ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

গম সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ৬ লাখ মেট্রিক টন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 50

খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে সরকার আগামী অর্থবছরে ৬ লাখ টন গম সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নিধারণ করেছে। এজন্য পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা, ২০০৮-এর বিধি ৮৩(১) (ক) প্রয়োগ করে আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে এবং পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন ২০০৬-এর ৬৮(১) ও পিপিআর ২০০৮-এর বিধি ৭৬(২) অনুযায়ী জি-টু-জির ভিত্তিতে গম কিনতে উদ্যোগ নিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।
সূত্র জানায়, দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরাসহ সরকারি বিতরণ ব্যবস্থা সচল রাখার উদ্দেশ্যে খাদ্য মন্ত্রণালয় অভ্যন্তরীণ সংগ্রহের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক উৎস থেকে গম সংগ্রহ করে থাকে। আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে আন্তর্জাতিক উৎস থেকে ৫ লাখ মেট্রিক টন গম সংগ্রহের জন্য বাজেটে অর্থ সংস্থান রয়েছে।
দেশের সরকারি মজুদ বাড়িয়ে সরকারি খাদ্য বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে আমদানির ক্ষেত্রে অনেক উৎস থাকলে দ্রুত খাদ্যশস্য আমদানি করা সহজ হয় এবং প্রতিযোগিতাপূর্ণ দামে খাদ্যশস্য কেনা করা সম্ভব হয় বিধায় খাদ্য মন্ত্রণালয় প্রতি বছর জি-টু-জি ভিত্তিতে এবং আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে গম সংগ্রহ করছে।
উল্লেখ্য, রাশিয়া ও ইউক্রেনের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের সমঝোতা চুক্তি রয়েছে। ইতোমধ্যে রাশিয়ার ফরেন ইকোনমিক করপোরশন থেকে ২ লাখ মেট্রিক টন গম সরবরাহের প্রস্তাব পাওয়া গেছে।
সূত্র জানায়, পিপিআর, ২০০৮-এর বিধি ৮৫ অনুযায়ী আন্তর্জাতিক ক্রয়ের কোটেশন পদ্ধতি প্রয়োগের জন্য খাদ্য অধিদফতর থেকে ইতোমধ্যে সম্ভাব্য সরবরাহকারীদের তালিকা তৈরির জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশসহ অন্যান্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরে গমের বাৎসরিক চাহিদা মোট ৬ লাখ মেট্রিক টন। এর মধ্যে অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে ১ লাখ মেট্রিক টন গম সংগ্রহ করা হবে। যথা সময়ে ঝুঁকিহীনভাবে গম সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের স্বার্থে আন্তর্জাতিক উৎস থেকে জি-টু-জি পর্যায়ে ২ লাখ মেট্রিক টন ও আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে ৩ লাখ মেট্রিক টন গম আমদানি করার প্রয়োজন রয়েছে।
জি-টু-জি-এর ভিত্তিতে ২ লাখ মেট্রিক টন গম আমদানির জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের পরিমাণ পিপিআর, ২০০৮-এর বিধি ৭৬ (২) এ উল্লিখিত মূল্যসীমার ঊর্ধ্বে হবে বিধায় এ বিষয়ে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির নীতিগত অনুমোদন প্রয়োজন। এ ছাড়া পিপিআর, ২০০৮-এর বিধি ৮৩ (১) (ক) অনুযায়ী আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্র দাখিলের সময়সীমা কমানোর ক্ষেত্রেও অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির নীতিগত অনুমোদনের প্রয়োজন রয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]