ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৫ জুলাই ২০২১ ৯ শ্রাবণ ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৫ জুলাই ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরলেন সাকিব-তাসকিন
প্রকাশ: বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১, ১১:১৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 28

ক্রীড়া প্রতিবেদক
পরিসংখ্যানের বিচারে দেশের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখার পর থেকেই ব্যাটিংয়ে যেমন, তেমনি বোলিংয়েও ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করে আসছেন তিনি। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কেন্দ্রীয় চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত হন সময়ের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। এরপর সামনে এগিয়ে যাওয়া। বিসিবির প্রতিবারের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে সাকিব ছিলেন অটোমেটিক চয়েস। কিন্তু ২০১৯ সালের অক্টোবরে চুক্তি থেকে তাকে বাদ দিতে বাধ্য হয় দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। জুয়ারির থেকে অনৈতিক প্রস্তাব পাওয়ার কথা গোপন করে ওই মাস থেকেই যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তিনি।
নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ২০২০ সালের অক্টোবরে মুক্তি পান সাকিব। ফেরেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন চলতি বছরের জানুয়ারিতে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজ দিয়ে। এরপর তার বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফেরাটা ছিল সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু করোনাকালীন বাস্তবতায় সেই অপেক্ষা দীর্ঘ হয়েছে প্রায় ছয় মাস। বিভিন্ন জটিলতায় বরাবরের বছরের শুরুতে এবার আর কেন্দ্রীয় চুক্তি হালনাগাদ করতে পারেনি বিসিবি, যেটা হলো বছরের মাঝপথে এসে। মঙ্গলবার ম্যারাথন বোর্ড সভার পর জানানো হয়েছে এমনটা। অনুমিতভাবেই চুক্তিতে ফেরানো হয়েছে সাকিবকে, তার সঙ্গে ফেরানো হয়েছে তারকা পেসার তাসকিন আহমেদকেও। নতুন করে চুক্তিতে এসেছেন অফস্পিনিং অলরাউন্ডার শেখ মেহেদী হাসান।
সাকিবের একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ড নিয়ে মাঠের বাইরে বইছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। তবে মাঠের ক্রিকেটে, জাতীয় দলে তার অবস্থানের কোনো পরিবর্তন ঘটেনি। এই অলরাউন্ডারের কোনো বিকল্প নেই। তাই একাধিকবার বিতর্কিত কাণ্ডে জড়ানোর পরও টাইগার শিবিরের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়েই আছেন তিনি। সামনেও যে থাকবেন, সেটাও নিশ্চিত হয়ে গেল বিসিবি তাকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফেরানোয়। তবে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফেরার পর সাকিবকে আগের মতো দুর্দান্ত রূপে দেখা যায়নি। ঘরোয়া ক্রিকেটেও ধুঁকছেন তিনি। কিন্তু এই অলরাউন্ডারের সামর্থ্য নিয়ে বিন্দুমাত্র সংশয় নেই বিসিবির, সে কারণেই তাকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফেরানো হয়েছে।
বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন মঙ্গলবার পরিষ্কার করে না বললেও ধারণা করা হচ্ছে, লাল এবং সাদাÑ উভয় বলের চুক্তিতেই থাকবেন সাকিব। তাসকিনকেও রাখা হতে পারে দুই বলের চুক্তিতে। সাম্প্রতিক সময়ে দারুণ ছন্দে আছেন ডানহাতি এই পেসার। শ্রীলঙ্কা সফরে টেস্টে দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন তিনি। এরপর ঘরের মাঠে লঙ্কানদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজেও তার পারফরম্যান্স ছিল বেশ ভালো। সেটারই পুরস্কার পেয়েছেন তাসকিন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের পুরস্কার পেয়েছেন শেখ মেহেদী। এবারই প্রথম বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন তিনি। এদের সঙ্গে আর কারা কারা চুক্তিতে ঠাঁই পাচ্ছেন, কে কোন ক্যাটাগরিতে থাকছেন, আগামী দুয়েকদিনের মধ্যে বিষয়টা জানাবে বিসিবি।
সাকিব-তাসকিনদের মতো সুখবর পেয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু এবং আরেক নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন। আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপ পর্যন্ত দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন তারা। তবে কাজের পরিধি বাড়ছে তাদের। একটি ছায়া জাতীয় দল তৈরির সিদ্ধান্ত যে নিয়ে ফেলেছে বিসিবি। বোর্ড সভায় সেটি অনুমোদনও করা হয়েছে। জাতীয় দলে অনিয়মিত এবং দল থেকে বাদ পড়াদের রাখা হবে এই দলে, বিসিবির তত্ত্বাবধানেই চলবে তাদের অনুশীলন। এমনিতে জাতীয় দলের বাইরে থাকলে ঠিকঠাক অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা পান না বলে আক্ষেপ আছে ক্রিকেটারদের। তাদের কথা মাথায় রেখেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি।
এতে জাতীয় দলের পাইপলাইন আরও সমৃদ্ধ হবে বলেই মনে করছে বিসিবি। কেননা সার্বক্ষণিক অনুশীলনে থেকে জাতীয় দলে খেলার জন্য নিজেদের প্রস্তুত রাখবেন ছায়া জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা। এ প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি বললেন, ‘আমরা একটা জাতীয় দলের কথা বলেছিলাম আপনাদের। সেটাও আজ অনুমোদন দেওয়া হলো। এখানে বাংলাদেশ টাইগার নামে একটা ছায়া জাতীয় দল আমরা তৈরি করতে যাচ্ছি। এটার নেপথ্যের কারণ হচ্ছেÑ জাতীয় দলে যারা ডাক পায় তারা যদি আবার ছিটকে যায়... যেমন কখনও ইমরুল পায় না, কখনও সৌম্য থাকে না, ওরা নাকি আমাদের এখানে অনুশীলন করতে পারে না। মানে আমাদের সুবিধাদি ব্যবহার করতে পারে না। সেটা তো একটা বড় সমস্য। তা হলে ওরা কোথায় অনুশীলন করবে? কারও যদি কোনো ঘাটতি থাকে শিখবে কোথায়? এটা থেকে আমরা ঠিক করেছিÑ সারা বছর ২৪ ঘণ্টা এখানে অনুশীলন চলবে। প্রধান কোচের নির্দেশক্রমে স্থানীয় কোচ দিয়ে কাজ করাব।’




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]