে গত মাসে তাদের তদন্তভার দেন আদালত। তিনি বলেন, শুরু থেকেই আগের তদন্ত সংশ্লিষ্টরা একপেশে আচরণ করে আসছিলেন। তাদের দিহানের সঙ্গে থাকা তিন বন্ধুর বিষয়ে খোঁজ নিতে বলা হলেও তারা সেভাবে গুরুত্ব দেননি। তবে অভিযুক্ত তিন বন্ধুসহ বাসার দারোয়ান ও আরও কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেও তাদের জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া যায়নি বলে পুলিশ জানায়।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, এপ্রিলের শুরুতে সিআইডির ফরেনসিক ল্যাব থেকে পাঠানো আনুশকার ডিএনএ পরীক্ষার প্রতিবেদন তারা পায়। ওই রিপোর্টে আনুশকার শরীরে ‘কথিত প্রেমিক’ ফারদিন ইফতেখার দিহানের একারই উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল। তারা তদন্তে অনেক অগ্রসর হয়েছিলেন। তবে অন্য সংস্থার কাছে তদন্তভার যাওয়ায় তারাই এখন কাজ করছেন। আবার ডিএনএ রিপোর্টসহ পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়ায় ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগও পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল রিপোর্ট দিতে পারছে না বলে তাদের ভাষ্য।

এ বিষয়ে ঢামেক ফরেনসিক বিভাগের সাবেক প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ সময়ের আলোকে জানান, ডিএনএ রিপোর্ট না পাওয়ার কারণে পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল রিপোর্ট দিতে বিলম্ব হচ্ছে। এ বিষয়ে তদন্ত সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও আদালতের কাছে আবেদন করা হয়েছে। করোনার কারণে বিলম্ব হতে পারে বলে তিনি ধারণা করছেন।

এ বিষয়ে অগ্রগতি জানতে ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের বর্তমান প্রধান ডা. মো. মাকসুদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বর্তমানে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইর এসআই খালিদ সাইফুল্লাহ জানান, গত মাসের ১৬ তারিখ পিবিআই তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে। কিন্তু এখনও ডিএনএ ও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসেনি। এসব পেলেই তদন্ত আরও গতিশীল হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জানুয়ারি নিজ বাসায় ডেকে নিয়ে আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ ওঠে কথিত প্রেমিক দিহানের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই আনুশকার বাবা দিহানকে একমাত্র আসামি করে ‘ধর্ষণের পর হত্যা’র অভিযোগ এনে কলাবাগান থানায় মামলা করেন। ঘটনার দিনই দিহানকে আটক করলে সে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় এবং ধর্ষণের একপর্যায়ে রক্তক্ষরণে আনুশকার মৃত্যু হয় বলে জানায়।

/এমএইচ/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]