ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১ ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

গাইবান্ধায় নৌকা কারিগরদের ব্যস্ততা বেড়েছে
গাইবান্ধা প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১, ৯:৩৯ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 72

শুরু হয়েছে বর্ষাকাল। উত্তরের জেলা গাইবান্ধায় প্রতিবছর এ সময় নদ-নদীতে পানি বেড়ে যাওয়া এবং বিভিন্ন স্থানে বন্যা দেখা দেওয়ায় নৌকার চাহিদা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। বর্ষা মৌসুম এলেই ব্যস্ত সময় পার করেন এখানকার নৌকা তৈরির কারিগররা। নতুন নৌকা তৈরির পাশাপাশি চলে পুরনো নৌকা মেরামতের কাজও।

গাইবান্ধা সদরের গিদারী ইউনিয়নে পাঁচকুড়া গ্রামে এখন নৌকা বানানোর ধুম লেগেছে। বেশ খানিকটা দূর থেকেই কানে ভেসে আসে হাতুড়ি-বাটালের শব্দ। সেখানে গিয়ে দেখা গেল, দলবেঁধে কাজ করছেন নৌকার কারিগররা।

প্রতিবছর বর্ষাকালে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা, যমুনা, করতোয়া ও ঘাঘট নদী তীরবর্তী গাইবান্ধা জেলার অন্তত পাঁচটি উপজেলার অধিকাংশ জনপদ পানিতে থইথই করে। ডুবে যায় রাস্তাঘাট, নদী-নালা, খাল-বিল। যাতায়াত করতে হয় নৌকায়। মৎস্যজীবীরা মাছ ধরার কাজে ব্যবহার করেন ছোট-বড় নৌকা। তাই বর্ষা মৌসুম এলে এখানে বেড়ে যায় নৌকার কদর।

গাইবান্ধা সদর উপজেলা ছাড়াও সুন্দরগঞ্জ, ফুলছড়ি, সাঘাটা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় নৌকা তৈরিতে ব্যস্ততা বেড়েছে কারিগরদের। এসব এলাকাসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকার ক্রেতাদের চাহিদামাফিক অর্ডার নেন কারিগররা। এখন সেসব চাহিদা মেটাতে নৌকা তৈরিতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। বর্ষার ভরা মৌসুম হওয়ায় দম ফেলারও ফুসরত নেই তাদের।

বর্তমানে কাঠসহ নৌকা তৈরির উপকরণের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে নৌকা তৈরিতে খরচও বেড়েছে। তবে সে তুলনায় ক্রেতাদের কাছে নৌকার দাম বাড়েনি বলে জানান কারিগররা। তারা জানান, ৯ হাত লম্বা নৌকা ৩-৪ হাজার এবং ১২ হাত নৌকা ৫-৬ হাজার টাকায় বিক্রি করছেন তারা। গাইবান্ধা সদরসহ আশপাশ এলাকা থেকেও মানুষ এসে তাদের কাছ থেকে নৌকা তৈরি করে নিয়ে যায়।

সদর উপজেলার পাঁচকুড়া গ্রামের এক নৌকা তৈরির কারিগর জানান, নিজস্ব পুঁজি না থাকার কারণে দাদন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে অনেক কারিগরকেই উপকরণ কিনতে হয়। যে কারণে তারা তেমন দাম পান না। প্রতিবছর বর্ষা আসার মাসখানেক আগে থেকেই তিনি নৌকা তৈরির কাজ শুরু করেন। এটি তার বাপ-দাদার পেশা। বর্ষায় নৌকা আর বছরের বাকি সময়টা বাসাবাড়ির আসবাবপত্র, দরজা-জানালা তৈরি করে চলে তার সংসার।

/এমএইচ/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]