ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

রামেকে প্রতিদিন লাগছে ৮ হাজার লিটার অক্সিজেন
শ.ম সাজু রাজশাহী
প্রকাশ: রোববার, ২৭ জুন, ২০২১, ১০:৫৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 57

করোনায় মৃত্যুর মিছিল থামছে না রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে আগের ২৪ ঘণ্টায় সর্বশেষ এখানকার করোনা ইউনিটে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত চলতি মাসের ২৬ দিনে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মোট ২৯৪ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুহার অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। হাসপাতালের করোনা ইউনিটের রোগীদের জন্য প্রতিদিন প্রায় ৮ হাজার লিটার অক্সিজেন লাগছে।
বিভাগীয় শহর রাজশাহীর এই হাসপাতালটি সেন্ট্রাল অক্সিজেন সমৃদ্ধ উত্তরাঞ্চলের একমাত্র হাসপাতাল। ফলে শুধু রাজশাহীই নয়, বিভাগের ৮ জেলার পাশাপাশি রংপুর ও খুলনা বিভাগের রোগীরা আসে এখানে চিকিৎসা নিতে। যেসব রোগীর অক্সিজের স্যাচুরেশন নিচে নেমে যাচ্ছে, অর্থাৎ যাদের অক্সিজেন দিতে হচ্ছে, এমন করোনা ও উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীর চাপ প্রতিদিনই বাড়ছে হাসপাতালটিতে। রোগীর চাপ এতটাই বেড়েছে যে, প্রতিদিন শ^াসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যেসব রোগী আসছে, তাদের অক্সিজেন লেভেল ৯০-এর নিচে নামলেই শুধু এখানে ভর্তি নেওয়া হচ্ছে। অর্থাৎ যাদের অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে, শুধু তাদের ভর্তি করা হচ্ছে। বাকিদের ব্যবস্থাপনাপত্র দিয়ে বাড়ি থেকেই চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শনিবার সকাল পর্যন্ত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রোগী ছিল ৪৩১ জন। এদের সবাইকে দিতে হচ্ছে অক্সিজেন সাপোর্ট।
হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শামীম ইয়াজদানী জানান, সব মিলিয়ে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে এখন বেড সংখ্যা ৩৫৭টি। সেখানে শনিবার সকালে রোগী ভর্তি ছিল ৪৩১ জন। বেডের অতিরিক্ত রোগীদের মেঝে ও বারান্দায় রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সেখানে সিলিন্ডারের মাধ্যমে তাদের অক্সিজেন সাপোর্ট দেওয়া হচ্ছে। পরিচালক জানান, হাসপাতালে করোনা রোগীর চাপ এতটাই বেড়ে যাচ্ছে যে, ৪৮ শয্যার আরও একটি ওয়ার্ডকে করোনা ইউনিটের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। ওয়ার্ডটিতে সেন্ট্রাল অক্সিজেনের সংযোগ দেওয়া হচ্ছে। আজকালের মধ্যে ওয়ার্ডটি চালু করা হলে করোনা ইউনিটে বেড সংখ্যা দাঁড়াবে ৪০২টি।
ডা. শামীম ইয়াজদানী আরও জানান, হাসপাতালের করোনা ইউনিটের রোগীদের জন্য প্রতিদিন প্রায় ৮ হাজার লিটার অক্সিজেন লাগছে। এখন রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ করাটাই আমাদের কাছে একটি চ্যালেঞ্জের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। অক্সিজেন সরবরাহ আরও নিরবচ্ছিন্ন রাখতে আরেকটি অক্সিজেন ‘ভ্যাপোরাইজার’ লাইন লাগানো হয়েছে। তিনি বলেন, অক্সিজেনের জন্য আমাদের বাড়তি প্রস্তুতি রয়েছে, যাতে রোগী বেশি হলেও ব্যবস্থা করা যায়। আমাদের ১৮৩টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর রয়েছে। বর্তমানে ৭২৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুদ রাখা হয়েছে। একজন রোগীর অনেক অক্সিজেন লাগছে। এজন্য অনেক সিলিন্ডার দরকার হচ্ছে। আরও ২০০ সিলিন্ডারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরিচালক বলেন, করোনা রোগীদের জন্য আমাদের ২০টি আইসিইউ বেড রয়েছে ও ৬৯টি হাইফ্লো নাজাল ক্যানুলা রয়েছে, যা প্রায় আইসিইউর সমতুল্য। ২০টি আইসিইউ বেডের বিপরীতে রোগী ভর্তির আবেদন জমা পড়েছে শতাধিক। ফলে জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য এগুলো আরও বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]