ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১ ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

রাজশাহীতে লকডাউন বাড়ল, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০
রাজশাহী ব্যুরো
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১, ১০:৫৮ এএম আপডেট: ১৭.০৬.২০২১ ৩:২৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 99

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে তিনজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। অন্যরা নমুনা পরীক্ষার আগেই মারা যান।

মৃত ১০ জনের মধ্যে সাতজনই রাজশাহীর। অন্য তিনজন চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও নওগাঁর। বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টা থেকে আগের ২৪ ঘন্টায় তাদের মৃত্যু হয় বলে জানান হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শামীম ইয়াজদানী। তিনি বলেন, মৃত ১০ জনের মধ্যে পাঁচজনের বয়স 

৬১ বছরের ঊর্ধ্বে। চারজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর এবং একজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।

হাসপাতাল পরিচালক জানান, ২৪ ঘন্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৪৪ জন। এর মধ্যে রাজশাহীর ২৬জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাতজন, নাটোরের চারজন, নওগাঁর চারজন, মেহেরপুরের দু’জন ও চুয়াডাঙ্গার একজন। একই সময়ে করোনা ইউনিট থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩১ জন। বর্তমানে হাসপাতালের আইসিইউয়ের ২০টি ও কেবিনের ১৫টি বেড সহ নয়টি করোনা ওয়ার্ডে ৩০৯ বেডের বিপরীতে ভর্তি রোগী আছেন ৩৫৮ জন। 

এদের মধ্যে রাজশাহীর ১৯৯ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৯৮ জন, নাটোরের ২৪ জন, নওগাঁর ২৪ জন, পাবনার চারজন, কুষ্টিয়ার চারজন, চুয়াডাঙ্গার দু’জন এবং অন্যান্য জেলার তিনজন।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের দুটি পিপিসআর ল্যাবে রাজশাহী অঞ্চলের তিন জেলার সর্বশেষ ৫৫৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৯৩ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে শনাক্তের হার ৪১ দশমিক ৫ ভাগ। চাঁপাইনবাবগঞ্জে শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৪৫ ভাগ এবং নাটোরের ১২ দশমিক ৫ ভাগ। 

করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতির কারণে রাজশাহী মহানগর এলাকায় এক সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউন বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে শেষ হবার আগে এর মেয়াদ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে। বুধবার রাতে রাজশাহী সার্কিট হাউজে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকের পর লকডাউন আরো এক সপ্তাহ বাড়ানোর ঘোষণা দেন সিটি মেয়র এএইএম খায়রুজ্জামান লিটন। 

এ সময় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো..শামীম ইয়াজদানী, মহানগর পুলিশ কমিশনার মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শরিফুল হক, সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ডাবলু সরকার উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউন চলাকালে মহানগর এলঅকায় ওষুধের দোকান ও জরুরি সেবার দোকান ছাড়া সব ধরণের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। কাঁচাবাজার নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত খোলা থাকবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেচাকেনা করতে হবে। জরুরি সেবা ছাড়া সরকারি ও বেসরকারি সব ধরণের অফিস বন্ধ থাকবে। জরুরি সেবা, রোগী পরিবহণ ও কাঁচামাল পরিবহণের সাথে জড়িত যানবাহন ছাড়া গণপরিবহণ ও ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে। জেলার কোনো উপজেলা থেকে চিকিৎসা গ্রহণ ছাড়া অন্য কেউ মহানগর এলাকায় প্রবেশ করতে পারবে না। 

নতুন করে সাতদিনের লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণাকালে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, এক সপ্তাহের লকডাউনে করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতি খুব একটা কমেনি। ১৪ দিনের সর্বাত্মক লকডাউন ছাড়া সংক্রমণের হার তেমন একটা কমে না। এ কারণে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। তার প্রত্যাশা, মানুষ লকডাউনের বিধিনিষেধ মেনে চললে রাজশাহীর করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে। আগামী ঈদের আগে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সবকিছু স্বাভাবিক হবে।

উল্লেখ্য, মে মাসের মধ্যভাগে চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ডেল্টা রূপের সংক্রমণ শুরু হয়। তখন এই জেলায় লকডাউন আরোপ করা হলেও রাজশাহী, নওগাঁ ও নাটোর জেলায় লকডাউন ছিলো না। সেই সুযোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাইরে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। এই পরিস্থিতিতে গত শুক্রবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাজশাহী নগরীতে লকডাউন আরোপ করে প্রশাসন। 




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]